জেলার খবর

না’গঞ্জে সাত খুন: গণশুনানি শেষ

সাত হত্যা
সাত হত্যা

নারায়ণগঞ্জে সাত খুনের ঘটনায় হাইকোর্টের নির্দেশে গঠিত প্রশাসনিক তদন্ত কমিটির নেতৃত্বে সার্কিট হাউজে ২য় পর্বের গণশুনানি শেষ হয়েছে।

সকালে সাক্ষ্য দিতে গিয়ে নিহত প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলামের শ্বশুর শহীদুল ইসলাম অভিযোগ করেন, সাত খুনের ঘটনায় প্রধান সন্দেহভাজন নূর হোসেনের ভয়ে কেউ সাক্ষ্য দিতে আসতে চাচ্ছে না। গণশুনানি যেন সিদ্ধিরগঞ্জে করা হয়।

বৃহস্পতিবার সকালে সার্কিট হাউসে সাক্ষ্য দেয়ার আগে সাংবাদিকদের কাছে শহীদুল ইসলাম এ অভিযোগ করেন।

পরে তিনি তদন্ত কমিটির সদস্যদের সঙ্গে কথা বলতে ভেতরে যান। সকাল ১০টার দিকে হাইকোর্টের নির্দেশে গঠিত প্রশাসনিক তদন্ত কমিটি সার্কিট হাউসে গণশুনানি শুরু হয়।

এর আগে ১২মে অুনষ্ঠিত গণশুনানিতে সাত জন সাক্ষ্য দেন। ওই দিন তদন্ত কমিটি ৯ মে নিহত ব্যক্তিদের স্বজনদের সাক্ষ্য নিয়েছে। সেদিন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম, আইনজীবী চন্দন সরকারসহ নিহত সাতজনের পরিবারের সদস্যরা সাক্ষ্য দিয়েছেন। ৮ মে দুপুরে তদন্ত কমিটি নারায়ণগঞ্জে যায় এবং ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

এদিকে, আইনজীবীরা একঘণ্টার জন্য আদালত বর্জন করেন। দুপুরে আদালত প্রাঙ্গণে সমাবেশের কথা রয়েছে।

এরইমধ্যে গতকাল তদন্ত কমিটি ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেলে কাছে প্রাথমিক তদন্ত রিপোর্ট দিয়ে আরো সময় চেয়েছে।

এর আগে সোমবার প্রথম পর্বের গণশুনানি অনুষ্ঠিত হয়। ওই দিন শুনানির শুরুতে ফতুল্লার মাজরাইলের বাসিন্দা জামাল উদ্দিন সাক্ষ্য দেন। আরো সাক্ষ্য দেন জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান। এছাড়াও নাম জানা অনেকে সাক্ষ্য দিয়েছেন।

শুনানিতে এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে স্থানীয় সংসদ সদস্য শামীম ওসমানের সংশ্লিষ্টতার বিষয়টিও উঠে আসে।

গত রোববার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান কামাল খান। এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, কোনো সফটনেস দেখানো হবে না। কাউকে যেন ছাড় দেয়া না হয়। ওইদিন দুপুরে হাইকোর্ট এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে নারায়ণগঞ্জ র্যা ব-১১ তিন কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট।

গণশুনানিতে অংশ নিতে ও সাক্ষ্য দিতে আগ্রহী ব্যক্তিদের নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে আসতে অনুরোধ জানায় তদন্ত কমিটি। ওই সময়ই গণশুনানির দিন ঠিক করা হয়।

তদন্ত কমিটির সদস্য সচিব ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব আবুল কাশেম মো. মহিউদ্দিন সাংবাদিকদের গণশুনানির কথা জানান। সকালে আলোচিত সাত হত্যা মামালার নিহতদের পরিবারের সঙ্গে বৈঠক করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব শাহজাহান আলী মোল্লার নেতৃত্বে গঠিত তদন্ত কমিটি।

নিহত প্যানেল মেয়র নজরুলের স্ত্রী সেলিনা ইসলাম বিউটি, নজরুলের ভাই আব্দুস সালাম, আইনজীবী চন্দন সরকারের মেয়ে ডা. সেজুতি সরকার, জামাতা ডা. বিজয় কুমার পাল, তাজুলের পিতা আবুল খায়ের, লিটনের বড় ভাই রফিকুল ইসলাম, ইব্রাহিমের পিতা আব্দুল ওহাব, স্ত্রী অনুফা বেগম, জাহাঙ্গীরের স্ত্রী শামসুন নাহার নুপুর, স্বপনের স্ত্রী মোর্শেদা বেগম এসময় উপস্থিত ছিলেন।

তদন্ত কমিটির প্রধান জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব শাহজাহান আলী মোল্লা জানান, হাইকোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী ১৫ মের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করা হবে।

কমিটির কার্যপরিধি: কমিটি গণতদন্তের মাধ্যমে সাত জন অপহরণ ও হত্যার সঙ্গে প্রশাসনের কোনো সদস্য বা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কোনো সদস্যের প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ ভূমিকা ও সংশ্লিষ্টতা রয়েছে কি-না, তা উদ্ঘাটন করা হবে। এছাড়া অপহরণের খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে অপহৃত ব্যক্তিদের জীবিত উদ্ধারে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কোনো অবহেলা বা ইচ্ছাকৃত গাফিলতি ছিল কি-না, তা নির্ণয় করবে। কমিটি সাত দিনের মধ্যে তদন্তকাজের অগ্রগতি সম্পর্কে অ্যাটর্নি জেনারেলের মাধ্যমে হাইকোর্ট বিভাগে প্রতিবেদন দাখিল করবে।

কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন: জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের দুই উপসচিব মো. আবদুল কাইয়ুম সরকার ও আবুল কাশেম মো. মহিউদ্দিন, আইন মন্ত্রণালয়ের দুই উপসচিব মোস্তাফিজুর রহমান ও মিজানুর রহমান খান এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দুই উপসচিব শফিকুর রহমান ও সাঈদ মাহমুদ বেলাল হায়দার।

এর আগে গত শনিবার গণশুনানিতে অংশ নিতে ও সাক্ষ্য দিতে আগ্রহী ব্যক্তিদের নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে আসতে অনুরোধ জানায় তদন্ত কমিটি। ওই সময়ই গণশুনানির দিন ঠিক করা হয়। এছাড়া, আগামী ১৫ মে গণশুনানি অনুষ্ঠিত হবে। তদন্ত কমিটির সদস্য সচিব ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব আবুল কাশেম মো. মহিউদ্দিন সাংবাদিকদের গণশুনানির কথা জানান।

উল্লেখ্য, গত ২৭ এপ্রিল (রোববার) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর, প্যানেল মেয়র-২ ও আওয়ামী লীগ সমর্থক নজরুল ইসলাম ওরফে গোঁয়ার নজরুল ও তার চার সহযোগীকে তাদের বহনকারী প্রাইভেটকারসহ র্যা ব পরিচয়ে অপহরণ করা হয়। একই সময়ে নারায়ণগঞ্জের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী চন্দন কুমার সরকার ও তার গাড়িচালক ইব্রাহিমও নিখোঁজ হন।

পরে বুধবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার কলাগাছিয়া ইউনিয়নের শান্তিনগর এলাকায় শীতলক্ষ্যা নদী থেকে নজরুল ইসলামসহ ৬ জনের হাত-পা বাঁধা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। পরদিন বৃহস্পতিবার সকালে একই স্থান থেকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় আরো একটি মরদেহ পাওয়া যায়। - See more at: http://desh.tv/news/details/id/18695#sthash.rY1Swmu3.dpuf

দেশটিভি/এমএ
দেশ-বিদেশের সকল তাৎক্ষণিক সংবাদ, দেশ টিভির জনপ্রিয় সব নাটক ও অনুষ্ঠান দেখতে, সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল:

এছাড়াও রয়েছে

ভান্ডারিয়া ও মঠবাড়িয়ায় পৌর প্রশাসক নিয়োগ

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘অপার জীবনানন্দ’

শৌচাগারের দরজায় বঙ্গবন্ধুর ছবি পোস্ট, কারাগারে তরুণ

৮ ঘণ্টা পর ঢাকার সঙ্গে রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যায় চারজনের ফাঁসি

তেঘরিয়া কবরস্থানে সমাহিত হলেন শিক্ষাবিদ আব্দুল আলী

উখিয়া শরণার্থী শিবিরে দুই রোহিঙ্গা নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

বালু উত্তোলনকে কেন্দ্র করে মেয়রসহ গুলিবিদ্ধ তিন

সর্বশেষ খবর

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘ইউল্যাব’ শিক্ষার্থীদের ফটোওয়াক

ভান্ডারিয়া ও মঠবাড়িয়ায় পৌর প্রশাসক নিয়োগ

এক্সিম ব্যাংক কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ওরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠিত

সিলেটে ভোক্তা অধিদপ্তর ও সিসিএস-এর সচেতনতামূলক সভা