আন্তর্জাতিক

মঙ্গলবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ (১৮:৫৪)

সংকট জটিলে মালদ্বীপ, জরুরি অবস্থা জারি- প্রধানবিচারপতি গ্রেপ্তার

মালদ্বীপের প্রধান বিচারপতি গ্রেপ্তার

মালদ্বীপে জরুরি অবস্থা জারির কয়েক ঘণ্টা পরই দেশটির সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতিসহ দুই বিচারপতিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এর মধ্য দিয়ে দেশটির চলমান রাজনৈতিক সংকট আরো জটিল হয়ে উঠেছে।

দুই বিচারপতিকে গ্রেপ্তারের পাশাপাশি বিরোধীদলের পক্ষ নেয়া সাবেক প্রেসিডেন্ট মামুন আব্দুল গাইয়ুমকে গৃহবন্দী করা হয়েছে।

এ পরিস্থিতিতে মালদ্বীপে অবস্থানরত বাংলাদেশিদের সতর্ক করে জরুরি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে সেখানকার বাংলাদেশ দূতাবাস।

সংকট সমাধানে দেশটির নির্বাসিত সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নাশিদ ভারতের সাহায্য চেয়েছেন।

মালদ্বীপে সন্ত্রাসবাদে জড়িত থাকার অভিযোগে কারাবন্দী বিরোধী দলের ৯ নেতাকে মুক্তির আদেশ দেয় সুপ্রিম কোর্ট। তাদের মধ্যে বিদেশে স্বেচ্ছায় নির্বাসনে থাকা মোহাম্মদ নাশিদও রয়েছেন।

সেইসঙ্গে বহিষ্কৃত ১২ জন আইনপ্রণেতাকে সপদে ফিরিয়ে আনার আদেশও দেয় আদালত। তাদের ওপর থেকে বহিষ্কারাদেশ ফিরিয়ে নেয়া হলে ৮৫ সদস্যের আইনসভায় সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারাবে সরকারি দল।

প্রেসিডেন্ট আব্দুল্লাহ ইয়ামিনের সরকার আদালতের এ আদেশ প্রত্যাখ্যান করলে শুরু হয় রাজনৈতিক সংকট।

আদালত-সরকার দ্বন্দ্বের জেরে প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিন সোমবার রাতে ১৫ দিনের জন্য জরুরি অবস্থা জারির ঘোষণা দেন।

এই প্রেক্ষাপটে মঙ্গলবার ভোরে দেশটির সুপ্রিম কোর্টে প্রবেশ করে পুলিশ।

প্রধান বিচারপতি আব্দুল্লাহ সাঈদের সঙ্গে আলী হামীদ নামে আরেকজন বিচারক ও জুডিশিয়াল সার্ভিস প্রশাসক হাসান সাঈদকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এর আগে মধ্যরাতে দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট মামুন আব্দুল গাইয়ুম ও তার মেয়ের জামাই মোহাম্মদ নাদিমকে তাদের বাসা থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তাদেরকে গৃহবন্দী রাখা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত কিংবা কোনো অভিযোগ আনা হয়েছে কিনা, সে বিষয়ে কিছুই জানানো হয়নি। জরুরি অবস্থায় কোনো আইনি সুবিধাও পাবেন না তারা।

মালদ্বীপে জরুরি অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে দেশটিতে অবস্থানরত বাংলাদেশিদের জন্য সতর্কতামূলক জরুরি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে সেখানকার বাংলাদেশ দূতাবাস।

বিজ্ঞপ্তিতে সেখানে অবস্থানরত বাংলাদেশি নাগরিকদের নিজ নিজ কাজ ছাড়া, অপ্রয়োজনে মালদ্বীপের পথেঘাটে বা অন্য কোথাও ঘোরাঘুরি বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে। অবসরে প্রয়োজন ছাড়া বাইরে না যাওয়ার এবং পরামর্শ কোনো ধরনের মিটিং, মিছিল ও সমাবেশে যোগ না দেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে বিজ্ঞপ্তিতে।

পরে মঙ্গলবার প্রেসিডেন্ট ইয়ামিন তার নির্বাহী ক্ষমতা বলে জরুরি অবস্থা সংক্রান্ত আইনকে আরো কঠোর করার ঘোষণা দিয়েছেন।

এজন্য আইনটি সংশোধনীর মাধ্যমে জরুরি অবস্থা চলাকালীন গ্রেপ্তার হওয়াদের অধিকার সীমিত করা হয়েছে।

প্রেসিডেন্টের এ তৎপরতায় বিরোধীদের মনে শঙ্কা ও ভীতি তৈরি হয়েছে বলে গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে।

দেশটির রাজনৈতিক ও সাংবিধানিক সংকট সমাধানে নির্বাসিত সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নাশিদ ভারতের সাহায্য চেয়েছেন। নয়াদিল্লিকে এ বিষয়ে দ্রুত ভূমিকা নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে, মালদ্বীপে জরুরি অবস্থা প্রত্যাহার করার জন্য জোর দাবি জানিয়েছেন যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র বিষয়ক মন্ত্রী বরিস জনসন। আর মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিল এক টুইট বার্তায় হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছে, মালদ্বীপে কি হচ্ছে সারা বিশ্ব তার খেয়াল রাখছে।

এই ক্যাটাগরীর আরও খবর

ইয়ামেনের সিটিইউনিটের সদরদপ্তরে আইএসের আত্মঘাতি হামলা, নিহত ১৪

সোমালিয়ায় গাড়িবোমা হামলায় নিহত ৩০

রাখাইন রাজ্যের রাজধানী সিতওয়ের আশেপাশে বোমা বিস্ফোরণ

উ. কোরিয়ার ওপর নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা ট্রাম্পের

রাখাইন সীমান্তে বেড়া নির্মাণে ১৫ মিলিয়ন ডলার বরাদ্দ

পরকীয়ার কারণে পদত্যাগ করছেন অস্ট্রেলিয়ার উপপ্রধানমন্ত্রী

দুই সপ্তাহ পর রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তন শুরু

শূন্যরেখায় আটকে থাকা রোহিঙ্গাদের ফেরাতে মিয়ানমারের ভিন্ন সুর

দুর্নীতি হচ্ছে-তা প্রতিরোধ করা সম্ভব হচ্ছে না: দুদক

খালেদার কারাবাস প্রলম্বিত হবে কিনা সিদ্ধান্ত আদালতের: কাদের

নথি আসার পর জামিনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত

নদী রক্ষায় কারখানা বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে স্থানান্তরের উদ্যোগ