জাতীয়

সোমবার, ২২ অক্টোবর, ২০১৮ (১৭:৫৬)

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে ‘ছালবাকল দিয়ে তৈরি’ জোট: শেখ হাসিনা

শেখ হাসিনা

বিরোধীরা চাইলে নির্বাচানকালীন জোট হবে, না চাইলে না বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার গণভবনে সৌদি সফর নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

ঐক্য জোটকে আওয়ামী লীগ কিভাবে মূল্যায়ন করে—সাংবাদিকদের এ প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে রাজনীতি করার স্বাধীনতা আছে, স্বাধীনতার পর সর্বক্ষেত্রে মানুষ স্বাধীনতা ভোগ করেছে।

নতুন গঠিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্টেকে ‘ছাল-বাকল দিয়ে তৈরি’ জোট বলে আখ্যায়িত করেন প্রধানমন্ত্রী।

তবে এই জোটকে তিনি স্বাগত জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, দেশে রাজনৈতিক স্বাধীনতা আছে। এখানে বিচার বিভাগ স্বাধীন, গণমাধ্যম স্বাধীন। যে কেউ ইচ্ছে করলে রাজনীতি করতে পারে। আমি নতুন জোটকে স্বাগত জানাই।

সব ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে নির্দিষ্ট সময়ে নির্বাচন হবে এ কথা জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, বিদেশিদের কাছে নালিশ করে লাভ হবে না। নির্বাচনে অঙ্গীকারের চেয়ে বেশি অর্জিত হয়েছে বলে জানান তিনি।

রাজনীতিতে যেকোনো জোটকে স্বাগত জানায় আওয়ামী লীগ—সকলে ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে সেটা ভাল, রাজনীতির জন্য ইতিবাচক—তবে জোট কারা গঠন করছে, কারা কি কি বলছে,মেয়েদের প্রতি কটূক্তি করতে পারে সেটা দেখা দরকার বলেন তিনি।

জাতির পিতাকে হত্যার মদদ দাতারা আছে, রাজাকারদের পক্ষে কথা বলছেন তারা সব এক হয়েছে এখন এ জোটকে মানুষকে কিভাবে দেখছে সেটা দেখার বিষয় জানান তিনি।

তারা রাজনৈতিকভাবে কিভাবে জনগণের প্রতি গ্রহণযোগ্য হতে পারে সেটা দেখার বিষয়

এই জোটের অনেকে আওয়ামী লীগে ছিলেন এক সময়,তারা এখন আলাদা তাতে কি। জনগণ যা দেখবেন সেটা বিষয় তবে আওয়ামী লীগ ইতিবাচক ভাবে দেখছে মন্তব্য করেন তিনি।

এর আগে একটি জোট ছিল সেখানে ৪ দফা দাবি তোলা হয় বর্তমানে য জোট হয়েছে সেখানে ৭ দফা দাবি তোলা হয়েছে –এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রধামন্ত্রী বলেন, ঐক্যজোটের সাত দফা কত দফায় পৌঁছায় সেটা দেখার পর জবাব দেব।

জনগণ ভোট দিলে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে— আমরা একশো বছরের প্ল্যান নিয়ে এগোচ্ছি ডেল্টা প্ল্যান নিয়ে তা নির্ভর করছে জনগণের ওপর, তারা ভোট দিলে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে জানান শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেবে মিয়ানমার আশা করছি— এক্ষেত্রে সৌদি আরব সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে।

নির্বাচনকালীন সরকার গঠন প্রসঙ্গে তিনি বলেন,কোথা থেকে যে ছোট করবো সেটা খুঁজে পাচ্ছি না, রাষ্ট্রপতির সঙ্গে আলোচনা হয়েছে নির্বাচনকালীন সময়ে কিভাবে চলবে সেটা নিয়ে।

অন্যান্য যেসব দেশে সরকারের অধীনে নির্বাচন হয়ে থাকে তা বিশ্লেষণ করা হচ্ছে, দেখা যাক কি হয় জানান শেখ হাসিনা।

সড়ক দুর্ঘটনায় শুধু চালককে দোষারোপ করলে চলবে না, জনগণকেও সচেতন হতে হবে। দুর্ঘটনা ঘটার পরেও মানুষ সচেতন হয় না। সড়ক পরিবহনমন্ত্রীকে পিষে মারলেও দুর্ঘটনা কমবে না, সচেতন যদি মানুষ না হয়। যখন সড়ক দুর্ঘটনা হয় তার কারণ খুঁজে বের করতে সাংবাদিকদের বলেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী সড়ক দুর্ঘটনায় যে নয়শো মানুষ নিহত হয়েছেন তার ঘটনা খুঁজে বের করতে বলেন সাংবাদিকদের।

সকলে তো চালকের দোষ দিয়েই খালাস, পথচারীদের সচেতন হতে হবে। মন্ত্রীদের পেটালেও দুর্ঘটনা কমবে না, পথচারীদের সচেতন হতে হবে জানান তিনি।

যে শিশুরা আন্দোলন করলো, তারাই এখন গাড়ির সামনে দিয়ে দৌঁড় দেয়।

সড়ক আইন পাস করা হয়েছে— যাদের জন্য আইন করা তারাই সচেতন হচ্ছেন না। সড়ক আইন মানতে সকলের প্রতি আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।

বিশ্বের অনেক দেশে বহু দুর্ঘটনা ঘটেছে সেটাও খুঁজে বের করে দেখুন বলে মন্তব্য করেন তিনি।

নতুন জোট সংলাপ করতে আগ্রহ প্রকাশ করে সরকারকে চিঠি দেবার যে কথা ছিল সে প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, চিঠি তো পায়নি।

ড. কামাল যুদ্ধাপরাধীদের সঙ্গে জোট করেছে, দুনীতিবাজ, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদদের সঙ্গে, মানি লন্ডারিং যারা করেছে তারা সকলে এক হয়েছেন। এখানে রাজনীতি কোথায়?

সব স্বার্থান্বেষী এক হয়েছেন মন্তব্য করেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, ড. কামাল হোসেন ৭২ এর সংবিধান প্রণয়ন করেছেন, তিনি এখন তার বিরোধিতা করছেন—তাহলে বিষয়টি কেমন হলো?

আমার প্রমাণ করার বিষয় ছিল আমি উন্নয়ন করতে পারি তা করে দেখিয়েছি বাকিটুকু পারবো যদি আরেকবার সময় পাই এ অভিমত ব্যক্ত করেন তিনি।

আগামী নির্বাচন নিয়ে প্রস্তুতি নিচ্ছে নির্বাচন কমিশন— নির্বাচন নিয়ে সংশয় যারা সৃষ্টি করতে চাচ্ছে তাদের উদ্দেশ্য উন্নয়নে বাধা দেয়া— বাংলাদেশে ষড়যন্ত্র নতুন নয় এটা হবে এর মধ্য দিয়ে দেশকে উন্নয়নের দিকে এগিয়ে নেবো জানান শেখ হাসিনা।

তিনি মনে করেন, জনগণের প্রতি আশ্বাস আছে, বিশ্বাস আছে,জনগণ সঙ্গে থাকলে সুষ্ঠু নির্বাচনের মধ্য দিয়ে আমরা আবার সুযোগ পাবো।

যে কোনো ষড়যন্ত্র মোকাবেলায় দল এবং সরকার দুদিক থেকেই প্রস্তুতি আছে জানি তিনি বলেন, সিলেটের মাজার থেকে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করতে চায়, সেটা ভাল কথা কিন্তু আবার যদি পেট্রোল বোমা হয় তাহলে সরকার প্রতিহত করবেই। পাশাপাশি জনগণও রুখে দাঁড়াবে, জনগণকে সেই আহ্বান জানাচ্ছি।

মাটিতে যাদের শেকড় নাই তারা বিভিন্ন স্থানে ছুটে বেড়ায়— তারা দেশের উন্নতি দেখে না, তারা শুধু বিদেশে গিয়ে দেশের বদনাম করে বেড়ায় বলেন প্রধানমন্ত্রী।

দেশের টেলিভিশনে টকশোতে বিভিন্ন কথা বলে বেড়াচ্ছে তারপরেও বলে কথা বলতে পারে না,

নালিশ যারা করছে, তারা নির্বাচন করতে চাইলে তারা জনগণের কাছে যাক।

কোটা নিয়ে আন্দোলন করে কিছু হবে না তাই বাতিল করে দিয়েছে। নারী তার আপন ভাগ জয় করে নেবে।

সম্প্রতি এক নারী সাংবাদিককে বাজে মন্তব্য করায় সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা মঈনুল হোসেন সম্পর্কে শেখ হাসিনা বলেন, প্রকাশ্যে নারী সাংবাদিককে বাজে কথা বললেন, আদালত না হয় তাকে ছেড়ে দিলো— আপনারা আরো মামলা করতে পারেন।

নারী সাংবাদিককে যে লোক কটূক্তি করলো সেই মানুষটার ব্যবহার ছিল খারাপ,সে একাত্তরে দালালি করেছে। সে ৭৫ এ হত্যার পরে খুনি মোশতাক যে দল করে তাতে মঈনুল ছিল। তারপর জাতির পিতার খুনিদের নিয়েও দল গঠন করে। ইত্তেফাকে খুন করে নিজের ভাইদের ফাঁসানোর চেষ্টা করেন। তার কাছ থেকে কি আর আশা করা যায়?

সৌদি সফরের সময় ১৭ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রিয়াদে বাংলাদেশ দূতাবাসের সদ্য নির্মিত নিজস্ব ভবনের উদ্বোধন করেন। ১৮ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী মহানবীর (সা.) পবিত্র রওজা মোবারক জিয়ারত করেন। ওই দিন তিনি মদিনা থেকে মক্কা যান এবং রাতে পবিত্র ওমরাহ পালন করেন। একই দিনে প্রধানমন্ত্রী জেদ্দায় বাংলাদেশ কনস্যুলেটের জন্য সদ্য কেনা জমিতে নতুন ভবনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন।

২০১৬ সালের পর রিয়াদে এটি হবে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌদি বাদশাহর দ্বিতীয় বৈঠক। এ ছাড়া ২০১৪ সালে ক্ষমতায় আসার পর এটি প্রধানমন্ত্রীর চতুর্থ সৌদি সফর। এ বছরের এপ্রিলে সৌদি নেতৃত্বাধীন ২৩-দেশের যৌথ সামরিক মহড়া ‘গালফ শিল্ড-১ ’এর সমাপনী অনুষ্ঠানে যোগ দিতে তিনি সর্বশেষ সৌদি আরব গিয়েছিলেন।

প্রধানমন্ত্রীর ১৯ অক্টোবর দেশে ফেরেন।

বিদেশ সফরের পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংবাদ সম্মেলনে সফর সম্পর্কে অবহিত করেন। তিনি সাংবাদিকদের নানা প্রশ্নেরও জবাব দেন। এসব প্রশ্নে তাঁর সফর, সাম্প্রতিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি ও সমসাময়িক ঘটনা স্থান পায়।

প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে যোগদান শেষে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফিরে এসে সর্বশেষ সংবাদ সম্মেলনটি করেছিলেন।

 

ইউটিউবে দেশ টেলিভিশনের জনপ্রিয় সব নাটক ও অনুষ্ঠান দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Desh TV YouTube Channel

এছাড়াও রয়েছে

প্রধানমন্ত্রীর পদ গুরুত্বপূর্ণ নয়, গুরুত্বপূর্ণ মানুষের কল্যাণে কাজ করা

প্রধানমন্ত্রী সঙ্গে বৈঠকে বি. চৌধুরী ও এরশাদ

সশস্ত্র বাহিনী দিবস: শিখা অনির্বানে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

পুলিশ সদর দপ্তরে নীলনকশার অভিযোগ ভিত্তিহীন: ওবায়দুল

জনগণ ভোট দিলে আ.লীগ আবারও ক্ষমতায় আসবে: প্রধানমন্ত্রী

জনগণ ভোট না দিলে ভারত কাউকে জেতাতে পারবে না

মনোনয়ন পাচ্ছেন না আমানুর-বদি: কাদের

আদালতে যাওয়ার কথা ভাবা হচ্ছে তারেকের বিষয়টি নিয়ে

জনগণ ভোট দিলে আ.লীগ আবারও ক্ষমতায় আসবে: প্রধানমন্ত্রী

জোট শরীকদের সঙ্গে আসন বণ্টনের সমঝোতা শেষ আ.লীগের

প্রতীক বরাদ্দের আগেই লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড হবে: ইসি সচিব

প্রীতি ফুটবল ম্যাচে জয় পেয়েছে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা