রাখাইনে সহিংসতা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগ

বুধবার, ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ (১৮:০৬)
রাখাইনে-সহিংসতা-নিয়ে-যুক্তরাষ্ট্রের-উদ্বেগ

যুক্তরাষ্ট্র

মিয়ানমারের রাখাইনে যে সহিংসতা চলছে— তাতে আবারো উদ্বেগ প্রকাশ করল যুক্তরাষ্ট্র। মিয়ানমারের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক সহযোগিতা বন্ধ করার আহ্বান জানিয়েছেন মার্কিন জ্যেষ্ঠ কয়েকজন আইনপ্রণেতা।

সংস্থাটির মানবাধিকার কমিশন মিয়ানমারে জাতিগত নিধনযজ্ঞ চলছে অভিযোগ করলে কমিশনকে আরো দায়িত্বশীল হতে সতর্ক করেছে নেইপিদো। সেইসঙ্গে আসিয়ান সম্মেলনে রোহিঙ্গা ইস্যু এড়িয়ে যেতে কূটনৈতিক তৎপরতা শুরু করেছে দেশটি। রোহিঙ্গাদের জন্য ৩০ লাখ ইউরো মানবিক সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর নির্মূল অভিযান পরিচালনার পরিপ্রেক্ষিতে মিয়ানমারের ওপর আন্তর্জাতিক চাপ ক্রমশ বাড়ছে। এই পরিস্থিতিতে মিয়ানমারের সঙ্গে মার্কিন সামরিক সহযোগিতা বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকজন জ্যেষ্ঠ আইনপ্রণেতা।

প্রভাবশালী মার্কিন সিনেটর জন ম্যাককেইন, হাউস ডেমোক্র্যাটিক ককাস চেয়ারম্যান জো ক্রাউলি এবং কংগ্রেসম্যান স্টিভ চ্যাবট মিয়ানমারে মার্কিন অস্ত্র সহায়তা বন্ধের পক্ষে নিজেদের অবস্থানের কথা জানান। রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের ওপর দেশটির সেনাবাহিনী হত্যা-দমনপীড়নের মধ্যে তাদের এই পদক্ষেপ মিয়ানমারকে শক্তিশালী বার্তা দেবে বলে মনে করছেন তারা।

এরইমধ্যেই হোয়াইট হাউস রাখাইন পরিস্থিতি নিয়ে আবারো তাদের উদ্বেগের কথা জানিয়েছে। এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে,

হত্যা, নির্যাতন, গ্রাম পুড়িয়ে দেয়া ও ধর্ষনের মতো মানবাধিকার লঙ্ঘনের যে অভিযোগ উঠেছে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে তাতে শঙ্কা প্রকাশ করছে হোয়াইট হাউস।

এদিকে, রোহিঙ্গা সঙ্কট নিরসনে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে স্থানীয় সময় বুধবার রাতে জরুরি বৈঠক বসতে যাচ্ছে। গত মঙ্গলবার মানবাধিকার কমিশনের প্রধান জেইদ রাদ আল হুসেইন রোহিঙ্গা নীপিড়নের তীব্র সমালোচনা করেন এবং মিয়ানমারের বিরুদ্ধে 'জাতিগত নিধনযজ্ঞের' অভিযোগ তোলেন। এরপরই এই বৈঠক আহ্বান করে নিরাপত্তা পরিষদ। মানবিক সঙ্কট বৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে যুক্তরাজ্য ও সুইডেনের উদ্যোগে এই আলোচনা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

তবে মানবাধিকার কমিশনের এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে মিয়ানমার। কমিশনকে আরো দায়িত্বশীল হতে সতর্কও করেছে দেশটি।

রোহিঙ্গা সঙ্কট নিয়ে বিশ্বজুড়ে সমালোচনার মধ্যে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭২তম অধিবেশনে অংশ নেওয়ার পরিকল্পনা বাতিল করেছেন মিয়ানমারের ক্ষমতাসীন দলের নেতা অং সান সুচি। বুধবার তার মুখপাত্র এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, সু চির পরিবর্তে দেশটির ভাইস প্রেসিডেন্ট হেনরি ভ্যান থিও এই অধিবেশনে অংশ নেবেন।

এই ক্যাটাগরীর আরও খবর

রোহিঙ্গা পুনর্বাসন প্রক্রিয়া স্বচ্ছের জন্য পার্লামেন্টের আহবান

মানুস দ্বীপের আশ্রয়কেন্দ্র থেকে সরতে বাধ্য হলেন শরণার্থীরা

জিম্বাবুয়ের নতুন প্রেসিডেন্ট এমারসন ম্যানানগাগওয়া

মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক চায় চীন

জিম্বাবুয়ের নতুন প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন মানানগাগওয়া

মিয়ানমারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের ইঙ্গিত টিলারসনের