জেলার খবর

না’গঞ্জ হত্যাকাণ্ড: মৃতদেহ গুমে ৩টি গ্রুপ কাজ করে

নূর হোসেনের সহযোগী ও শ্যালক রিমান্ডে

৭ হত্যাকাণ্ড
৭ হত্যাকাণ্ড

নারায়ণগঞ্জে কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম ও অ্যাডভোকেট চন্দন সরকারসহ সাত জনকে অপহরণ, খুন ও লাশ গুমের জন্য তিনটি গ্রুপ কাজ করেছে। আর নিতাইগঞ্জের মাছুয়া বাজার খেয়াঘাট থেকে একটি বালু টানা ট্রলারে করে লাশগুলো কয়েক কিলোমিটার দূরে শীতলক্ষ্যা-ধলেশ্বরী মোহনায় নিয়ে ফেলে দুর্বৃত্তরা।

এদিকে, রোববার প্রধান আসামি নূর হোসেনের অন্যতম সহযোগী মহিবুল্লাহ মফিকে ৭ দিনের ও তার শ্যালক সম্রাটের ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত।

প্রাথমিক তদন্তে পুরো ঘটনার ছক পেয়ে গেলেও এখনো পর্যন্ত এজাহারভুক্ত কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। তবে পুলিশ সুপার খন্দকার মহিদ উদ্দিন দাবি করেছেন তারা অপহরণ ও হত্যার সঙ্গে যুক্ত এমন সাতজনকে গ্রেপ্তার করেছেন।

মুহিদ উদ্দিন বলেন, ‘দৃশ্যমান একটি অগ্রগতি আমাদের আছে সেটি হলো শনিবার এ মামলার তদন্তের ক্ষেত্রে আসামিকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছি। যেভাবে তদন্ত করছি, আসলে আমরা চাচ্ছি যারা কোনো না কোনোভাবে সহায়ক বা তথ্য দিয়ে সহায়তা করা, পালিয়ে যেতে সহায়তা করা এ ধরনের কোনো না কোনো সহায়তায় যারা আছে। তাদের সবাইকে চেষ্টা করছি একে একে গ্রেপ্তার করতে। সেইসঙ্গে আরো বেশি সতর্ক থাকছি যেন কোনো নিরীহ মানুষ আমাদের মাধ্যমে হয়রানির স্বীকার না হয়।’ নারায়ণগঞ্জ শহর ও জেলা সীমানার বুক চিরে বয়ে গেছে শীতলক্ষ্যা নদী। আর এই নদী পারাপারে ব্যবহার করা হয় পাঁচটি খেয়াঘাট। এরমধ্যে রয়েছে নিতাইগঞ্জের ভগবানগঞ্জ খেয়াঘাট, যা স্থানীয়ভাবে মাছুয়া বাজার ঘাট হিসেবে পরিচিত। দিনের বেলাতেই এ ঘাটটি দিয়ে লোক পারাপার হয় কম। আর রাতের কথা তো বলাই বাহুল্য।

দুর্বৃত্তরা কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম ও অ্যাডভোকেট চন্দন সরকারসহ সাত জনকে খুন করে লাশ গুমের জন্য এ ঘাটটিকেই বেছে নেয়। প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে, বালু টানা ট্রলার দিয়েই লাশগুলো নদীতে নিয়ে যাওয়া হয়। আর সেই ট্রলার পাহারা দেয় আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর দুটি বোট। তবে ভিত-সন্ত্রস্ত্র স্থানীয় বাসিন্দা ও শ্রমিকরা এ ব্যাপারে সরাসরি কথা মুখ খুলতে চাননি।

এদিকে পুলিশ সুপার এক প্রেস ব্রিফিংয়ে জানান-গ্রেপ্তার হওয়া ১৯ জনের মধ্যে ৭ জন সরাসরি ঘটনার সঙ্গে যুক্ত বলে জানান নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার খন্দকার মহিদ উদ্দিন।

অ্যাডভোকেট চন্দন সরকারের মোবাইলে পাওয়া অপহরণের ভিডিও চিত্র পরীক্ষা নিরীক্ষা করে দেখছে গোয়েন্দরা। তবে এ ব্যাপারে সরাসরি কোনো মন্তব্য না করে পুলিশ সুপার। তিনি দাবি করেন, তদন্তের অগ্রগতি রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ২৭ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জ আদালত থেকে লিংক রোড ধরে ঢাকায় যাওয়ার পথে অপহরণ হন সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম এবং তার চার সহযোগী। প্রায় একই সময়ে একই সড়ক থেকে গাড়িচালকসহ অপহূত হন আইনজীবী চন্দন সরকার। তিন দিন পর গত ৩০ এপ্রিল একে একে ছয়জনের এবং পরদিন ১ মে আরেকজনের লাশ শীতলক্ষ্যা নদী থেকে পাওয়া যায়।

তারপর নজরুল ইসলামের শ্বশুর শহীদুল ইসলাম ৪ মে র্যা বের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন।

তিনি বলেন, নজরুলকে র‌্যাব তুলে নিয়ে হত্যা করেছে। এ জন্য আরেক কাউন্সিলর নূর হোসেনসহ কয়েকজনের কাছ থেকে ছয় কোটি টাকা নিয়েছেন র্যাবের কয়েকজন কর্মকর্তা।

দেশটিভি/এমএ
দেশ-বিদেশের সকল তাৎক্ষণিক সংবাদ, দেশ টিভির জনপ্রিয় সব নাটক ও অনুষ্ঠান দেখতে, সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল:

এছাড়াও রয়েছে

ভান্ডারিয়া ও মঠবাড়িয়ায় পৌর প্রশাসক নিয়োগ

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘অপার জীবনানন্দ’

শৌচাগারের দরজায় বঙ্গবন্ধুর ছবি পোস্ট, কারাগারে তরুণ

৮ ঘণ্টা পর ঢাকার সঙ্গে রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যায় চারজনের ফাঁসি

তেঘরিয়া কবরস্থানে সমাহিত হলেন শিক্ষাবিদ আব্দুল আলী

উখিয়া শরণার্থী শিবিরে দুই রোহিঙ্গা নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

বালু উত্তোলনকে কেন্দ্র করে মেয়রসহ গুলিবিদ্ধ তিন

সর্বশেষ খবর

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘ইউল্যাব’ শিক্ষার্থীদের ফটোওয়াক

ভান্ডারিয়া ও মঠবাড়িয়ায় পৌর প্রশাসক নিয়োগ

এক্সিম ব্যাংক কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ওরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠিত

সিলেটে ভোক্তা অধিদপ্তর ও সিসিএস-এর সচেতনতামূলক সভা