অনুষ্ঠান

বেলা অবেলা সারাবেলা

বেলা অবেলা সারাবেলা

  অনুষ্ঠান

  প্রতি শনিবার রাত ৯.৪৫

‘বেলা অবেলা সারাবেলা’ অনুষ্ঠানে বীর প্রতিক ক্যাপ্টেন আলমগীর সাত্তার, দেশ টিভিতে প্রচারিত হবে আজ রাত ৯টা ৪৫ মিনিটে।

লেখক, বৈমানিক ও মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন আলমগীর সাত্তার ১৯৩৯ সালের ২৭ জুলাই, বরিশাল জেলার স্বরূপকাঠির মামা বাড়িতে জন্মগ্রহন করেন। তাঁর পৈত্রিক বাড়ি মাদারীপুর। বাবা কাজী আবদুর রউফ। মা নূরজাহান বেগম। তিনি মাত্র ১০ বছর বয়সে বাবাকে হারান। এরপর মামার কাছেই তাঁর বড় হয়ে ওঠা। অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত বরিশালের শুটিয়াকাঠি হাই স্কুলে পড়ালেখা করেন তিনি। এরপর বড় মামার সাথে চলে আসেন খুলনা। ১৯৫৭ সালে খুলনার সেন্ট যোশেফ’স স্কুল থেকে ম্যাট্রিক পাশ করে ভর্তি হন ব্রজলাল কলেজে। ১৯৫৯ সালে সেখান থেকে ইন্টারমিডিয়েট পাশ করার পর ঢাকা চলে আসেন এবং সরকারী তোলারাম কলেজ থেকে বিএ পাশ করেন। তার কর্মজীবন শুরু হয় তৎকালীন মুসলিম কমার্সিয়াল ব্যাংক এর চাকরি দিয়ে। এরপর ১৯৬৫ সালে বৈমানিক হিসেবে পিআইএ তে যোগ দেন। শুরু হয় তার বৈমানিক জীবন।

১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধুর আহবানে ঝাঁপিয়ে পড়েন মুক্তিযুদ্ধে। ২৮ সেপ্টেম্বর দিমাপুরে বাংলাদেশ বিমান বাহিনী গঠিত হলে তিনি তার একজন সদস্য হিসেবে যুদ্ধের প্রস্তুতি ও প্রশিক্ষণ নিতে শুরু করেন। যুদ্ধে তাঁর বীরত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে বীর প্রতিক খেতাব দেওয়া হয় তাঁকে।

লেখক হিসেবেও সুনাম রয়েছে তাঁর। বাস্তব জীবনের অভিজ্ঞতার আলোকেই তিনি লিখতে পছন্দ করেন। প্রবন্ধ, স্মৃতিকথা, উপন্যাস এবং রম্য রচনা সবমিলিয়ে প্রায় ১০টি বই আছে আলমগীর সাত্তার এর। তাঁর ‘বেলুন থেকে বিমান’ বইটি পাঠক আদৃত হয়েছে সবথেকে বেশী।

ব্যক্তিগত জীবনে তিনি ১৯৬৫ সালে তাহমিনা সাত্তারকে বিয়ে করেন। তাদের দুই ছেলে ও এক মেয়ে। তারা সবাই প্রবাসী। প্রথম স্ত্রীর মৃত্যুর পর ১৯৯৩ সালে তিনি বিয়ে করেন সাঈদা সাত্তারকে। তারা এক মেয়েকে দত্তক নিয়েছেন তার নাম পৃথিয়া। বর্তমানে বৈমানিক জীবন থেকে অবসর নিয়ে পরিবারের সাথেই সময় কাটাতে ভালোবাসেন তিনি।

দেশ টিভির ‘বেলা অবেলা সারাবেলা’ অনুষ্ঠানে এবারের অতিথি হয়ে এসেছেন বীর প্রতিক ক্যাপ্টেন আলমগীর সাত্তার। উপস্থাপক থাকছেন আসাদুজ্জামান নূর।

দেশের বিভিন্ন অঙ্গনের বরেণ্য, প্রাজ্ঞ এবং বয়সী নাগরিকদের বর্তমান জীবন এবং অতীত কর্মকান্ডের কথোপকথন নিয়ে এ অনুষ্ঠান। দেশের যারা সারা জীবন ধরে শিল্প-সাহিত্য, সংস্কৃতি, মননশীলতার চর্চা করে নিজেকে উন্নীত করেছেন এক ঈর্ষনীয় অবস্থানে, সারা জীবনের চর্চায় তিনি তৈরি করেছেন স্বকীয় এক পরিমন্ডল, যা থেকে উত্তরকালের নাগরিকগন পেতে পারেন উদ্দীপনা, অনুপ্রেরণা। অতিথি তাঁর যাপিত জীবনের বিভিন্ন কথা তুলে ধরবেন এ অনুষ্ঠানে।

এছাড়াও থাকবে অতিথির বিগত দিনের সব কাজ, বর্তমান অবসরের ফুটেজ, তারকার কাছের মানুষদের মন্তব্য। অনুষ্ঠানটি শনিবার রাত ৯টা ৪৫ মিনিটে প্রচারিত হবে দেশ টিভিতে।