জাতীয়

সোমবার, ২৮ জুলাই, ২০১৪ (২৩:৩১)

এলো খুশির ঈদ

এলো খুশির ঈদ

শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেছে। এলো খুশির ঈদ। মঙ্গলবার দিনটিকে ঘিরে এখন খুশির আমেজ। মাসব্যাপী সিয়াম সাধনার পর ঈদুল ফিতর বয়ে আনে অনাবিল আনন্দ ও খুশির বার্তা। ধনী-গরিব নির্বিশেষে সবাই এক-কাতারে শামিল হয়ে ভাগাভাগি করে নেয় এ আনন্দ। ঈদ উদযাপনে ছোটবড় সবার রয়েছে নানা আগ্রহ নানা পছন্দ।

রাষ্ট্রপতি মো.আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে পৃথক বাণীতে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

যথাযথ ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে সারাদেশে মুসলমানরা তাদের বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর উদযাপন করবেন। অপরদিকে রাজধানীসহ সারাদেশে ইতোমধ্যেই ঈদের জামাতের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।

প্রতিবারে মতো এবারো রাজধানীর সবচেয়ে বড় ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে। প্রায় ১ লাখ মানুষের জামাতে নামাজ আদায়ের জন্য সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন। মুসুল্লিরা যাতে নিরাপদে নামাজ আদায় করতে পারেন সেজন্য পুলিশ ও র্যা বের পক্ষ থেকে নেয়া হয়েছে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা যাওয়ায় কাল (মঙ্গলবার) উদযাপিত হবে ঈদুল ফিতর। চাঁদ দেখা নিশ্চিত করতে সোমবার সন্ধ্যায় ইসলামিক ফিউন্ডেশনের বায়তুল মোকাররম মসজিদ সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির বৈঠকে বসে। চাঁদ দেখা যাওয়ার পর থেকেই ঘরে ঘরে আজ থেকে শুরু হয়ে গেছে উৎসবের আয়োজন।

রাজধানীর জাতীয় ঈদগাহ মাঠসহ সারাদেশের ঈদগাহ ময়দানগুলোকে প্রস্তুত করে তোলা হয়েছে ঈদের নামাজের জন্য।

ঈদগাহ ময়দানকে ঘিরে নেয়া হয়েছে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

বিপুল সংখ্যক পুলিশের পাশাপাশি থাকছে বিশেষ নিরপত্তা বাহিনী সোয়াট বলে জানান ঢাকা মহানগর পুলিশ- ডিএমপির কমিশনার বেনজির আহমেদ। যেকোনো ধরনের নাশকতা ঠেকাতে পুলিশের পাশাপাশি র্যা বও কাজ করবে বলে জানিয়েছেন র্যা ব মহাপরিচালক মোখলেসুর রহমান।

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে রাজধানীর জাতীয় ঈদগাহে ঈদের প্রধান জামাত সকাল সাড়ে ৮টায় অনুষ্ঠিত হবে। বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের খতিব অধ্যাপক মাওলানা মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন ঈদের নামাজে ইমামতি করবেন। বিকল্প হিসেবে থাকবেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মুফতি মাওলানা মোহাম্মদ আবদুল্লাহ।

প্রতি বছরের ন্যায় এবারো বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে পর্যায়ক্রমে ৫টি ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

প্রথম জামাত সকাল ৭টা, দ্বিতীয় জামাত সকাল ৮টা, তৃতীয় জামাত সকাল ৯টা, চতুর্থ জামাত সকাল ১০টা এবং পঞ্চম ও সর্বশেষ জামাত সকাল ১১টায় অনুষ্ঠিত হবে।

ঈদের দিন সরকারি, আধা সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানসমূহের ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে।

বনানীর ঢাকা গেট থেকে বঙ্গভবন পর্যন্ত প্রধান সড়ক এবং সড়ক দ্বীপসমূহে জাতীয় পতাকা এবং বাংলা ও আরবিতে ঈদ মোবারক লেখা ব্যানার ও ফেস্টুন দিয়ে সজ্জিত করা হবে। এ ছাড়া ঈদের দিন দিবাগত রাতে গুরুত্বপূর্ণ সরকারি ভবনসমূহে আলোকসজ্জা করা হবে।

বাংলাদেশ বেতার, বাংলাদেশ টেলিভিশন এবং বেসরকারি স্যাটেলাইট টিভি চ্যানেলগুলো ঈদের দিন বিশেষ অনুষ্ঠানমালা সম্প্রচার করবে। ঈদ উপলক্ষে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা বিশেষ সংখ্যা প্রকাশ করেছে।

ঈদের দিন দেশের বিভিন্ন হাসপাতাল, কারাগার, সরকারি শিশু সদন, ছোটমনি নিবাস, সামাজিক প্রতিবন্ধী কেন্দ্র, আশ্রয়কেন্দ্র, ভবঘুরে কল্যাণ কেন্দ্র ও দুস্থ কল্যাণ কেন্দ্রসমূহে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হবে।

এছাড়া ঢাকা মহানগরীর বিভিন্ন স্থানে রাষ্ট্রীয় নীতির সাথে সঙ্গতিপূর্ণ চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হবে। সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের বিনা টিকেটে উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের আওতাধীন সব শিশুপার্কে প্রবেশ, বিনোদন ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা থাকছে।

বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বা স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানসমূহ জাতীয় কর্মসূচি ও নিজ নিজ কর্মসূচির আলোকে ঈদুল ফিতর উদযাপন করবেন।

এছাড়া বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসসমূহে যথাযথ মর্যাদায় সরকারি কর্মসূচির আলোকে ঈদুল ফিতর পালন করবে।

ঈদ উপলক্ষে মুসল্লিদের নিরাপত্তা এবং আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে রাজধানীসহ সারাদেশে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

ঈদের দিনটিতে কীভাবে নিজেকে সাজাবেন, ঘরইবা সাজাবেন কীভাবে আর ঈদের বিশেষ খাবারই বা কী হবে তা নিয়ে রয়েছে নানা আয়োজন।

শেষ মুহূর্তে বিপণী বিতানগুলোতে ভিড় চোখে পড়ার মতো। বাড়িঘরে চলছে নানা আয়োজন।

ঈদের কেনাকাটা চলে গোটা মাস জুড়ে। তবে শেষ মুহূর্তেও ভিড় বিপণী বিতানগুলোতে। ফুটপাতেও পছন্দের দরকারি শেষ জিনিসিটি কিনে নিতে মানুষের জটলা। চাঁদরাতের এ কেনাকাটা চলবে ভোর পর্যন্ত।

সকলের মাঝে আপনাকে বিলিয়ে দেয়ার বার্তা নিয়ে এসেছে খুশির ঈদ। বাকি শুধু রাতটুকু। রাত পোহালেই ঈদের আনন্দে মাতবে সারাদেশ। ঈদ-আনন্দের আমেজ এখন চারদিকে, ছোটবড় সবার মনে সবার প্রাণে।

একমাস সিয়াম সাধনার পর সাম্য, সৌহার্দ্য, ভ্রাতৃত্ব ও একাত্ববোধের উৎসব ঈদ। সকল মানুষ সমান- এই মর্মবাণী ভাস্বর হয়ে ওঠে ঈদ উৎসবের মধ্যদিয়ে।

এছাড়াও রয়েছে

আজ শহীদ আসাদ দিবস

পরিবহন শ্রমিকদের টিকাদান কার্যক্রম শুরু

আরব আমিরাতে হুতি মিলিশিয়াদের হামলায় বাংলাদেশের নিন্দা

বোরো মৌসুমের ১০টি ধানের জাত অনুমোদন

বাংলাদেশের অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রা কেউ থামাতে পারবেনা: প্রধানমন্ত্রী

সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে শুরু ডিসি সম্মেলন

তৃণমূলের প্রকল্প বাস্তবায়নে আরও মনোযোগী হোন: ডিসিদের প্রধানমন্ত্রী

করোনায় আরও ১০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৬৬৭৬

আরও খবর

  • দ্বিতীয়বার ফিফার বর্ষসেরা খেলোয়াড় লেভান্ডভস্কি

    দ্বিতীয়বার ফিফার বর্ষসেরা খেলোয়াড় লেভান্ডভস্কি

  • ফের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আগুন

    ফের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আগুন

  • আফগানিস্তানে ভূমিকম্পে নিহত ২৬

    আফগানিস্তানে ভূমিকম্পে নিহত ২৬

  • বাস ও পিকআপ ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষ: আহত ৩

    বাস ও পিকআপ ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষ: আহত ৩

সর্বশেষ খবর

স্ত্রীসহ করোনা আক্রান্ত প্রধান বিচারপতি

শ্রীপুরে যাত্রীবাহি ট্রেন লাইনচ্যুত

বিধ্বস্ত টোঙ্গার উদ্দেশ্যে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের মানবিক সাহায্য

স্বেচ্ছায় করোনা আক্রান্ত হয়ে সংগীত শিল্পীর মৃত্যু