অর্থনীতি

বুধবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ (১৬:২১)

রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সহায়তা দিতে প্রস্তুত বিশ্বব্যাংক

চিমিয়াও ফান-জাহিদ হোসেন

রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য সহায়তা দিতে বিশ্বব্যাংক প্রস্তুত আছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশে সংস্থাটির কান্ট্রি ডিরেক্টর চিমিয়াও ফান।

তিনি বলেন, অন্যান্য দাতা সংস্থার মতো বিশ্বব্যাংকও পরিস্থিতি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে।

বুধবার সংস্থার ঢাকা কার্যালয়ে ‘বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট আপডেট’ প্রতিবেদন প্রকাশ উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য বিশ্বব্যাংক কোনো সহায়তা দেবে কিনা- সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে চিমিয়াও ফান বলেন, বাংলাদেশ চাইলে বিশ্বব্যাংক সহায়তা দেবে এক্ষেত্রে ৪০ কোটি ডলার অর্থাৎ ৩ হাজার ২০০ কোটি টাকা পেতে পারে বাংলাদেশ।

বিশ্বব্যাংকের আইডিআই-১৮ প্যাকেজের আওতায় ২০০ কোটি ডলার তহবিল রয়েছে— যে দেশে শরণার্থীর সংখ্যা ২৫ হাজারের বেশি তারা চাইলে এ তহবিল থেকে সর্বোচ্চ ৪০ কোটি ডলার সহায়তা পেতে পারে। বাংলাদেশে এখন রোহিঙ্গা শরণার্থীর সংখ্যা ২৫ হাজারের অনেক বেশি। ফলে বাংলাদেশ সর্বোচ্চ সহায়তা পেতে পারে বলে জানান তিনি।

এ সহায়তা ঋণ না অনুদান হিসেবে দেয়া হবে- এর উত্তরে তিনি বলেন, এটা নির্ভর করে শরণার্থীদের নিয়ে বাংলাদেশ প্রস্তাবনার ওপর— প্রস্তাবনা দেখে মোট সহায়তার অর্ধেক অনুদান ও অর্ধেক ঋণ হতে পারে আবার পুরোটাও অনুদান হতে পারে।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে বিশ্বব্যাংক ভূমিকা জানতে চাইলে চিমিয়াও বলেন, বিষয়টি নিয়ে আমরা উদ্বিগ্ন— অন্যান্য সংস্থার সঙ্গে বিশ্বব্যাংকও বিষয়টি মনিটর করছে।

সংবাদ সম্মেলনে দেশের বিভিন্ন অর্থনৈতিক দিক তুলে ধরেন সংস্থাটির মুখ্য অর্থনীতিবিদ জাহিদ হোসেন।

চলতি অর্থবছরে জিডিপির প্রবৃদ্ধি আগের অর্থবছরের চেয়েও কমবে—"বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট আপডেট" নামে এক প্রতিবেদনে ৬.৪% প্রবৃদ্ধির পুর্বাভাস দিয়েছে বিশ্বব্যাংক।

সকালে রাজধানীতে সংবাদ সম্মেলনে বিশ্বব্যাংকের পক্ষে থেকে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রবৃদ্ধির গতি কমে আসলেও বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে ৬ উপরে প্রবৃদ্ধিকে ভাল হিসেবেই দেখছে বিশ্বব্যাংক।

বিশ্ব ব্যাংকের ঢাকা কার্যালয়ে এই প্রতিবেদন প্রকাশ অনুষ্ঠানে সংস্থার প্রধান অর্থনীতিবিদ জাহিদ হোসেন বলেন, “প্রবৃদ্ধির এই প্রাক্কলন একমাত্র ভারত ছাড়া বিশ্বের অন্যান্য দেশের চেয়ে বেশি। আন্তর্জাতিক মূল্যায়নে এটা খুবই ভালো প্রবৃদ্ধি। ভারতে এবার ৭.৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধির প্রাক্কলন দেওয়া হয়েছিল, সেটাও হয়ত থাকবে না।”

চলতি অর্থবছর চীন ৬ দশমিক ৩, ইন্দোনেশিয়া ৫ দশমিক ৩, থাইল্যান্ড ৩ দশমিক ৩, পাকিস্তান ৫ দশমিক ৫ প্রবৃদ্ধি পেতে পারে বলে পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে বিশ্ব ব্যাংকের প্রতিবেদনে।

তবে নাজুক অবস্থায় কর্মসংস্থান। বিশ্বব্যাংকের হিসেবে জোরালো প্রবৃদ্ধি হলেও তার সঙ্গ কর্মসংস্থানের চিত্র মিলছে না।

মূলত বেসরকারি বিনিয়োগে মন্দা অবস্থা, প্রবাসী আয় কমে যাওয়া এবং রপ্তানির প্রবৃদ্ধির নিম্নগতির কারণে এবার জিডিপিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে মনে করছে বিশ্বব্যাংক।

সাম্প্রতিক সময়ে দেশে বন্যা এ চালের দাম বেড়ে যাওয়ায় মূল্যস্ফীতি ৬ শতাংশের উপরে উঠারও আশংকা বিশ্বব্যাংকের।

ইউটিউবে দেশ টেলিভিশনের জনপ্রিয় সব নাটক ও অনুষ্ঠান দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Desh TV YouTube Channel

এছাড়াও রয়েছে

শুক্র ও শনিবার ব্যাংক খোলা

আরও বাড়ল স্বর্ণের দাম

পণ্য মূল্য স্থিতিশীল রাখতে ব্যবসায়ীদের আহবান বাণিজ্যমন্ত্রীর

সংসদে শীর্ষ ৩০০ ঋণ খেলাপির তালিকা প্রকাশ

সংসদে ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের সম্পূরক বাজেট পাস

বাড়ার চার দিন পরই কমলো স্বর্ণের দর

সোনার দাম বেড়েছে

বাজেটে উচ্চবিত্তদের সুবিধা বাড়ানো হয়েছে : সিপিডি

সর্বশেষ খবর

কাশ্মীর সীমান্তে পাকিস্তানি সেনাদের গুলিতে ভারতীয় সেনা নিহত

২২ আগস্ট গ্রুপ চ্যাট বন্ধ করে দিচ্ছে ফেসবুক

ফিরতি হজ ফ্লাইট শুরু আজ

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জয়শঙ্কর আসছেন মঙ্গলবার