নির্বাচন

রবিবার, ৩০ ডিসেম্বর, ২০১৮ (০১:০৭)
সংসদ নির্বাচন

সারাদেশে ভোটগ্রহণ: নৌকা ২৬৬ - ঐক্যফ্রন্ট ৭

সহিংস ঘটনার মধ্যে দিয়ে সারাদেশে ভোটগ্রহণ

আ. লীগ জোট ২৬৬ - বিএনপি জোট ঐক্যফ্রন্ট - ৭ - লাঙ্গল ২১ - অন্যান্য ২ আসনে জয় লাভ করেছে।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ২০১৮। মোট আসন ২৯৯।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রোববার ভোটগ্রহণ শেষ চলছে ভোট গণনা। ঢাকা ৯ আসনের ৯৮টি কেন্দ্রে এক লাখ ৩১ হাজার ৭৬৬ ভোট পেয়ে এগিয়ে আছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী সাবের হোসেন চৌধুরী। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি প্রার্থী আফরোজা আব্বাস পেয়েছেন ৩৪ হাজার ৪৪৮ ভোট।

নীলফামারী-২ (সদর) আসনে আবারও বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের নৌকার প্রার্থী আসাদুজ্জামান নূর।

তিনি ভোট পেয়েছেন এক লাখ ৭৭ হাজার ৬৫৭টি। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকে মনিরুজ্জামান মন্টু পেয়েছেন ৭৯ হাজার ৪৮৪টি। যদিও দুপুর ১টার দিকে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন।

সন্ধ্যা জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং কর্মকর্তা নাজিয়া শিরিন বেসরকারিভাবে আসাদুজ্জামান নূরকে নির্বাচিত ঘোষণা করেন।

নীলফামারী-২ আসনের মহাজোটের প্রার্থী আসাদুজ্জামান নূর সকাল সোয়া ১০টার দিকে বাসার পাশেই উদয়ন বিদ্যাপীঠ কেন্দ্রে তিনি ভোট দেন।

এসময় সংবাদকর্মীদের তিনি বলেন, উৎসবমুখর পরিবেশে ভোটগ্রহণ হয়েছে। নারী ভোটারের উপস্থিতি ছিল আশাব্যঞ্জক। গতবার কোনো কোনো কেন্দ্রে বা আসনে ভোটগ্রহণ হয়নি তাই ভোটারের মধ্যে যে অতৃপ্তি রয়ে গেছে আর সে অতৃপ্তির কারণে এবারে ভোটারের সাড়া মিলেছে ভোট কেন্দ্রে।

নীলফামারী-২ (সদর) মোট ভোটার তিন লাখ ১১ হাজার ৬৯৯ জন। পুরুষ ভোটার এক লাখ ৫৬ হাজার ৯৪০ ও নারী ভোটার এক লাখ ৫৫ হাজার ২০৯ জন। মোট প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী চারজন।

অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা নেয় কমিশন। উৎসবমুখর পরিবেশে সব রাজনৈতিক দলের অংশ গ্রহণের মধ্য দিয়ে নির্বাচনে সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে চলে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

রোববার সারাদেশে উৎসবমুখর পরিবেশে ভোটগ্রহণ চলে।

গতকালই ব্যালট পেপার, ব্যালট বাক্সসহ সব নির্বাচনী সামগ্রী ভোট কেন্দ্রে সরবরাহ করা হয়।

রিটার্নিং কর্মকর্তাদের তত্ত্বাবধায়নের এসব কাজ হয়, সেই সঙ্গে সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে এবং যে কোনো ধরণেরে অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে নির্বাচন কমিশন সেনাবাহিনী, পুলিশ, বিজিবিসহ ৬ লাখ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন রয়েছে।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়। প্রায় ৭ লাখ আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়। এর পাশাপাশি র্নিবাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তা, প্রিজাইডিং অফিসার, সহাকারী প্রিজাইডিং অফিসার, পোলিং অফিসার, সাংবাদিক, পর্যবেক্ষকসহ প্রায় ১৫ লাখ লোক নির্বাচনের দিন মাঠে রয়েছে। নির্বাচনের সব তথ্য কমিশন থেকে গণমাধ্যমেও জানানো হবে।

রোববার দেশের সাড়ে ১০ কোটি ভোটার যাদের পক্ষে রায় দেবে, আগামী পাঁচ বছর তাদের হাতেই থাকবে বাংলাদেশের শাসনক্ষমতা।

অধিকাংশ নিবন্ধিত দলের বর্জনে ব্যাপক সহিংসতার মধ্যে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন হওয়ার পাঁচ বছর পর এবারের নির্বাচনে সব দলকেই নিয়েই নির্বাচন করছে নির্বাচন কমিশন।

নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ জানান, আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর ৭ লাখের মত সদস্য, ৭ লাখের মত ভোটগ্রহণ কর্মকর্তা এবং সাংবাদিক-পর্যবেক্ষক মিলিয়ে ১৫ লাখ লোক নির্বাচনী কাজে সম্পৃক্ত আছে।

সিইসি নূরুল হুদা গত ৮ নভেম্বর তফসিল ঘোষণার পর ১২ নভেম্বর পুনঃতফসিল করা হয়।

১০ ডিসেম্বর প্রতীক বরাদ্দের পর প্রার্থীরা প্রচার শুরু করেন, সেই সুযোগ শেষ হয় শুক্রবার সকাল ৮টায়।

সংসদ নির্বাচন ২০১৮

ভোটগ্রহণের সময়: ভোট চলে রোববার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত।

আসন: এক প্রার্থীর মৃত্যু হওয়ায় ৩০০ আসনের মধ্যে রোববার ভোট হবে ২৯৯ আসনে। বাকি থাকা গাইবান্ধা-৩ আসনে ২৭ জানুয়ারি ভোটের তারিখ নির্ধারণ করেছে ইসি।

ভোটার: ১০ কোটি ৩৮ লাখ ২৬ হাজার ৮২৩ জন ভোটারের মধ্যে ৫ কোটি ২৩ লাখ ৭১ হাজার ৬২০ জন পুরুষ; ৫ কোটি ১৪ লাখ ৫৫ হাজার ২০৩ জন নারী।

কেন্দ্র ও ভোটকক্ষ: ৪০ হাজার ৫১টি ভোট কেন্দ্রের ২ লাখ ৫ হাজার ৬৯১টি ভোটকক্ষে ভোটগ্রহণ হচ্ছে।

কীভাবে ভোট: ঢাকা-৬, ঢাকা-১৩, চট্টগ্রাম-৯, রংপুর-৩, খুলনা-২ এবং সাতক্ষীরা-২ আসনে এবার ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ হচ্ছে। বাকি ২৯৩টি আসনে ভোট হচ্ছে সনাতন পদ্ধতিতে ব্যালট পেপার ব্যবহার করে।

ফল ঘোষণা: কেন্দ্রে কেন্দ্রে গণনা শেষে প্রিজাইডিং অফিসাররা লিখিত ফলাফল রিটার্নিং অফিসারের কাছে পাঠাবেন। রিটার্নিং অফিসাররা তা ইসিতে পাঠাবেন। ঢাকায় নির্বাচন ভবনের ফোয়ারা প্রাঙ্গণে বিশেষ মঞ্চ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে ফল ঘোষণা করা হবে।

প্রতিদ্বন্দ্বী:

এবার নির্বাচনী লড়াইয়ে রয়েছেন ১৮৬১ জন প্রার্থী। তাদের মধ্যে ১ হাজার ৭৩৩ জন দেশের ৩৯টি রাজনৈতিক দলের মনোনীত প্রার্থী; বাকি ১২৮ জন স্বতন্ত্র।

কোন দলের কত প্রার্থী

এলডিপি ৮ (ধানের শীষ ৪), জেপি ১১ (মহাজোট ২), সাম্যবাদী দল ২, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ ৯ (ধানের শীষ ৪), সিপিবি ৭৪, আওয়ামী লীগ ২৬১ (নৌকা ২৭৪), বিএনপি ২৭২ (ধানের শীষ ২৯৭), গণতন্ত্রী পার্টি ৬, ন্যাপ ৯, জাতীয় পার্টি ১৭৬ (মহাজোট ২৫), বিকল্পধারা ২৫ (নৌকা ৩), ওয়ার্কার্স পার্টি ৮ (নৌকা ৫), জাসদ ১২ (নৌকা ৩), জেএসডি ১৯ (ধানের শীষ ৪), জাকের পার্টি ৯০, বাসদ ৪৫, বিজেপি ৩ (ধানের শীষ ১), তরিকত ফেডারেশন ১৭ (নৌকা ১), বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন ২৩, বাংলাদেশ মুসলীম লীগ ৪৮, এনপিপি ৭৯, জমিয়াতে উলামায়ে ইসলাম ৮ (ধানের শীষ ৩), গণফোরাম ২৭ (ধানের শীষ ৭), গণফ্রন্ট ১৩, পিডিপি ১৪, বাংলাদেশ ন্যাপ ৩, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি ১১, ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ ১৮, কল্যাণ পার্টি ২ (ধানের শীষ ১), ইসলামী ঐক্যজোট ২৪, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস ৫, ইসলামী আন্দোলন র্ংলাদেশ ২৯৮, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট ২৫, জাগপা ৪, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি ২৮, খেলাফত মজলিস ১২ (ধানের শীষ ২), বিএমএল ১, মুক্তিজোট ২, বিএনএফ ৫৭ জন।

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও তাদের শরিক ১৬টি দল এবার নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছে। এছাড়া তাদের জোটসঙ্গী জাতীয় পার্টির নিজেদের লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে।

বিএনপিসহ তাদের জোট শরিক আটটি দল ধানের শীষে ভোট করছে এবার। নিবন্ধিত দলের বাইরে জামায়াত ও নাগরিক ঐক্যের প্রার্থীরা ধানের শীষ প্রতীকে লড়ছেন।

গণতান্ত্রিক বাম জোটের দল বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) কাস্তে, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) মই এবং বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির কোদাল প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছে।

# এছাড়া ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ হাতপাখা, বিএনএফ টেলিভিশন, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন বটগাছ, ইসলামী ঐক্যজোট মিনার, প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক দল বাঘ, জাকের পার্টি গোলাপ ফুল, প্রতীক নিয়ে ভোটে রয়েছে।

বিধিনিষেধ

১. গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ অনুযায়ী, ২৮ ডিসেম্বর সকাল ৮টা থেকে মঙ্গলবার বিকাল ৪টা পর্যন্ত কোনো ধরনের সভা, সমাবেশ, মিছিল বা শোভাযাত্রা করা যাবে না।

২. ভোটের দিন ২৪ ঘণ্টা নির্বাচনী এলাকায় ট্যাক্সি ক্যাব, বেবিট্যাক্সি/অটোরিকশা, মাইক্রোবাস, জিপ, পিকআপ, কার, বাস, ট্রাক, টেম্পো, লঞ্চ, ইজিবাইক, ইঞ্জিনবোট ও স্পিডবোট চলাচলের নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। মোটরসাইকেলের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা থাকবে শনি থেকে সোম তিন দিন।

তবে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনী, সরকারি গাড়ি, সেবা সংস্থা যেমন- ফায়ার সার্ভিস, অ্যাম্বুলেন্স, সংবাদপত্রবাহী গাড়ি এ নিষেধাজ্ঞার বাইরে থাকবে।

১. নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, কেন্দ্রের ভেতরে কেবল প্রিজাইডিং কর্মকর্তা এবং কেন্দ্রের নিরাপত্তায় নিয়োজিত পুলিশের ইনচার্জ মোবাইল ব্যবহার করতে পারবেন।

২. ভোটাররা কোনোভাবেই বুথ বা কেন্দ্রের ভেতরে ফোন ব্যবহার করতে পারবেন না। ভোটাররা কেউ মোবাইল ফোন সঙ্গে নিয়ে কেন্দ্রে গেলেও তা বন্ধ রেখে যেতে হবে।

৩. ভোট দিতে জাতীয় পরিচয়পত্রের প্রয়োজন পড়বে না। তবে ভোটারের এনআইডি নম্বর, ভোটার নম্বর বা স্মার্ট কার্ড সঙ্গে থাকলে ভোটার তালিকা থেকে নাম বের করতে সুবিধা হবে।

ইভিএম

যে ৬টি আসনে এবার ইভিএমে ভোট হবে, সেখানে ৮৪৫টি কেন্দ্রের ৫ হাজার ৪৫টি ভোটকক্ষে মোট ২১ লাখ ২৪ হাজার ৫৫৪ জন ভোটার রয়েছেন। মোট ৪৮ জন প্রার্থীর মধ্যে থেকে তারা বেছে নেবেন ছয়জনকে।

আসন

ভোটার

রংপুর-৩- ৪,৪১,৬৭১ জন

খুলনা-২

২,৯৪,১১৬ জন

সাতক্ষীরা-২

৩,৫৬,২৪৬ জন

ঢাকা-৬

২,৬৯,৩১৫ জন

ঢাকা-১৩

৩,৭২,৭৭৫ জন

চট্টগ্রাম-৯

৩,৯০,৪৩১ জন

কর্মী বাহিনী

৬৬ জন রিটার্নিং অফিসার জেলা এবং ৫৮২ জন সহকারী রিটার্নিং অফিসার উপজেলা পর্যায়ে সার্বিক তত্ত্বাবাধনে দায়িত্ব পালন করছেন।

৪০ হাজার ১৮৩ জন প্রিজাইডিং অফিসার রয়েছেন কেন্দ্রের দায়িত্বে। তাদের অধীনে ২ লাখ ৭ হাজার ৩১২ জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার এবং ৪ লাখ ১৪ হাজার ৬২৪ জন পোলিং অফিসার ভোটগ্রহণের মূল কাজটি করছেন।

নিরাপত্তা:

ভোটের মাঠের আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় বিভিন্ন বাহিনীর ৬ লাখ ৮ হাজার সদস্য নিয়োজিত ভোটেকেন্দ্রে।

# এরমধ্যে ১ লাখ ২১ হাজার পুলিশ; ৪ লাখ ৪৬ হাজার আনসার এবং ৪১ হাজার গ্রাম পুলিশ রয়েছেন।

# ৬০০ প্লাটুন (প্রতি প্লাটুনে ৩০ জন) র্যা ব এবং ৯৮৩ প্লাটুন (প্রতি প্লাটুনে ৩০ জন) বিজিবি সদস্যও রয়েছেন ভোটের মাঠে।

# এর বাইরে ৩৮৯ উপজেলায় ৪১৪ প্লাটুন (প্রতি প্লাটুনে ৩০ জন) সেনা সদস্য, ১৮ উপজেলায় নৌবাহিনীর ৪৮ প্লাটুন (প্রতি প্লাটুনে ৩০ জন) এবং ১২ উপজেলায় ৪২ প্লাটুন (প্রতি প্লাটুনে ৩০ জন) কোস্টগার্ড ভোটের দায়িত্ব পালন করছেন।

# সারা দেশে ১ হাজার ৩২৮ জন নির্বাহী হাকিম এবং ৬৪০ জন বিচারিক হাকিম আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে রয়েছেন।

# অভিযোগ খতিয়ে দেখতে ১২২টি নির্বাচনী তদন্ত কমিটির ২৪৪ জন সদস্য থাকবেন ভোটের মাঠে।

পর্যবক্ষেক দল:

৮১টি দেশি পর্যবেক্ষক সংস্থার ২৫ জন ৯০০ জন প্রতিনিধি, ৩৮ জন (ফেমবোসা, এএইএ, ওআইসি ও কমনওয়েল্থ থেকে আমন্ত্রিত) বিদেশি পর্যবেক্ষক, বিভিন্ন বিদেশি মিশনের ৬৪ জন কর্মকর্তা এবং দূতাবাস ও বিদেশি সংস্থায় কর্মরত ৬১ জন বাংলাদেশি এবার ভোট পর্যবেক্ষণ করছেন।

বাজেট

একাদশ সংসদ নির্বাচনে পরিচালনা ও আইন শৃঙ্খলায় ৭০০ কোটি টাকার খাতওয়ারি বরাদ্দ অনুমোদন করেছে নির্বাচন কমিশন। এর দুই- তৃতীয়াংশই যাচ্ছে নিরাপত্তা খাতে।

সর্বশেষ নির্বাচন

বিএনপিসহ অধিকাংশ নিবন্ধিত দলের বর্জনের মধ্যে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন হয় ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি।

৩০০ আসনের মধ্যে ১৫৩টিতে একক প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন। বাকি ১৪৭টি আসনে ৪০.০৪ শতাংশ ভোট পড়ে।

ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মোট ২৩৪ আসন নিয়ে সরকার গঠন করে। জাতীয় পার্টি ৩৪, ওয়ার্কার্স পার্টি ৬, তরিকত ফেডারেশন ২, জাতীয় পার্টি-জেপি ২, বিএনএফ ১ ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা ১৬টি আসন পায়।

নির্বাচনের ফলাফল প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে ভোট গণনার পর প্রিজাইডিং কর্মকর্তা ফলাফল ঘোষণা করবেন। এরপর রিটার্নিং অফিসারগণ আসন অনুযায়ী জেলায় জেলায় ঘোষণা করবেন। এই ফলাফলের অনুলিপি নির্বাচন কশিন সচিবালয়ে পাঠানো হবে। কমিশন কার্যালয় থেকেও প্রতিটি আসনের ফলাফল ঘোষণা করা হবে।

ইউটিউবে দেশ টেলিভিশনের জনপ্রিয় সব নাটক ও অনুষ্ঠান দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Desh TV YouTube Channel

এছাড়াও রয়েছে

উপজেলা পরিষদ নির্বাচন: চতুর্থ ধাপে ১২২টিতে ভোটগ্রহণ ৩১ মার্চ

উপজেলা নির্বাচন প্রতিযোগিতামূলক হবে আশা সিইসির

প্রশ্নবিদ্ধ গণতন্ত্র নিয়ে দাঁড়াতে পারে না জাতি: মাহবুব তালুকদার

সংসদ নির্বাচন ছিলো রেকর্ডে রাখার মতো সুষ্ঠু-নিরপেক্ষ: সিইসি

নির্বাচনে বড় দলগুলোর অংশগ্রহণ না করা হতাশাজনক: সিইসি

ঢাকা উত্তর সিটি নির্বাচন: প্রচারণায় ব্যস্ত কাউন্সিলর প্রার্থীরা

কোনো দল-ব্যক্তির কাছে দায়বদ্ধ না থেকে কাজ করুন: সিইসি

সংরক্ষিত আসনের সব প্রার্থীই বৈধ

সর্বশেষ খবর

টাঙ্গাইল-চট্টগ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৪

চকবাজার ট্র্যাজেডি নিয়ে ফখরুলের বক্তব্য দায়িত্বজ্ঞানহীন: হাছান

এদিনেই পেয়েছিলেন ‘বঙ্গবন্ধু’ উপাধি

দেশে শান্তি বিরাজ করলে উন্নয়ন সম্ভব: সাবের চৌধুরী