জীবনধারা

ksrm

শনিবার, ০২ জুন, ২০১৮ (১৩:০৬)

স্মৃতিশক্তি লোপ পায় যে সকল খাবার খেলে

পুষ্টিকর খাবারে রয়েছে স্মৃতি শক্তি বৃদ্ধি যোগসূত্র

বয়সের সঙ্গে ধীরে ধীরে স্মৃতিশক্তি ক্ষমতা কমতে থাকে। স্মৃতিশক্তির সমস্যা মস্তিষ্কে আঘাত লাগলে হতে পারে। স্ট্রোকের ফলে হতে পারে, টিউমার এমনকী সুগার থেকেও হতে পারে। এক্ষেত্রে খাওয়াদাওয়ার একটা বড় ভূমিকা রয়েছে। কারণ যে খাবার আপনি খাচ্ছেন তার প্রভাব কিন্তু আপনার স্মৃতিশক্তিতে পরতে পারে।

ফসফরাসে পরিপূর্ণ খাবার আঙুর, কমলালেবু, খেজুর এই ধরণের খাবার স্মৃতিশক্তি জোরদার করতে সাহায্য করে। অন্যদিকে কার্বোহাইড্রেটে পরিপূর্ন খাবার শরীরের উৎপন্ন টক্সিনের উদ্দীপক হিসাবে কাজ করে, এবং মস্তিষ্কের কাজকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে।

যে সকল কারণে স্মৃতি শক্তির লোপ পেতে পারে, সে সম্পর্কে বিশেষজ্ঞ মতামত নিয়ে আলোচনা করা হল।

স্মৃতিশক্তির জন্য ক্ষতিকর খাদ্যাভাস

ময়দা থেকে তৈরি খাবার পাউরুটি, পাস্তা, নুডলস, জাতীয় খাবারে কার্বোহাইড্রেট বেশি থাকে। যা শরীরের শর্করা স্তরকে বাড়িয়ে দেয়। আর ডায়বেটিস স্মৃতিশক্তি লোপের অন্যতম কারণ হতে পারে।

মাইক্রোওয়েভ পপকর্ন ইনস্ট্যান্ট পপকনের যে প্যাকেটগুলি বাজারে পাওয়া যায় তাতে ডায়াসেটল নামের একটি উপাদান থাকে। সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, এই উপাদানের যোগ রয়েছে অ্যালজাইমার রোগের সঙ্গে। মস্তিষ্কে রক্তচলাচল বাধাপ্রাপ্ত করে।

কেমিক্যাল সুইটনার কেমিক্যাল সুইটনারে নানা ধরনের ক্ষতিকর উপাদান থাকে, যার ফলে মাথা ধরা, ওজন ঘাটতি, তন্দ্রাচ্ছন্ন থাকা, স্মৃতিশক্তিভ্রমের মতো নানা অসুবিধা হতে পারে।

বিয়ার যারা দিনে বিয়ারের দুটি করে পাইট খান তাদের অ্যালজাইমার রোগ হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। একটি সমীক্ষায় জানা গিয়েছে, যারা ১৫-২০ বছর ধরে অ্যালকোহল সেবন করছে তাদের জীবনের শেষের দিতে স্মৃতি ভ্রমের সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি।

প্রসেসড চিজ চিজ থেকে প্রোটিন ও ক্যালসিয়াম পাওয়া যায়। কিন্তু আমেরিকান চিজ বা মোজারেলা চিজে সম্পৃক্ত চর্বি রয়েছে। যা স্মৃতিশক্তি লোপ পাওয়ার সম্ভবনাকে ত্বরাণ্বিত করে।

স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধির ঘরোয়া উপায়

কাঠবাদাম একটি চমৎকার আয়ুর্বেদিক উপাদান। এটি স্মৃতিশক্তি ও মস্তিষ্কের শক্তি বাড়াতে সাহায্য করে। এর মধ্যে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড। এর মধ্যে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট চোখের জন্যও ভালো।

৫-১০টি কাঠকাদাম সারা রাত ভিজিয়ে রেখে পরের দিন খোসা ছাড়িয়ে পেস্ট করে নিন। এই পেস্ট ১ গ্লাস দুধের সাথে মিশিয়ে জ্বাল দিন। প্রয়োজনে মিশ্রনের সাথে চিনি বা মধু মেশাতে পারে। এই পানীয় ৩০/৪০ দিন পান করতে হবে।

এছাড়াও, মধু ও দারুচিনিতে রয়েছে এমন উপাদান যা স্নায়ুকে প্রশান্ত করে স্মৃতি শক্তি বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। এক চা চামচ কাঁচা মধুর সাথে এক চিমটি দারুচিনি মিশিয়ে ২/৩ মাস প্রতি রাতে একটি খেয়ে দেখুন।

সূত্র: বিজ্ঞান সাময়িকী

 

ইউটিউবে দেশ টেলিভিশনের জনপ্রিয় সব নাটক ও অনুষ্ঠান দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Desh TV YouTube Channel

এছাড়াও রয়েছে

ডিএনসিসির প্যানেল মেয়র ওসমান গণি আর নেই

একাত্তরের জননী গ্রন্থের লেখক রমা চৌধুরী আর নেই

পূজা, আরাধরায় পালন শ্রীকৃষ্ণের পবিত্র জন্মতিথি

কোন সময়ে মধু খেলে উপকার বেশি পাবেন

ভিটামিন এ’র অভাব পূরণে লাল শাক

ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মাধ্যমে পালিত হচ্ছে পবিত্র ঈদুল আজহা

দেশের বিভিন্ন জায়গায় ঈদ-উল-আযহা পালন

ঈদ জামাতের জন্য প্রস্তুত গোর এ শহীদ ময়দান-শোলাকিয়া

১ অক্টোবর থেকে আন্দোলনের প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বান মওদুদের

ক্রমবর্ধমান বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বিশ্ব নেতাদের প্রতি আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

সিনহা বিচার বিভাগের ভাবমূর্তি নষ্ট করছেন: অ্যাটর্নি জেনারেল

ঢাকা দখলের ঘোষণা ১৪ দলের