রাজনীতি

মঙ্গলবার, ২০ মার্চ, ২০১৮ (১৩:৪৭)

খালেদার মামলা পরিচালনায় ব্রিটিশ আইনজীবী নিয়োগ

খালেদা জিয়া

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলাসহ সব মামলায় পরিচালনায় ব্রিটিশ আইনজীবী লর্ড কার্লাইলকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

তিনি দেশি আইনজীবীদের সহায়তা করবেন বলে জানিয়েছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে থাকা বিভিন্ন মামলায় আইনি লড়াইয়ে এখানকার যে আইনজীবী প্যানেল রয়েছেন তাদের সহযোগিতা করার জন্য লর্ড কার্লাইলকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

লর্ড কার্লাইল একজন প্রখ্যাত ব্যারিস্টার--এ কথা উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, তিনি আমাদের প্রস্তাব গ্রহণ করেছেন-- এখন থেকে তিনি সহযোগিতা এবং পরামর্শ দেবেন।

বিএনপি চেয়ারপারসনের আইনজীবীরা কি মামলা পরিচালনায় পর্যাপ্ত নন—সাংবাদিকের এ প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, এটা ঠিক নয়— এটাকে আরও সমৃদ্ধ করার জন্য, আন্তর্জাতিক অঙ্গনে তুলে ধরার জন্য তাকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

এ সময় সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি নেতা আবুল খায়ের ভূঁইয়া, আবদুস সালাম, আতাউর রহমান ঢালী, রুহুল কবির রিজভী, আবদুস সালাম আজাদ, আমিনুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় কারাদণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেয়া জামিন ৮ মে পর্যন্ত স্থগিত করেছে আপিল বিভাগ।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক ড. মো. আখতারুজ্জামান সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন। ওইদিনই তাকে কারাগারে নেয়া হয়। এ মামলায় খালেদা জিয়ার বড় ছেলে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ পাঁচ আসামিকে ১০ বছর করে কারাদণ্ড দেয়া হয়। এ ছাড়া রায়ে আসামিদের দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৩ টাকা ৮০ পয়সা জরিমানাও করা হয়।

পরে নিম্ন আদালতের এই রায়ের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়া হাইকোর্টে আবেদন করলে হাইকোর্ট গত ২২ ফেব্রুয়ারি আবেদনটি শুনানির জন্য গ্রহণ করে এবং জরিমানা স্থগিত করেছে।

এরপর খালেদা জিয়ার পক্ষ থেকে জামিন আবেদন করা হলে গত ২৫ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্ট বিচারিক আদালতের মামলার যাবতীয় নথি তলব করেন। আদেশে ১৫ দিনের মধ্যে হাইকোর্টে নথি পাঠাতে বলা হয়। সে অনুযায়ী গত ১১ মার্চ দুপুরে ঢাকার পঞ্চম বিশেষ আদালত থেকে মামলার নথি হাইকোর্টে পাঠানো হয়।

১২ মার্চ হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ খালেদা জিয়াকে চার মাসের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দেয়। দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ও রাষ্ট্রপক্ষ ওই জামিন স্থগিত চেয়ে পরদিন আপিল বিভাগের চেম্বার আদালতে যায়। বিচারক কোনো আদেশ না দিয়ে আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠিয়ে দেয়। ১৪ মার্চ প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বিভাগ রোববার পর্যন্ত হাইকোর্টের জামিন স্থগিত করে। একই সঙ্গে দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষকে আপিলের অনুমতি লিভ টু আপিলের নির্দেশ দেয়। তারই ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষ থেকে সুপ্রিম কোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় পৃথকভাবে লিভ টু আপিল দাখিল করা হয়।

উল্লেখ, ২০০৮ সালে বিএনপি চেয়ারপারসনসহ কয়েকজনকে আসামি করে দুদক জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলা করে।

এছাড়াও রয়েছে

খালেদার মুক্তির দাবিতে ৮ দিনের কর্মসূচি ঘোষণা বিএনপির

ক্রমেই অবনতির দিকে যাচ্ছে খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য, অভিযোগ ফখরুলের

গণঅভ্যুত্থানের কোনো পরিস্থিতি বর্তমানে নেই: ওবায়দুল

সরকার খালেদা জিয়ার জামিন নিয়ে কালক্ষেপণ করছে: রিজভী

গণঅভ্যুত্থান ছাড়া গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার সম্ভব নয়: মির্জা ফখরুল

রাজনৈতিক স্বার্থেই তারককের বিচারের কথা বলছেন প্রধানমন্ত্রী

বিএনপির সেনা মোতায়েনের দাবি অযৌক্তিক: ওবায়দুল

ধর্মের দোহাই দিয়ে দেশকে বিভক্তি করতে চাইছে বিএনপি-জামাত

মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিবেদন পক্ষপাতমূলক: ইনু

তারেককে ফেরাতে আলোচনা চলছে: আইনমন্ত্রী

এ মাসের শেষের দিকে কালবৈশাখী ঝড়- বৃষ্টি বাড়তে পারে

ভূগোলের কালকের প্রশ্ন আজ কেন্দ্রে-পরীক্ষা স্থগিত- ১৪ মে ২য়পত্র