রাজনীতি

শনিবার, ০৭ জানুয়ারী, ২০১৭ (১৫:৪৫)

রোববার বিএনপির বিক্ষোভ

রোববার বিএনপির বিক্ষোভ

সমাবেশ করার অনুমতি না পেয়ে সারাদেশে জেলা ও মহানগর সদর এবং রাজধানীর থানায় থানায় বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি।

শনিবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

এ সময় তিনি বলেন, রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি না পেয়ে রোববার সুবিধামতো সময় ও স্থানে এই বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করা হবে।

কর্মসূচি ঘোষণার আগে লিখিত বক্তব্যে রিজভী বলেন, ৫ জানুয়ারি ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ উপলক্ষ্যে আজ ৭ জানুয়ারি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করতে চেয়েছিল বিএনপি। অনুমতি না পেয়ে এ কর্মসূচি ঘোষণা করা হলো।

পুলিশের অনুমতি না পাওয়ায় শেষ পর্যন্ত ঢাকার সমাবেশ কর্মসূচি পালন করতে পারেনি বিএনপি। যদিও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের পরিবর্তে নয়াপল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশের অনুমতি চেয়েছিল দলটি। এর প্রতিবাদে আগামীকাল সারাদেশে বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে বিএনপির পক্ষ থেকে। দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে মোতায়েন আছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। বিএনপির অভিযোগ, তাদের কেন্দ্রীয় কার্যালয় অবরুদ্ধ করে রেখেছে পুলিশ।

নানা বাধা-বিঘ্নের মধ্যেই পাঁচ জানুয়ারি দেশব্যাপী কালোপতাকা মিছিল কর্মসূচি পালন করে বিএনপি। আর ঢাকায় ৭ তারিখ শনিবার সমাবেশ করতে চেয়েছিল দলটি। এ নিয়ে অনেক আগেই আবেদন করে, পুলিশের কাছে কয়েকবার ধর্ণাও দিয়েও শেষ পর্যন্ত মেলেনি অনুমতি। যদিও কাঙ্খিত ভেন্যু সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুমতি মিলবে না এমন আশঙ্কা থেকে নয়াপল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করতে দিতে সরকারের প্রতি আহ্বানও জানিয়েছিল বিএনপি।

বিএনপিকে কেন সমাবেশের অনুমতি দেয়া হয়নি সে বিষয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে কোনো ব্যাখ্যা-বিবৃতি পাওয়া না গেলেও শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় নয়াপল্টনে দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এবং আশপাশের এলাকায় দেখা যায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সতর্ক অবস্থান।

তবে, নেতা-কর্মীদের আনাগোনা খুব একটা দেখা যায়নি সেখানে।

কী কারণে এ নজরদারি.? জানতে চাইলে পুলিশ জানায় বিএনপির দু'গ্রুপ সংঘর্ষে জড়াতে পারে এমন তথ্যের ভিত্তিতেই তাদের এ সতর্কতা।

এ অবস্থার মধ্যে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের ভেতরে থাকা দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করেন, সমাবেশের অনুমতি না দিয়ে সরকার স্বেচ্ছাচারি মনোভাবের পরিচয় দিয়েছে।

পাঁচ জানুয়ারি দেশের বিভিন্ন জায়গায় কালো পতাকা মিছিলে বাধা এবং ঢাকায় ৭ তারিখের সমাবেশ করতে না দেয়ার প্রতিবাদে সারাদেশে জেলা পর্যায়ে এবং ঢাকা মহানগরে থানায় থানায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ কর্মসূচি ঘোষণা করেন তিনি।

এছাড়া, অনুমতি না দেয়ার পাশাপাশি সমাবেশ বানচাল করতে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে পুলিশ মোতায়েন করেছে এবং বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে বলেও অভিযোগ রিজভীর।

পুলিশ বেশ কয়েকজন নেতা-কর্মীকে আটক করেছে বলেও দাবি করেন তিনি।

তিনি বলেন, এ কর্মসূচিতে মিছিল অথবা সমাবেশ করা হবে, স্থানীয় বিএনপি নেতাকর্মীরা তাদের সুবিধা মতো বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল করতে পারবেন।

 

ইউটিউবে দেশ টেলিভিশনের জনপ্রিয় সব নাটক ও অনুষ্ঠান দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Desh TV YouTube Channel

এছাড়াও রয়েছে

আ.লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের উদ্বোধন ২৩ জুন

ক্ষমতাসীনরা চায় বিএনপি নির্বাচনে না আসুক: ফখরুল

বিএনপি বরাবরই মিথ্যাচারের রাজনীতি করে: ইমাম

কাদেরের নির্দেশেই অবরুদ্ধ ছিলাম: মওদুদ

মেয়র পদে আ.লীগের মনোনয়ন ফরম বিতরণ শুরু

বিএনপির মেয়র পদে মনোনয়নপত্র বিতরণ শুরু

খালেদাকে বিদেশ পালানোর সুযোগ করে দিতেই অসুস্থতা নিয়ে মিথ্যাচার

চেয়ারপারসনের মুক্তি-সুচিকিৎসার দাবিতে বৃহস্পতিবার সারাদেশে বিক্ষোভ

এমপিওভুক্তির কমিটির সভা রোববার, দাবি পূরণ না পর্যন্ত আন্দোলন

মা হলেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী

চার্জ দেওয়ার সময় স্মার্টফোন বিস্ফোরণে সিইও’র মৃত্যু

ক্ষমতাসীনরা চায় বিএনপি নির্বাচনে না আসুক: ফখরুল