রাজনীতি

ksrm

রবিবার, ২২ জুলাই, ২০১৮ (১৫:৩৯)

খালেদা জিয়ার হাঁটাচলা করতে কষ্ট হয়

খালেদা জিয়া

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এখনো ‘গুরুতর’ অসুস্থ— তিনি দর্শনার্থীদের সঙ্গে নিচে নেমে কথা বলেন। কিন্তু এখন তিনি অসুস্থতার কারণে দোতলা থেকে নিচে নামতেই পারছেন না— এখনো তিনি স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে রয়েছেন। তার হাঁটাচলা করতে কষ্ট হয়।

রোববার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

রিজভী বলেন, গতকাল খালেদা জিয়ার আইনজীবী ও পরিবারের সদস্যরা কারাগারে তার সঙ্গে দেখা করেন।

খালেদা জিয়ার ওপর সরকারপ্রধানের ‘প্রতিহিংসা’ এক অশুভ অপশাসনের বার্তা দেয়। দলের পক্ষ থেকে সরকারের নির্দয় আচরণের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তাকে চিকিৎসার জন্য ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তির যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের আহ্বান জানান রিজভী।

সংবাদ সম্মেলনে তিন সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে কথা বলেন রিজভী।

এ সময় তিনি অভিযোগ করেন, তিন সিটিতে বিএনপির নেতা-কর্মীদের রাত-দিন গণগ্রেপ্তার শুরু করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। নির্বাচনে নৌকা মার্কার প্রার্থীরা ‘জনসমর্থনহীন’। আর এসব প্রার্থীকে জেতাতে তৎপর হয়ে উঠেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, স্থানীয় প্রশাসন ও নির্বাচন কমিশনের কর্মকর্তারা।

তিনি বলেন, নির্বাচনের দিন যতই এগিয়ে আসছে, ধানের শীষের আবেদন আরও বৃদ্ধি পাচ্ছে। খুলনা ও গাজীপুরের স্টাইল—গণতন্ত্র ও সুষ্ঠু নির্বাচনকে ক্রমাগত হত্যা করার স্টাইল। সেই স্টাইল ৩০ জুলাই তিনটি সিটি করপোরেশন নির্বাচনে এখনো বলবৎ রয়েছে। ক্ষমতাসীন দল বেআইনিভাবে জয়ী হতে চাইছে বলেই বেপরোয়া গ্রেপ্তার, গণগ্রেপ্তারসহ এক আতঙ্কজনক পরিস্থিতির সৃষ্টি করা হয়েছে।

সরকারদলীয় প্রার্থীরা প্রতিনিয়ত নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গ করছে—এ অভিযোগ করে রিজভী বলেন, তারা কোটি কোটি টাকা খরচ করছে। বিএনপির নেতাকর্মীদের ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণায় বাধা প্রদান করা হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রীকে দেয়া সংবর্ধনায় নিয়ে রিজভী বলেন, তাকে দেয়া এ সংবর্ধনায় মানুষের মনে ঘৃণার জন্ম হয়েছে।

জভী আওয়ামী লীগ নেতাদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা গোয়েন্দা সংস্থার মাধ্যমে রিপোর্ট নিয়ে দেখুন, জীবন যন্ত্রণা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী যে গণসংবর্ধনা নিয়েছেন তাতে মানুষের মধ্যে কী প্রতিফলন হয়েছে।

দেশে অনেক উন্নয়ন হয়েছে –প্রধানমন্ত্রীর এই বক্তব্যের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, আমরা উন্নয়ন দেখছি, বিশুদ্ধ সোনা কিভাবে ধাতুতে পরিণত হয়, এটা যদি প্রধানমন্ত্রী বলতেন তাহলে আমরা খুব খুশী হতাম। রিজার্ভ ব্যাংকের ৮০০ কোটি টাকা হাওয়ায় মিলিয়ে যায় এগুলো নিয়ে সংবর্ধনায় তিনি (প্রধানমন্ত্রী) কিছু বলেননি। শুধু অনর্গল মিথ্যা কথা, যেটা একেবারেই আওয়ামী লীগ সরকারের স্বভাবধর্ম তিনি সেটাই বলেছেন। এখানে নতুন কিছু দেখিনি।

রিজভী বলেনে, বড় পুকুরিয়ায় ১ লাখ ৪২ হাজার টন কয়লা উধাও। এই যে গায়েব, চারিদিকে যত গায়েবের উন্নয়ন, তা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী কিছু বলেননি।

তিনি বলেন, দুর্নীতিকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ একমাত্র প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারই করেছে। এটার জন্য উনার (শেখ হাসিনা) একটা গণসংবর্ধনা প্রয়োজন। সেটা এখনও কেন তারা দিল না। এটাও হয়তো তিনি পাবেন কিছুদিনের মধ্যেই।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন-বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবুল খায়ের ভূঁইয়া, প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুল ইসলাম হাবিব, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, নির্বাহী সদস্য অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।

 

ইউটিউবে দেশ টেলিভিশনের জনপ্রিয় সব নাটক ও অনুষ্ঠান দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Desh TV YouTube Channel

এছাড়াও রয়েছে

ইসি কমিশনার মাহবুবের পদত্যাগ দাবি নাসিমের

জোট থেকে কেউ বেরিয়ে গেলে প্রভাব পড়বে না: রিজভী

জাতীয় ঐক্য ফ্রন্ট কোনো দলীয় ফ্রন্ট নয়: ব্যারিস্টার মঈনুল

ভেঙে গেল ২০ দলীয় জোট

নির্বাচন বানচালে সরকারের নেয়া প্রকল্প ভেস্তে গেছে: বিএনপি

মান্না-মাহীর ফোনালাপ ফাঁস

শনিবার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জাপার মহাসমাবেশ

তারেক রহমানের পদত্যাগের প্রশ্নই আসে না: মির্জা ফখরুল

আইয়ুব বাচ্চু আর নেই

শক্তিশালী প্রসেসরসহ এসেছে Nokia X7 Plus

ইরানে সামরিক কুচকাওয়াজে হামলার মূলহোতাকে হত্যার দাবি

খাশোগিকে হত্যায় নেয়া হয় সাত মিনিট