স্বাস্থ্য

সোমবার, ০৬ মার্চ, ২০১৭ (১৪:০৫)

ইন্টার্ন চিকিৎসকদের কর্মবিরতি প্রত্যাহার

সারাদেশে শিক্ষানবিশ চিকিৎসকদের কর্মবিরতিতে দুর্ভোগে রোগীরা

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর দেশের বিভিন্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ধর্মঘট প্রত্যাহার করেছে ইন্টার্ন চিকিৎসকরা।

সোমবার বেলা ১১টায় ধানমন্ডিতে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের বাসায় বৈঠক করেন বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনে মহাসচিব, ছাত্রলীগের সভাপতি ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ, সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ ও সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজের ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিষদের তিনজন প্রতিনিধি।

পরে বৈঠক শেষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, রোগীদের ভোগান্তিতে ইন্টার্ন চিকিৎসকরা দু:খ প্রকাশ করেছেন। এতে চার ইন্টার্ন চিকিৎসকের শাস্তি মওকুফ করার আশ্বাস দেয়া হয়।

এদিকে, সারাদেশে এ কর্মবিরতির কারণে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন রোগীরা।

গত ১৯ ফেব্রুয়ারি সিরাজগঞ্জ সদর থেকে বগুড়া হাসপাতালে এক রোগীর ছেলে ও দুই মেয়ে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের মারধরের শিকার হন।

এ ঘটনার প্রায় দুই সপ্তাহ পর ২ ফেব্রুয়ারি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে চার ইন্টার্ন চিকিৎসককের ইন্টার্নশিপ ছয় মাসের জন্য স্থগিত করা হয়।

এরপর শনিবার বগুড়ার শিক্ষানবিশ চিকিৎসকরা কর্মবিরতি শুরু করে। পরে তাদের সঙ্গে যোগ দেয় রাজশাহী, রংপুর, দিনাজপুর, খুলনা মেডিকেল কলেজ ও সিরাজগঞ্জের নর্থবেঙ্গল মেডিকেল কলেজে শিক্ষানবিশ চিকিৎসকরা।

রোববার থেকে রাজশাহী ,ময়মনসিংহ ও চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালেও কর্মবিরতি শুরু হয়।

গতকাল দুপুরে রাজশাহী মেডিকেল হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এএফএম রফিকুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, ইন্টার্ন চিকিৎসকদের কর্মবিরতির কারণে রোগীরা চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত, হাসপাতালের চিকিৎসক ও নার্সরা অতিরিক্ত ডিউটি করে রোগীদের সেবা দিচ্ছেন।

রামেক হাসপাতাল ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি শফিকুল ইসলাম অপু জানান, শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের চার ইন্টার্ন চিকিৎসকের শাস্তি প্রত্যাহারসহ তাদের নিজেদের কর্মস্থলে বহাল রাখার দাবিতে তারা এ কর্মসূচি পালন করছেন। সারাদেশের যত সরকারি ও বেসরকারি মেডিকেল কলেজ আছে সবগুলোতেই এ ধর্মঘট চলছে। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাদের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে এই কর্মবিরতি চলবে।

এদিকে, রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইন্টার্ন চিকিৎসকরা এ কর্মবিরতিতে সমর্থন দিয়ে কর্মসূচি পালন করছেন।

অঘোষিত এ কর্মবিরতি প্রত্যাহারে এরইমধ্যে চিকিৎসকদের নিরাপত্তাসহ ৭ দফা দাবি জানিয়েছেন আন্দোলনকারীরা।

এসব হাসপাতালের রোগীরা পড়েছেন চরম দুর্ভোগে।

গত ১৯ ফেব্রুয়ারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা এক রোগীর ছেলে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের মারধরের শিকার হন। পরে ২৩ ফেব্রুয়ারি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির প্রতিবেদন অনুযায়ী চার শিক্ষানবিশ চিকিৎসকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার পর থেকেই এই অঘোষিত কর্মবিরতি শুরু হয়।

বগুড়ায় ইন্টার্ন চিকিৎসককে শাস্তির প্রতিবাদে শনিবার থেকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইন্টার্ন চিকিৎসকরা কর্মবিরতি শুরু করেন।

তারা কর্মবিরতিসহ হাসপাতালের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে।

রংপুর ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি ফারহান রহমান বলেন, বগুড়া মেডিকেল কলেজের চার ইন্টার্ন চিকিৎসকের শাস্তি প্রত্যাহারসহ তাদের নিজেদের কর্মস্থলে বহাল রাখার দাবিতে এ কর্মসূচি পালন করা হচ্ছে।

বগুড়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ইন্টার্ন চিকিৎসকরা এক রোগীর স্বজনদের মারধর করায় চারজনের ইন্টার্নশিপ ছয় মাসের জন্য স্থগিত করে কর্তৃপক্ষ। এছাড়া ছয় মাস পরে তাদের চারটি ভিন্ন হসপাতালে ইন্টার্নশিপ করার শাস্তিও দেয়া হয়। ফারহান রহমান বলেন, এ শাস্তি রহিত করার জন্য রংপুরে এ কর্মবিরতি কর্মসূচি চলছে।

এছাড়াও রয়েছে

লাইফ সাপোর্টে কবি বেলাল চৌধুরী

না ফেরার দেশে রাজীব

দুই বাসের চাপায় হাত হারানো রাজীব লাইফ সাপোর্টে

বিদেশে চিকিৎসা করানোর মতো পরিস্থিতি খালেদার হয়নি

সারাদেশে পালিত হচ্ছে বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস

স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর কারাগারে খালেদা জিয়া

ফতুল্লায় ভাড়াটিয়ার বাসায় দাওয়াত খেয়ে অচেতন ৯, মালামাল লুট

ভালো আছেন মির্জা ফখরুল

দ্বিতীয় মেয়াদে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ

দেশের রাজনীতিতে বিদেশি শক্তির হস্তক্ষেপ আশা করি না: কাদের

মানবতাবিরোধী অপরাধ: এনএসআইয়ের সাবেক কর্মকর্তা ওয়াহিদুল গ্রেপ্তার

বাংলাদেশের অগ্রযাত্রায় হাসিনার ভূয়সীঁ প্রশংসা মোদির