বিশেষ প্রতিবেদন

বৃহস্পতিবার, ১৬ নভেম্বর, ২০১৭ (১৮:০৭)

ঠাকুরপাড়ায় হিন্দু বাড়িগুলোতে হামলায় নেতৃত্ব দেয় জামাত-বিএনপি-জাপা

ঠাকুরপাড়ায় হিন্দু বাড়িগুলোতে হামলায় নেতৃত্ব দেয় জামাত-বিএনপি-জাপা

জামাত-বিএনপি ও জাতীয় পার্টি এ তিন দলের মাঠপর্যায়ের নেতারাই রংপুরের ঠাকুরপাড়ায় হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর হামলায় নেতৃত্ব দিয়েছেন। ভিডিও ফুটেজ আর প্রত্যক্ষদর্শীদের বর্ণনায় হামলায় এ তিন দলের চার নেতার সংশ্লিষ্টতা সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া গেছে। জ্বালাও পোড়াও মামলার এজাহারেও তাদের নাম এসেছে। তাদের মধ্যে জাতীয় পার্টি সমর্থক ফাজলার রহমান রংপুর জেলা পরিষদের উপ-সহকারি প্রকৌশলী।

রংপুরের পাগলাপীরের এ জায়গাটি ঠাকুরপাড়াকে যুক্ত করেছে মমিনপুরের সঙ্গে। শুক্রবার হামলার আগ মুহূর্তে এখানে হাজার মানুষের স্রোতে ভেঙে পড়ে পুলিশের ব্যারিকেড।

হাজার হাজার মানুষের এই মিছিলই বলে দেয় কতোটা সংগঠিত ছিলো হামলাকারীরা। সেখানকার চার ঘণ্টার ফুটেজ বিশ্লেষণ করে এলাকার পরিচিত জামাত কর্মীদের সনাক্ত করেছেন স্থানীয়রা।

ঠাকুরপাড়ায় হামলার ঠিক আগ মুহূর্তে জঙ্গি মিছিলে ওলামা দলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা এনামুল হক মাজেদীকেও দেখা গেছে।

অথচ তিনি পুলিশকে কথা দিয়েছিলেন, শান্তিপূর্ণ মানববন্ধন শেষে সবাই ঘরে ফিরে যাবে।

তার কিছুটা পেছনে ছিলেন ফাজলার রহমান যিনি রংপুর জেলা পরিষদের উপ-সহকারি প্রকৌশলী তার স্ত্রী মমিনপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান। জাতীয় পার্টি থেকে নির্বাচিত।

গ্রামবাসী বলছে, ফাজলার রহমানের মমিনপুরের বাড়ি, পেট্রোল পাম্প ও ইট ভাটায় তিনদিন আগে থেকেই বাইরের লোকজন এসে অবস্থান নিয়েছিল। শুক্রবার তারা দলে দলে যাত্রা করে শলেয়াশাহ বাজার হিন্দু পাড়ার দিকে।

ঘটনার পর থেকে ফাজলার রহমান অফিসে অনুপস্থিত।

বৃহস্পতিবার সকালে তিনি অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে ছুটির দরখাস্ত পাঠিয়েছেন। গঙ্গাচড়া, সদর থানার দুটি মামলাতেই আসামি ফজলার রহমান।

হামলার পরেই, খলেয়া ইউনিয়ন জামাতের আমির মাওলানা সিরাজুল ইসলাম গ্রেপ্তার হন বাকি তিন জন পলাতক রয়েছে।

জানা গেছে, হামলার মাস্টারমাইন্ডদের মূল লক্ষ্য ছিলো, সাম্প্রদায়িক হামলা চালিয়ে সারাদেশে আলোড়ন সৃষ্টি করা। প্রথম সুযোগেই ঘরে ঘরে আগুন ধরিয়ে দেয়ার নির্দেশনা ছিলো।

আজ – সচিবালয়ে রংপুরে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বাড়িঘরে হামলা ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় গভীর ষড়যন্ত্রের আভাস পাওয়া যাচ্ছে বলে জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

এর আগে

মঙ্গলবার এ ঘটনায় ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়ার জন্য টিটু রায় নামে একজনকে নীলফামারী থেকে আটক করা হয়েছে জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, এ সহিংসতার পিছনে কারা জড়িত তাদের খুঁজে বের করা হচ্ছে।

এই ক্যাটাগরীর আরও খবর

নেত্রীর রায় ঘোষণার পর বদলে গেছে বিএনপির হিসাব নিকাশ

আপিল নিষ্পত্তি না পর্যন্ত নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন খালেদা জিয়া

খালেদার রায়ে কোনো রাজনৈতিক প্রভাব নেই: ব্যারিস্টার সফিক

খালেদা জিয়া নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন, মতামত আইনজ্ঞদের

বেড়েছে শিশুদের ওপর হত্যা-ধর্ষণের ঘটনা

আগামী নির্বাচনে জনগণের ভোটাধিকার নিশ্চিত হয়, মতামত বিশিষ্টজনদের

সাফল্য-ব্যর্থতা, সংকট-সুরাহায় নানা উদ্যোগের মধ্যদিয়েই শেষ হলো ২০১৭

সহিংসতামুক্ত বাংলাদেশ দেখতে চান দেশের বিশিষ্টজনেরা

রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে সেনাবাহিনীর হামলা আগে থেকে পরিকল্পিত: অ্যামনেস্টি

অল্প করুক আর বেশিই করুক খালেদা দুর্নীতি করেছে: মেনন

সুরকার-সংগীত পরিচালক আলী আকবর রুপু না ফেরার দেশে

সমাবেশর অনুমতি নেই, তাই নমনীয় কর্মসূচি বিএনপির