আদালত

বুধবার, ২৮ নভেম্বর, ২০১৮ (১৮:১১)

বিএনপি নেতার ডা. জাহিদের সাজা স্থগিতে সাড়া মেলেনি আপিলে

হাইকোর্ট

দুর্নীতির অভিযোগে প্রাপ্ত দণ্ড (কনভিকশন অ্যান্ড সেনটেন্স) স্থগিতে হাইকোর্টের খারিজাদেশের বিরুদ্ধে বিএনপি নেতা ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেনের আবেদনে নো অর্ডার' আদেশ এসছে আপিল বিভাগ থেকে।

বুধবার প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে আপিল বিভাগের বেঞ্চ সাজা ও দণ্ড স্থগিত চেয়ে জাহিদ হোসেনের করা এ আবেদনের ওপর এ আদেশ দিয়েছে।

আদালতে আবেদনের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার রোকন উদ্দিন মাহমুদ ও খায়রুল আলম চৌধুরী। দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান ও রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

পরে দুদক আইনজীবী খুরশীদ আলম খান বলেন, আজকের আদেশের ফলে হাইকোর্টের আদেশ বহাল ফলে সংবিধানের ৬৬ (২) (ঘ) অনুচ্ছেদ অনুসারে দুই বছরের বেশি দণ্ডিতরা নির্বাচনে অংশ নিতে পারছেন না।

এর আগে মঙ্গলবার বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কে এম হাফিজুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চ জাহিদ হোসেনসহ বিএনপির ৫ নেতার আবেদন খারিজ করে দেন।

তারা হলেন: আমান উলাহ আমান, ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, ওয়াদুদ ভূঁইয়া, মো. মশিউর রহমান ও মো. আব্দুল ওহাব।

আদেশে আদালত জানায়, সংবিধানের ৬৬ (২) (ঘ) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী কারও দুই বছরের বেশি সাজা বা দণ্ড হলে সেই দণ্ড বা সাজার বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল বিচারাধীন থাকা অবস্থায় তিনি নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না।

আজ- বুধবার এ আদেশের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদন করেন ডা.জাহিদ।

জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন, তথ্য গোপন ও দুর্নীতির মাধ্যমে ৬ কোটি ৩৬ লাখ ২৯ হাজার ৩৫৪ টাকার সম্পদ অর্জন করায় ওয়াদুদ ভুঁইয়াকে চট্টগ্রাম বিভাগীয় স্পেশাল জজ মোট ২০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানার রায় দেন। তিনি এ বিষয়ে আপিল করে ২০০৯ সালের ২৮ এপ্রিল ২০০৯ সালে জামিন লাভ করেন।

এছাড়া জ্ঞাত আয় বহির্ভূত ৯৩ লাখ ৩৬৯ টাকার সম্পদ অর্জন ও তথ্য গোপন করে মো. আবদুল ওহাবকে যশোর স্পেশাল জজ গত বছরের ৩০ অক্টোবর ৮ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ত্রিশ হাজার টাকার জরিমানা করে। তিনি এ বিষয়ে আপিল করেন ৬ ডিসেম্বর জামিন পান।

জ্ঞাত আয় বহির্ভূত প্রায় ১০ কোটি ৫ লাখ ৬৯ হাজার তিনশ টাকার অবৈধভাবে অর্জনের অভিযোগে ২০০৮ সালের ১৪ ডিসেম্বর দুর্নীতি দমন কমিশনের সমন্বিত জেলা কার্যালয় কুষ্টিয়ার তৎকালীন সহকারী পরিচালক মোশরাফ হোসেন মৃধা মামলা করেন।

এ মামলায় ২০১৭ সালের ২৫ অক্টোবর ঝিনাইদহ-২ (সদর ও হরিণাকুন্ডু) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মশিউর রহমানকে পৃথক ধারায় ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেয় আদালত।

একই সঙ্গে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা ও ১০ কোটি ৫ লাখ ৬৯ হাজার ৩৩০ টাকার সম্পদ বাজেয়াপ্তের নির্দেশ দেয় আদালত। পরবর্তীতে তিনি আপিল করে হাইকোর্ট থেকে জামিন নেন।

২০০৮ সালের ২৫ মে দুর্নীতির মামলায় ডা. জাহিদ হোসেনকে মোট ১৩ বছরের দণ্ড দেয় বিচারিক আদালত। এর বিরুদ্ধে আপিল করে হাইকোর্ট থেকে পরে তিনি জামিন নেন।

আমান উল্লাহ আমানকে দুর্নীতির মামলায় ২০০৭ সালের ২১ জুন বিচারিক আদালত ১৩ বছরের সাজ দেন। পরে তিনি আপিল করে হাইকোর্ট থেকে জামিন পান।

এসব আপিল বিচারাধীন থাকাবস্থায় সম্প্রতি এ ৫ নেতা দণ্ড স্থগিত চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেছিলেন।

ইউটিউবে দেশ টেলিভিশনের জনপ্রিয় সব নাটক ও অনুষ্ঠান দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Desh TV YouTube Channel

এছাড়াও রয়েছে

জামিন পেলেন ড. ইউনূস

হাতিরঝিলে বিজিএমইএ ভবন ভাঙা শুরু বুধবার

চট্টগ্রামে ৩২ বছর পর শেখ হাসিনাকে হত্যা চেষ্টা মামলার রায়: ৫ আসামির মৃত্যুদন্ড

সিপিবির সমাবেশে বোমা হামলা : ১০ জঙ্গির মৃত্যুদণ্ড

যুদ্ধাপরাধী কায়সারের মৃত্যুদণ্ড আপিল বিভাগে বহাল

একই সড়কে বারবার খোঁড়াখুঁড়ির পেছনে অর্থনৈতিক স্বার্থ রয়েছে কি: হাইকোর্ট

এক বছরের মধ্যে নিষিদ্ধ করতে হবে ওয়ান টাইম প্লাস্টিক পণ্য: হাইকোর্ট

এস কে সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

সর্বশেষ খবর

চীন থেকে বাংলাদেশিদের ফিরিয়ে আনার নির্দেশনা প্রধানমন্ত্রীর

পরকীয়া সন্দেহে স্ত্রীকে কুপিয়ে মারল স্বামী

শাহ এএমএস কিবরিয়ার ১৫ তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

সেই ধর্ষক ৪ বন্ধু কারাগারে