জাতীয়

ksrm

শনিবার, ২১ জুলাই, ২০১৮ (১৯:০১)

জনগণ কতটুকু পেল সেটাই বড়, সংবর্ধনার প্রয়োজন নেই: শেখ হাসিনা

শেখ হাসিনা

আমি জনগণের সেবক— কোনো সংবর্ধনার প্রয়োজন নেই বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শনিবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রধানমন্ত্রীকে গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, 'আমার সংবর্ধনার প্রয়োজন নেই— আমি জনগণের সেবক। জনগণের জন্য কাজ করতে এসেছি। জনগণ কতটুকু পেল সেটাই বড়। এর চেয়ে বেশি কিছু চাওয়া-পাওয়ার নেই আমার।

বাংলার মানুষ যেন অন্ন-বস্ত্র-বাসস্থান পায়, উন্নত জীবন পায় সেটাই তার জীবনের লক্ষ্য জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এ লক্ষ্য নিয়েই আমি কাজ করছি। আমার আর কিছুই চাওয়ার নেই।

দেশের উন্নয়ন ও অর্জনে অনন্য সফলতার জন্য আওয়ামী লীগের দেয়া সংবর্ধনা গ্রহণ করে তা জনগণকে উৎসর্গ করে শেখ হাসিনা বলেন, মানুষের অন্ন-বস্ত্র-বাসস্থান, জীবন মান উন্নত করাই তার লক্ষ্য।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের মাধ্যমে বাংলাদেশ কলুষমুক্ত হয়েছে। বাংলাদেশ এগিয়ে যাওয়ার পথ পেয়েছ।

এ সময় প্রশ্ন করেন যারা নৌকা ঠেকাও আওয়াজ তুলছেন তারা কি আবার রাজাকারদের ক্ষমতায় আনতে চান?

বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যাকাণ্ডের পর 'কঠিন পরিস্থিতির' মধ্য দিয়ে চলা ও বাংলার মানুষের জীবনে পরিবর্তন আনার কথা তুলে ধরেন শেখ হাসিনা।

দেশের মানুষের অর্জন ত্যাগের মাধ্যমে হয়েছে— সেইসঙ্গে নিজের প্রাপ্ত সংবর্ধনা বাংলার মানুষকে উৎসর্গ করেন প্রধানমন্ত্রী।

দেশ বিক্রির রাজনীতি আওয়ামী লীগ করে না—এ কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, শোষিত-বঞ্চিত মানুষের জন্যই তাদের রাজনীতি।

শেখ হাসিনা বলেন, দেশের সব অর্জন আওয়ামী লীগ সরকারের সময়েই হয়-ট্রাইব্যুনাল করে দেশে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করছে আওয়ামী লীগ সরকার।

নৌকায় ভোট দিলেই দেশের উন্নয়ন হয় এ কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী তার সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের কথা তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, জনগণ নৌকায় ভোট দিয়েছে বলেই দেশ স্বাধীনতা অর্জন করেছে স্বয়ংসম্পূর্ণ হচ্ছে।

বিএনপির সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তারা দেশের নয়, নিজেদের উন্নয়ন করেছে। বিএনপি ক্ষমতায় আসলে হত্যা, জঙ্গিবাদসহ দেশে বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের সৃষ্টি হয়।

স্বল্পোন্নত থেকে বাংলাদেশের উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণ, বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটের সফল উৎক্ষেপণের মাধ্যমে মহাকাশ বিজয়, অস্ট্রেলিয়ায় গ্লোবাল উইমেনস লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড ও ভারতের আসানসোলে কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডিলিট ডিগ্রি অর্জন করায় আওয়ামী লীগের উদ্যোগে শেখ হাসিনাকে এ গণসংবর্ধনা দেয়া হয়।

গণসংবর্ধনার শুরুতে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। প্রযুক্তি ব্যবহার করেও উন্নয়নের ভিডিওচিত্র অনুষ্ঠানে তুলে ধরা হয়। এ ছাড়া আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা উপকমিটির পক্ষ থেকে সরকারের অর্জন ও উন্নয়ন সংবলিত একটি প্রকাশনা সবার হাতে তুলে দেয়া হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী।

বিকেল ৪.৪২ মিনিটে ভাষণ দিতে ওঠেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর আগে শেখ হাসিনা মঞ্চে উঠতেই স্লোগানে আর হর্ষধ্বনিতে মুখরিত হয়ে ওঠে এই ঐতিহাসিক উদ্যান। আধা ঘণ্টার সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতার বক্তব্যের পর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের মানপত্র পাঠ করেন। এই মানপত্র তিনি প্রধানমন্ত্রীর হাতে তুলে দেন।

এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে অংশ নিতে সকাল থেকে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জনতার ঢল নামে।

তারা প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়ে বিভিন্ন শ্লোগান দেন। ছাত্রলীগ নেতা কর্মীরা টিএসসি-রাজু ভাস্করের আশেপাশে অবস্থান নিয়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সমাবেশস্থলে যান। বেলা ১২টার দিকে উদ্যানে সমাবেশস্থলের সবগুলো গেট খুলে দেয়া হয়।

 

ইউটিউবে দেশ টেলিভিশনের জনপ্রিয় সব নাটক ও অনুষ্ঠান দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Desh TV YouTube Channel

এছাড়াও রয়েছে

জাতীয় ঈদগাহে পবিত্র ঈদুল আজহার নামাজ সকাল ৮টায়

একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলায় জিয়া পরিবার জড়িত: শেখ হাসিনা

ঈদের দিন শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন প্রধানমন্ত্রী

ধর্মীয় মর্যদা-ভাবগাম্ভীর্যের মাধ্যমে পালিত হবে পবিত্র ঈদুল আজহা

জাতীয় ঈদগাহ মাঠ প্রস্তুত, প্রথম জামাত সকাল ৮টায়

ট্রেনের সিডিউল বিপর্যয়, ভোগান্তিতে যাত্রীরা

ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায় পরিবর্তন এসেছে: আছাদুজ্জামান মিয়া

বিএনপির জন্য নির্বাচন থেমে থাকবে না: তোফায়েল

দেশের বিভিন্ন জায়গায় ঈদ-উল-আযহা পালন

ধর্মীয় মর্যদা-ভাবগাম্ভীর্যের মাধ্যমে পালিত হবে পবিত্র ঈদুল আজহা

ঈদের দিন শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন প্রধানমন্ত্রী

জামিন পেল অভিনেত্রী নওশাবা