বিশেষ প্রতিবেদন

শুক্রবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৬ (১৪:০৮)

সাম্প্রদায়িক হামলা বন্ধে মানসিকতার পরিবর্তন আনতে হবে

সাম্প্রদায়িক-হামলা-বন্ধে-মানসিকতার-পরিবর্তন-আনতে-হবে

ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের হত্যা, নির্যাতনের ঘটনাগুলোর সুষ্ঠু বিচার না হওয়ার কারণেই এসব ঘটনা বন্ধ হচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছেন হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নেতারা। তারা বলেন, প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে যেভাবে সরব হতে দেখা যায় অনেককে তার উল্টো দেখা যায় সাম্প

ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের হত্যা, নির্যাতনের ঘটনাগুলোর সুষ্ঠু বিচার না হওয়ার কারণেই এসব ঘটনা বন্ধ হচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছেন হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নেতারা।

তারা বলেন, প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে যেভাবে সরব হতে দেখা যায় অনেককে তার উল্টো দেখা যায় সাম্প্রদায়িক নির্যাতনের ক্ষেত্রে। এটি একটি গা সওয়া ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে।

এজন্য সংখ্যালঘু নিরাপত্তা আইনসহ বেশ কিছু দাবির কথা তুলে ধরেন তারা। তবে শুধু আইন করে এই সমস্যা সমাধান সম্ভব নয় প্রয়োজন মানসিকতার পরিবর্তনের- অভিমত আইনজ্ঞদের।

গত ২০১১ সাল থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত রামুর বৌদ্ধ বিহার, পাবনার সাঁথিয়া, সাতক্ষীরা, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরসহ অনেক জায়গায় ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে।

পুলিশ সদরদপ্তরের তথ্যনুযায়ী, গতছয় বছরে সারাদেশে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতনের ঘটনায় মামলা হয়েছে ২৭৩টি। এর মধ্যে বিচার হয়েছে মাত্র ১টির। তদন্তাধীন রয়েছে ৩৯টি মামলা। আর প্রমাণ মেলেনি আরো ৯৩টি ঘটনার। পরিসংখ্যান ব্যুরোর তথ্যনুযায়ী গত ১৯৭০ সালে বাংলাদেশে মোট জনসংখ্যার ২০ শতাংশ মানুষ ছিল ধর্মীয় সংখ্যালঘু আর ২০১১ সালে তাদেরই এক জরিপে দেখা যায় এর সংখ্যা কমে এসে দাঁড়িয়েছে ৯ শতাংশে।

ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের হত্যা ও হামলার ঘটনা রাজনৈতিক ও ব্যক্তিগত বলে মনে করেন হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজল দেবনাথ।

তিনি বলেন, জঙ্গিবাদ রোধসহ অন্যান্য ঘটনার পর যেমন তরিৎ ব্যবস্থা নেয়া হয় এক্ষেত্রে দেখা যায় গা ছাড়া ভাব সময় এসেছে দ্রুত এ বিষয়ে নিজেদের অবস্থান পরিস্কার করার।

ভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের হত্যা, নির্যাতন ও বিতাড়িত করে যদি মনে করা হয় দেশের উন্নয়ন সম্ভব তবে তা ভুল হবে-বলছেন সংগঠনের নেতারা।

সাম্প্রদায়িক হামলা-নির্যাতন বন্ধে বিশেষ আইন করার পাশাপাশি ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের সমস্যা নিয়ে আলোচনার জন্য সকল ক্ষেত্রে সুযোগে তৈরির দাবি করেন হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রানা দাশগুপ্ত।

তবে, সাম্প্রদায়িক হামলা বন্ধে যতই পদক্ষেপ নেয়া হোক না কেন মানসিকতার পরিবর্তন না হলে কিছুই কাজে আসবে না বলে মন্তব্য করেছেন সুপ্রিম কোর্টের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী জেড আই খান পান্না।

এই ক্যাটাগরীর আরও খবর

এরশাদের পতনে পর্দার আড়ালে যা ঘটেছিল

বিদেশে বৈধভাবে বিনিয়োগের সুযোগ দিলে অর্থপাচার কমবে, আশা হাফিজুরের

ঠাকুরপাড়ায় হিন্দু বাড়িগুলোতে হামলায় নেতৃত্ব দেয় জামাত-বিএনপি-জাপা

চলছে রাজনৈতিক দরকষাকষি, নির্বাচন করতে পারবে না জামাত

আরও খবর

উ. কোরিয়ার সঙ্গে বসতে চায় যুক্তরাষ্ট্র: রেক্স টিলারসন

সারাজীবন আকায়েদকে কারাগারেই কাটাতে হবে

বিএনপি না আসলে নির্বাচন বন্ধ থাকবে না: কাদের

ইউপিডিএফের ছয় কর্মী আটক

গোদাগারীতে দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে ৩ জনের মৃত্যু, আহত ১৮

অভিবাসন ব্যয় কমিয়ে বিদেশে কর্মী পাঠানো সরকারের বড় চ্যালেঞ্জ

বিনয়-শ্রদ্ধায় জাতির স্মরণে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস

নেতাকর্মীদের দৃঢ় ঐক্য গড়ে তোলার আহ্বান শেখ হাসিনার

জয়ের মন্তব্যে নির্বাচন ভণ্ডুলের নীল নকশার আভাস: রিজভী

থার্টিফাস্ট: গুলশান-বনানী-ঢাবি এলাকায় রাতে বহিরাগতদের চলাচল বন্ধ