নির্বাচন

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের মতো মাঠে থেকে লড়তে হবে: সিইসি

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) হিসেবে নিয়োগ পেলেন সাবেক সিনিয়র সচিব কাজী হাবিবুল আউয়াল
প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) হিসেবে নিয়োগ পেলেন সাবেক সিনিয়র সচিব কাজী হাবিবুল আউয়াল

ভোটের মাঠ থেকে পালিয়ে গেলে চলবে না বলে মন্তব্য করেছেন নতুন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল। উদাহরণ হিসেবে তিনি বলেন, ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের মতো রাজপথে থেকে লড়াই চালিয়ে যেতে হবে।

সোমবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে নির্বাচন ভবনের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সিইসি এ সব কথা বলেন।

দায়িত্ব নেওয়ার পর এই প্রথম সংবাদ সম্মেলনে সিইসি আরও বলেন, সততা আর নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে যাবেন তিনি। তবে ভালো নির্বাচনের জন্য সব রাজনৈতিক দলকে আন্তরিকভাবে এগিয়ে আসতে হবে। ভোট এক প্রকার যুদ্ধ। এই যুদ্ধের ময়দান থেকে পালিয়ে গেলে চলবে না।

সিইসির ভাষায়, ‘ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট যেমন পালিয়ে যাননি। তেমনি নির্বাচনটাও একটা যুদ্ধ। কাজেই মাঠ ছেড়ে এলে হবে না। হয়তো কষ্ট হবে। নির্বাচনী প্রতিদ্বন্দ্বিতায় কিছুটা ধস্তাধস্তি হয়। আমাদের সামর্থ্য, দক্ষতা ও শক্তি যতটুকু আছে ততটুকু দিয়ে আইনের মধ্যে থেকে সর্বোচ্চ প্রয়াস নিয়ে দায়িত্ব পালনের চেষ্টা করবো। ’

তবে এতো কিছুর পরও সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে সমঝোতা থাকা দরকার। তাদের সহযোগিতা পেলে দেশে ভালো নির্বাচন করা যাবে।

কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেন, ‘আমরা আন্তরিকতা, নিষ্ঠা ও সততার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করবো। আপনারাই তা মূল্যায়ন করবেন। আমরা অন্তরের অন্তস্থল থেকে প্রার্থনা ও প্রত্যাশা করি, সব দলই নির্বাচনে অংশ নেবে। তবে নির্বাচনের অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টির দায়িত্ব আমাদের।’

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে সিইসি কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেন, ‘গণমাধ্যম থেকে আমরা জ্ঞান আহরণের চেষ্টা করি। এই মুহূর্তে আগের কমিশনের দোষ-ত্রুটি নিয়ে বলতে চাচ্ছি না। কোনো শিক্ষনীয় বিষয় থাকলে সেটি আমরা সংশোধন করে কাজ করব। ’

সিইসি বলেন, ‘নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড কমিশন একা তৈরি করতে পারে না। পলিটিক্যাল লিডারশিপ আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি মিলিয়েই কিন্তু হয়। কিন্তু আমরা যদি মুখ ফিরিয়ে থাকি তাহলে দূরত্ব বাড়বে। রাজনৈতিক দলগুলোর কাউকে না কাউকে অহংকার বাদ দিয়ে আলোচনা করতে হবে। ’

সদ্য গঠিত নির্বাচন কমিশনের উপর বিএনপিকে আস্থা রাখার আহবান জানান তিনি। বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন দলীয় সরকারের জন্য নির্বাচন করে না। একটি সরকার তো থাকবেই। যেমন ওয়ান ইলেভেনে একটা সরকার ছিল, আবার নির্দলীয় সরকারও ছিল। তাদের অধীনেও কমিশন থাকে। এখন যে সাংবিধানিক ব্যবস্থা আছে, আমরা চেষ্টা করব ভোটাররা যাতে ভোট দিতে পারে। তাদের আস্থা অর্জনের চেষ্টা করব। বিএনপি যদি ঘোষণা দিয়েও থাকে তাদের কী আহ্বান জানাতে পারব না? কোনো কিছুই শেষ নয়। আমরা তো তাদের চা খেতে আমন্ত্রণ জানাতেও পারি। ’

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের সামর্থ্য অসীম নয়। এটি সব সময় আপেক্ষিক, টকশোতে পক্ষ-বিপক্ষে কথা হয়। নির্বাচন কমিশন অসীম শক্তিশালী নয়। যার যার স্ব-স্ব অবস্থান থেকে করণীয় না করলে হবে না। কারো ব্যর্থতা থাকলে স্বীকার করতে হবে। ’

সিইসি বলেন, ‘নির্বাচনের মাঠ উত্তপ্ত। লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড কমিশন একা তৈরি করতে পারে না। পলিটিক্যাল লিডারশিপ আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি মিলিয়েই কিন্তু হয়। কিন্তু আমরা যদি মুখ ফিরিয়ে থাকি তাহলে দূরত্ব বাড়বে। রাজনৈতিক দলগুলোর কাউকে না কাউকে অহংকার বাদ দিয়ে আলোচনা করতে হবে। ’

কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেন, ‘নির্বাচনে দলীয় কর্মী থাকে। তারা ভোটারদের নিয়ে যায়। তাদের যে ভূমিকা নেই তা নয়, তাদের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। যদি গ্রাউন্ড লেভেলে নির্বাচন ব্যবস্থা দুর্বল হয় তাহলে সমস্যা তৈরি হয়। আমরা সবাইকে নির্বাচনমুখী করতে চাই।‘

দিনের ভোট রাতে হওয়ার অভিযোগের ব্যাপারে প্রশ্নের মুখোমুখি হন তিনি। বলেন, ‘আপনাদের কী মনে হয় আমি রাতে গিয়ে সিল মারব? আমি সরকারি কর্মকর্তা ছিলাম, অনেকেই তো ছিলেন। এটা আপেক্ষিক বিষয়। অনুকূল পরিবেশের কথা বলেছি। নির্বাচন কমিশন এককভাবে যে উদ্দেশ্য অর্জন সেখানে সীমাবদ্ধতা দেখা দেবে। যারা আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য আছেন, তাদের সঙ্গেও বসব, অবজার্ভ করব। আমি গুরুত্ব দেই ভোটকেন্দ্রকে। প্রতিটি দলের স্ব-স্ব এজেন্ট আছে তাদের তাড়িয়ে দিলে জানাতে হবে। তাদের সেখানে অবস্থান করতে হবে। আমরা আশাবাদী, আমাদের ওপর আস্থা রাখেন। সেটি দুর্বল হলে আমরাও দুর্বল হয়ে পড়ব। ’

তিনি বলেন, ‘ভোট ভোটের নিয়মে হবে। আগের রাতে হতো কিনা জানি না। আমি অস্ট্রেলিয়ায় বসে দিনে ভোট দিয়েছি। আমি জানি সেটি হয় কিনা। তবে আমরা সেদিকে যেতে চাই না। যদি দেখেন আমরা সেটি করেছি আমরা তখন বলতে পারেন। যদি মানুষের আস্থা বিনস্ট হয় তাহলে সেটি ফেরানোর চেষ্টা কী আমরা করব না? আমাদের আপনারা পর্যবেক্ষণে রাখেন, আমরা তো সেখানে বাধা দেবো না। রাজনৈতিক দলগুলো একটি চুক্তিবদ্ধ হতে পারেন। তারা কেন্দ্রে কোনো সহিংসতা করবেন না, সংঘাত তৈরি করবেন না।

বিনা-প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচন নিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা চেষ্টা করব। আমাদের সামর্থ্য অসীম নয়। আন্তরিকভাবে চেষ্টা ঘাটতি থাকবে না। নির্বাচনের সময় অভিযোগ পেলে তাৎক্ষণিক সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করব। সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবো। কোনো কর্মকর্তা বা কারো বিরুদ্ধে অনিয়ম পেলে বিধি মোতাবেক আইনি ব্যবস্থা নেবো। ’

ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) প্রসঙ্গে সিইসি বলেন, ‘ইভিএম নিয়ে কী সিদ্ধান্ত হবে, সেটি এখনই সিদ্ধান্ত নিতে পারব না। আমরা ইভিএমের ভালো-মন্দ নিয়ে আলোচনা করব। আমি নিজেও ইভিএম ভালো করে বুঝি না। ব্যালটের ভালো-মন্দটাও হয়তো বসে দেখব। পরে সিদ্ধান্ত নেওয়া যাবে।

সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচন কমিশনার অবসরপ্রাপ্ত জেলা ও দায়রা জজ বেগম রাশিদা সুলতানা, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আহসান হাবীব খান, অবসরপ্রাপ্ত সিনিয়র সচিব মো. আলমগীর ও আনিছুর রহমান এবং ইসি সচিব মো. হুমায়ুন কবীর খোন্দকার উপস্থিত ছিলেন।

কাজী হাবিবুল আউয়ালের নেতৃত্বাধীন কমিশন গত ২৬ ফেব্রুয়ারি নিয়োগ পায়। শপথ নেয় ২৭ ফেব্রুয়ারি। সোমবার আগারগাঁও নির্বাচন কমিশন ভবনে প্রথম কর্ম দিবস ছিলো তাদের। সকাল ১১টায় পরিচিতি সভা করেন তারা। এরপর করেন সংবাদ সম্মেলন। বর্তমান কমিশনের মেয়াদ শেষ হবে ২০২৭ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি।

দেশটিভি/এমএস
দেশ-বিদেশের সকল তাৎক্ষণিক সংবাদ, দেশ টিভির জনপ্রিয় সব নাটক ও অনুষ্ঠান দেখতে, সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল:

এছাড়াও রয়েছে

ইসির সংলাপ পর্ব শেষের দিকে

ইসির সংলা‌পে বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন

শেষ পর্যন্ত বিএনপির জন্য অপেক্ষা করবে ইসি

এমপি বাহারকে বিনীত অনুরোধ করা হয়েছিল: সিইসি

কুমিল্লায় নিরপেক্ষ নির্বাচন উপহার দিয়েছে ইসি: ওবায়দুল কাদের

সুন্দর নির্বাচনের জন্য ইসিকে ধন্যবাদ: তথ্যমন্ত্রী

ফোন আসা নিয়ে অহেতুক অভিযোগ চলছে: রিটার্নিং কর্মকর্তা

হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে নৌকার জয়, কুমিল্লার নতুন মেয়র রিফাত

সর্বশেষ খবর

  • রাজধানীতে আওয়ামী লীগের সমাবেশ, যানজটে দুর্ভোগ

    -২১৩৫৮ সেকেন্ড আগে
    রাজধানীতে আওয়ামী লীগের সমাবেশ, যানজটে দুর্ভোগ
  • ন্যাশনাল ডিফেন্স কোর্সের ৮৮ সদস্যের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় পরিদর্শন

    -১৯৫১৫ সেকেন্ড আগে
    ন্যাশনাল ডিফেন্স কোর্সের ৮৮ সদস্যের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় পরিদর্শন
  • কেরানীগঞ্জে জুয়েলারি মালিককে গুলি করে স্বর্ণালঙ্কার লুট

    -১৮০১৭ সেকেন্ড আগে
    কেরানীগঞ্জে জুয়েলারি মালিককে গুলি করে স্বর্ণালঙ্কার লুট
  • নিত্যপণ্যের দাম অহেতুক বাড়ালে কঠোর ব্যবস্থা: তথ্যমন্ত্রী

    -১৫৭৭৫ সেকেন্ড আগে
    নিত্যপণ্যের দাম অহেতুক বাড়ালে কঠোর ব্যবস্থা: তথ্যমন্ত্রী
  • ওয়াসা এমডিকে অপসারণে নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ নয়, হাইকোর্টের রুল

    -১২৮৭১ সেকেন্ড আগে
    ওয়াসা এমডিকে অপসারণে নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ নয়, হাইকোর্টের রুল

সর্বশেষ খবর

রাজধানীতে আওয়ামী লীগের সমাবেশ, যানজটে দুর্ভোগ

ন্যাশনাল ডিফেন্স কোর্সের ৮৮ সদস্যের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় পরিদর্শন

কেরানীগঞ্জে জুয়েলারি মালিককে গুলি করে স্বর্ণালঙ্কার লুট

নিত্যপণ্যের দাম অহেতুক বাড়ালে কঠোর ব্যবস্থা: তথ্যমন্ত্রী