আন্তর্জাতিক

ksrm

সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ (১০:৪৬)

আজীবন ক্ষমতায় থাকার ব্যবস্থায় রয়েছে পিং

চীনের প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং

আজীবন প্রেসিডেন্ট পদে থাকার জন্য যা যা করা দরকার তাই করেছেন চীনের বর্তমান প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং।

গতকাল -রোববার প্রেসিডেন্টের কার্যকাল নির্দিষ্ট করা একটি আইন বাতিল করে ওই পদ সুরক্ষিত করতে পারে—এমন এক প্রস্তাব পেশ করেছে দেশটির শাসক দল কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটি।

চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম সিনহুয়া এক খবরে জানায়, চীনের সংবিধানে প্রেসিডেন্টের মেয়াদ-সংক্রান্ত একটি ধারায় উল্লেখ আছে, ‘একজন প্রেসিডেন্ট ও ভাইস প্রেসিডেন্ট টানা দুই মেয়াদের বেশি সময় ক্ষমতায় থেকে দায়িত্ব পালন করতে পারবেন না।’

কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটি সংবিধানের এ ধারাটি বাদ দেয়ার প্রস্তাব করেছে।

সিনহুয়ার খবরে বলঅ হয়েছে, আগামী মার্চে চীনের জাতীয় আইনসভা ন্যাশনাল পিপলস কংগ্রেসের বার্ষিক পূর্ণ অধিবেশন শুরু হবে—আর এ অধিবেশনেই সংবিধান সংশোধনের প্রস্তাবটি তোলা হবে।

গত বছরের অক্টোবরে সি চিন দ্বিতীয় দফায় দল এবং দেশের সামরিক প্রধান হন। প্রেসিডেন্টের পদই শুধু নয় এই প্রস্তাবে ভাইস প্রেসিডেন্টের পদও আজীবনের জন্য সুরক্ষিত হয়ে যাবে।

কেন্দ্রীয় কমিটির এ প্রস্তাব অবশ্য দেশটির পার্লামেন্টে অনুমোদন হতে হবে। পার্লামেন্ট সদস্যরা সবাই দলের অনুগত হওয়ায় তা যে পাস হবে, তা বলাই যায় এটি পাস হলে যত দিন ইচ্ছা বা ক্ষমতা থেকে সরে যাওয়ার কোনো বাধ্যবাধকতা থাকল না।

গত ২০১৩ সালের মার্চে সি চিন পিং চীনের প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন।

দুই মেয়াদে ১০ বছর এ দায়িত্ব পালনের পর ২০২৩ সালে ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়ানোর বাধ্যবাধকতা রয়েছে ৬৪ বছর বয়সী এই নেতার। দলটির প্রস্তাব অনুযায়ী যদি সংবিধান সংশোধন করা হয়, তাহলে অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য সি চিন পিং চীনের প্রেসিডেন্ট রয়ে যাবেন। এর আগে বেইজিংয়ে গত অক্টোবর মাসে চীনা কমিউনিস্ট পার্টির ১৯তম জাতীয় কংগ্রেস অনুষ্ঠিত হয়। ওই কংগ্রেসে দলের গঠনতন্ত্রে কমিউনিস্ট পার্টির প্রয়াত চেয়ারম্যান মাও সে তুংয়ের নামের পাশে ঠাঁই হয় দলটির বর্তমান সাধারণ সম্পাদক চিন পিংয়ের নাম।

দেশটিতে মাওয়ের পর সি চিন পিংকেই সবচেয়ে ক্ষমতাধর শাসক হিসেবে বিবেচনা করা হয়। এর আগে গঠনতন্ত্রে মতাদর্শের পাশে মাও ছাড়া কেবল দেং জিয়াওপিংয়ের নাম যুক্ত হয়েছিল। তা-ও তা করা হয়েছিল জিয়াওপিংয়ের মৃত্যুর পর।

ওই কংগ্রেসের আরেকটি উল্লেখযোগ্য বিষয় হলো এতে দলের সাত সদস্যের শীর্ষ নীতিনির্ধারক একটি স্ট্যান্ডিং কমিটিও নির্বাচন করা হয়। তবে সি চিন পিংয়ের কোনো উত্তরসূরি নির্বাচন করা হয়নি।

 

ইউটিউবে দেশ টেলিভিশনের জনপ্রিয় সব নাটক ও অনুষ্ঠান দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Desh TV YouTube Channel

এছাড়াও রয়েছে

আবারো কলকাতায় ধসে পড়ল ফ্লাইওভার

মিয়ানমারের সার্বভৌমত্বে হস্তক্ষেপের অধিকার জাতিসংঘের নেই

মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম মোহাম্মদ সোলিহ

মালদ্বীপে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে কড়া নজরদারী রাখছে ভারত- চীন

মিয়ানমারের বিচারে সক্ষম আইসিসি: জাতিসংঘ মহাসচিব

ইরানের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধলে যুক্তরাষ্ট্র ব্যর্থ হবে: হাসান রুহানি

তাঞ্জানিয়ায় ফেরি ডুবির ঘটনায় ১৩৬ জনের মৃতদেহ উদ্ধার

ইরানে সামরিক বাহিনীর কুচকাওয়াজ জঙ্গি হামলা, নিহত ২৪

বর্তমান সরকারের অধীনে নির্বাচনে যেতে আপত্তি নেই: ড. কামাল

খালেদা জিয়াকে মাইনাস করতে মাঠে নেমেছে বিএনপি

জাতীয় ঐক্য ‘জগাখিচুড়ি মার্কা ঐক্য, টিকবে না: কাদের

জাগিয়ে তুলতে হবে তরুণদের