বিশেষ প্রতিবেদন

মঙ্গলবার, ১২ জুলাই, ২০১৬ (১৫:৩২)

জঙ্গি প্রতিরোধের উপায় কী আছে?

এইচ টি ইমাম

ইমাম, পুরোহিত, ভিক্ষু, যাজকসহ গত দেড় বছরে একের পর এক ঘটনায় অর্ধশতাধিক মানুষকে টার্গেট কিলিং অথবা গুপ্তহত্যার শিকার হতে হয়েছে। এরমধ্যে সর্বসাম্প্রতিক হিসেবে যোগ হয়েছে গুলশানে দেশি-বিদেশিদের জিম্মি করে জঙ্গিদের হত্যাযজ্ঞ ও শোলাকিয়া ঈদগায় ঈদের দিনে হামলা।

ছোট ছোট ঘটনা থেকে এভাবে জঙ্গি-সন্ত্রাসি হামলার এমন ব্যাপ্তি কী চাপে ফেলেছে সরকারকে? কিভাবে পরিস্থিতি মোকাবেলা করবে সরকার? বিশ্বজুড়ে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করা এসব ঘটনায় দেশের ভাবমূর্তি ফেরাতে কী করণীয় সরকারের সামনে?

দেশ টিভিকে দেয়া একান্ত সাক্ষাতে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা এইচটি ইমাম বলেন, গুপ্তহত্যা, টার্গেট কিলিং আর গুলশান ও শোলাকিয়ায় সবশেষ জঙ্গি হামলার মতো ঘটনার প্রভাব সরকার কাটিয়ে উঠতে পারবে।

এসব রুখতে দল আওয়ামী লীগকেই কার্যকর ভূমিকা রাখতে হবে—উল্লেখ করে শেখ হাসিনার সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবেশী ও বন্ধু দেশগুলোকে ক্ষেপিয়ে তোলাই এসব ঘটনার উদ্দেশ্য বলে মনে করেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা বলেন, ‘এখানে দলের ঝাঁপিয়ে পড়া ছাড়া আর কোনো উপায় নেই বলে আমি মনে করি। আওয়ামী লীগ যদি এভাবে মাঠে নেমে পরে এবং যাদের দেশাত্ববোধের চেতনা আছে, যারা স্বাধীনতার পক্ষে তারা ক্রমশই জেগে উঠছে। আমার মনে হয় এটাই আমাদের বড় রক্ষাকবজ। আমরা এদেরকে (জঙ্গিগোষ্ঠী) পরাজিত করতে পারবো।’

তার মতে, দেশকে অস্থিতিশীল, সরকারকে দুর্বল আর প্রতিবেশি ও বন্ধু রাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্ক নষ্ট করাই এমন জঙ্গি-সন্ত্রাসের মূল টার্গেট আর দেশকে অকার্যকর প্রমাণে এমনটি তারাই যারা এখনো পাকিস্তানি ভাবধারা লালন করেন। সব তাদের ইন্ধনেই হচ্ছে।

এইচটি ইমাম আরো বলেন, ‘সেই শক্তি আর কেউ নয়, যারা বরাবর বাংলাদেশের বিরোধীতা করে আসছে। স্বাধীনতার বিরোধীতা করে আসছে, তারা পাকিস্তানের পক্ষে। আর পাকিস্তান চালায় আইএসআই।’

‘এই আইএসআইয়ের বুদ্ধি, তাদের সমর্থন, তাদের অর্থ এবং সেইসঙ্গে আন্তর্জাতিক যে সন্ত্রাসি সংগঠন আছে তাদের সঙ্গে মিলেমিশে তারা এ কাজগুলো করছে। এরা যেকোনো পর্যায়ে যেতে পারে—’ বলেও জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর এ উপদেষ্টা আরো বলেন, এমন সময়ে মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের সকলকে সংঘবদ্ধ হয়ে মাঠে থাকতে হবে। একেবারে তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত কার্যকর করতে হবে সন্ত্রাসবিরোধী কমিটি। এর সামাজিক-রাজনৈতিক গুরুত্ব হবে অনেক বেশি।

এক সময় ঈদের পরে মন্ত্রিসভায় রদবদল হওয়ার মতো একটা ইঙ্গিত ছিল।

এমন প্রশ্নের জবাবে এইচটিইমাম বলেন, তেমন সম্ভাবনা নেই— তবে এক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তই শেষ কথা।

এছাড়াও রয়েছে

বাংলাদেশ থেকে অস্কারে লড়বে ‘ইতি তোমারই ঢাকা’

টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের ২০ বছর

শ্রীলংকায় সাম্প্রদায়িক সহিংসতা নয়, অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক সংকট

অগ্নি-ঝুঁকি: রাজধানী ঘিরে যে মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের পরামর্শ

নিরাপদ সড়ক প্রতিষ্ঠায় পরিবহন মালিক-চালকদের দায়বদ্ধের তাগিদ

অপরিকল্পিত নগরায়ন, আইন না মানার প্রবণতা সব মিলিয়েই ঝুঁকিতে রাজধানীবাসী

পাট থেকে তৈরি হচ্ছে লেমিনেটেড ব্যাগ-স্লাইবার ক্যানশিট

পাইলটকে ফিরে দেয়া মানেই ভারত-পাকিস্তান উত্তেজনার শেষ নয়

আরও খবর

  • শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ

    শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ

  • হোয়াটসঅ্যাপের বিতর্কিত নীতি কার্যকর

    হোয়াটসঅ্যাপের বিতর্কিত নীতি কার্যকর

  • আমি জন্মগতভাবে বেয়াদব: নোবেল

    আমি জন্মগতভাবে বেয়াদব: নোবেল

  • যেসব এলাকায় আজ গ্যাস থাকবে না

    যেসব এলাকায় আজ গ্যাস থাকবে না

সর্বশেষ খবর

সরকার লকডাউনের নামে ক্র্যাকডাউন দিয়েছে: মির্জা ফখরুল

‘বাংলাদেশের ইতিহাস আর কেউ বিকৃত করতে পারবে না’

করোনায় আরও ৩২ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৬৯৮

আদালতে বাবুলের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি