পরিবেশ

শনিবার, ০৬ জানুয়ারী, ২০১৮ (১২:০৯)

সারাদেশে শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত, দুর্ভোগে নিম্ন আয়ের মানুষেরা

রাজশাহীর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৫.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস

সারাদেশে শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত, দুর্ভোগে নিম্ন আয়ের মানুষেরা

সারাদেশের ওপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে মৃদু থেকে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ।

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, এ শৈত্যপ্রবাহ চলবে আরও কয়েকদিন— এছাড়া এ মাসেই আরো দু-তিনটি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, শ্রীমঙ্গলসহ রংপুর, রাজশাহী, ঢাকা, ময়মনসিংহ ও খুলনা বিভাগের উপর দিয়ে বয়ে চলা শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত থাকবে এবং আশপাশের এলাকায় বিস্তৃত হতে পারে।

শনিবার দিন ও রাতের তাপমাত্রায় তেমন কোনো পরিবর্তনের সম্ভাবনা নেই।

রাজশাহীতে বেড়েছে শীতের তীব্রতা—শনিবার ভোরে এই অঞ্চলে তামপাত্রা রেকর্ড করা হয় ৫ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা দেশের মধ্যে সর্বনিম্ন।

তবে সকালে সূর্যের দেখা মেলেছে—ফলে মানুষের দুর্ভোগ অন্যদিনের চেয়ে কিছুটা কম।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, রাজশাহী অঞ্চলের ওপর দিয়ে গত চারদিন ধরে বয়ে যাচ্ছে শৈত্যপ্রবাহ। ঘনকুয়াশার সঙ্গে উত্তরের হিমেল হাওয়া বয়ে যাওয়ায় কনকনে শীত অনুভব হচ্ছে।

গত বৃহস্পতিবার রাজশাহীতে মৌসুমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গতকাল সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিলো ৮ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। শনিবার ভোরে তাপমাত্রা আরো কমে ৫ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমে এসেছে।

এ অঞ্চলে এখন মৃদু থেকে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে— শীতের এমন প্রকোপ আরো কিছুদিন থাকবে।

এদিকে, তীব্র শীতে কর্মজীবী দিনমজুর, ছিন্নমূল মানুষ ও পথশিশুরা বিপাকে পড়েছে।

অনেকেই আগুন জ্বালিয়ে তাপ নিচ্ছেন— দিনমজুর শ্রেণির মানুষরা কাজ করতে পারছেন না ঠিকমতো। প্রয়োজন ছাড়া বাড়ি থেকে কেউ বের হচ্ছেন না।

রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আশরাফুল ইসলাম জানান, শনিবার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রয়েছে রাজশাহীতে। তবে সকালে রোদ ওঠায় মানুষের কষ্ট কিছুটা কমেছে। সকাল ১১টায় তাপমাত্রা ছিল ১৬ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

রাজধানীতে শীত এতদিন বেশি অনুভব না হলেও বেশ কয়েকদিন ধরে এখানেও তীব্র ঠাণ্ডা বিরাজ করছে। এতে ছিন্নমূল মানুষেরা বিপাকে পড়েছে।

উত্তারাঞ্চলে শীত মৌসুমে প্রতিদিনই মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত কুয়াশার দাপট থাকে।

আবহাওয়ার দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, জানুয়ারিতে একটি মাঝারি (৬-৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস) বা তীব্র (৪-৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস) এবং ২-৩টি মৃদু (৮-১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস) বা মাঝারি শৈত্য প্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

হিমালয়ের পাদদেশে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে উত্তরের জনজীবন। বেশ কিছু অঞ্চলে দেখা দিয়েছে কোল্ড ডায়রিয়া। শীতে সবচেয়ে বেশী ভোগান্তিতে পড়েছেন নিম্ন আয়ের মানুষেরা।

পৌষের দ্বিতীয়ার্ধে জেঁকে বসেছে শীত। ঢাকায় রাতের তাপমাত্রা কমছে—দিনের তাপমাত্রাও হ্রাস পেয়েছে।

আবহাওয়া অফিসের সূত্র মতে, টাঙ্গাইল, ফরিদপুর, নেত্রকোনা, শ্রীমঙ্গল ও বরিশাল অঞ্চলসহ রংপুর, রাজশাহী ও খুলনা বিভাগের ওপর দিয়ে হালকা থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে, চলতি সপ্তাহে এ শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে।

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে জানানো হয়, এ মাসে দেশের উত্তরাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে একটি মাঝারি বা তীব্র শৈত্যপ্রবাহ এবং দেশের অন্যত্র ২ থেকে ৩ টি মৃদু বা মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

এদিকে, হিমালয়ের পাদদেশে অবস্থিত উত্তরের শেষ জেলা পঞ্চগড়ে তীব্র শীতে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। ঠাণ্ডার কারণে মানুষজন বাড়ি থেকে বের হতে পারছেন না। ঘন কুয়াশার কারণে দিনের বেলাতেও হেডলাইট জ্বালিয়ে যানবাহন ধীর গতিতে চলাচল করছে।

বৈরি আবহাওয়ায় সবচেয়ে বেশি অসুবিধায় পড়েছেন নিম্ন আয়ের মানুষ। হাসপাতাল-ক্লিনিকগুলোতে বেড়েছে ঠাণ্ডাজনিত রোগীর সংখ্যা। তাদের মধ্যে বৃদ্ধ ও শিশুদের সংখ্যাই বেশি। সরকারি-বেসরকারিভাবে দুস্থদের মাঝে কিছু শীতবস্ত্র বিতরণ করা হলেও তা চাহিদার তুলনায় অপ্রতুল।

উত্তরীয় হিমেল হাওয়ায় উত্তরের জনপদ কুড়িগ্রামের মানুষ পড়েছেন বিপাকে। এ জেলায় দরিদ্র মানুষের সংখ্যা বেশি হওয়ায় গরম কাপড়ের অভাবে কষ্ট পাচ্ছেন তারা।

সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগে আছেন গত বন্যায় ঘর-বাড়ি হারানো ক্ষতিগ্রস্তরা। খুব প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হচ্ছেন না মানুষজন। খড়কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারনের চেষ্টা করছেন অনেকে।

এছাড়াও রয়েছে

এ মাসের শেষের দিকে কালবৈশাখী ঝড়- বৃষ্টি বাড়তে পারে

দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে

ঝড়ে তাজমহলের একটি মিনার ক্ষতিগ্রস্ত

বাইসাইকেলের জন্য আলাদা লেনের দাবি

টোকিও নগরীর এক তৃতীয়াংশ পানিতে তলিয়ে যাবে: জরিপ প্রতিবেদন

রাজধানীসহ উত্তরের বিভিন্ন জেলায় ঝড়-শিলা বৃষ্টি

ফুলে ফুলে ঢেকে গেছে চেরি ফুলের দেশ জাপান

সিলেট- ময়মনসিংহ- ঢাকা -চট্টগ্রামে বৃষ্টির সম্ভাবনা

মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিবেদন পক্ষপাতমূলক: ইনু

তারেককে ফেরাতে আলোচনা চলছে: আইনমন্ত্রী

এ মাসের শেষের দিকে কালবৈশাখী ঝড়- বৃষ্টি বাড়তে পারে

ভূগোলের কালকের প্রশ্ন আজ কেন্দ্রে-পরীক্ষা স্থগিত- ১৪ মে ২য়পত্র