নির্বাচন

বৃহস্পতিবার, ০৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ (১৮:৩৮)

ইসিতে শুনানি: বিএনপির বৈধ ৩২, বাতিল ২২

নির্বাচন কমিশন

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ে প্রথমদিনে ১৬০ জনের শুনানি হয়েছে।

তারমধ্যে বিএনপির ৩২ জনের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা ও বাতিল করা হয়েছে ৮ জনের। এছাড়া জাতীয় পার্টি ৮ জনের বৈধ, ৪ জনের বাতিল, এলডিপির একজনের বৈধ একজনের বাতিল, জাসদের ২ জনের বাতিল, বিকল্পধারার একজনের বৈধ একজনের বাতিল, জেএসডি একজনের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে।

প্রাথমিকভাবে বাদ পড়া ৫৪৩ জন রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে (ইসি) আপিল করেছেন। তাদের আবেদনের ওপর প্রথম দিনের শুনানি চলে।

এদিন ক্রমিক অনুযায়ী ১৬০ জন আপিলকারীর আবেদনের উপর শুনানি হয়।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় নির্বাচন কমিশনের অস্থায়ী এজলাসে এ শুনানি শুরু হয়।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদার নেতৃত্বে শুনানি চলে।

শুনানির প্রথমে দুটি আপিলের মধ্যে একটি বাতিল ও একটি বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে।

রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে মনোনয়নপ্রত্যাশীরা গত ৩ ডিসেম্বর ৮৪ জন, ৪ ডিসেম্বর ২৩৭ জন এবং ৫ ডিসেম্বর ২২২টি আবেদন দায়ের করেছেন। বেশিরভাগ আপিলই মনোনয়নপত্র বাতিলের বিরুদ্ধে। তবে রিটার্নিং অফিসার ঘোষিত বৈধ প্রার্থীদের বিরুদ্ধেও কিছু আপিল জমা পড়েছে।

জানা গেছে, আপিলের প্রথম দিনে ১ থেকে ১৬০ ক্রমিক, দ্বিতীয় দিনে ১৬১ থেকে ৩১০ ক্রমিক এবং শেষ দিন ৩১১ থেকে ৫৪৩ ক্রমিক পর্যন্ত শুনানি হবে।

উল্লেখ্য, গত ২ ডিসেম্বর রিটার্নিং অফিসাররা যাচাই-বাছাই শেষে বৈধ-অবৈধ প্রার্থীর তালিকা প্রকাশের পরদিন ৩ ডিসেম্বর থেকে নির্বাচন কমিশন আপিল গ্রহণ শুরু করে। বুধবার আপিল গ্রহণের শেষ দিন ছিল।

এ সময় ৩০৬৫ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। এগুলো যাচাইয়ের পরে ৭৮৬ জনের প্রার্থিতা বাতিল করেন রিটার্নিং কর্মকর্তারা। ফলে বৈধ প্রার্থীর সংখ্যা দাঁড়ায় ২২৭৯ জনে।

দেশের ৩৯টি নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলের মনোনয়নপত্র জমা দেয়া দুই হাজার ৫৬৭ জন প্রার্থীর মধ্যে বাতিল হয় ৪০২ জন। স্বতন্ত্র হিসেবে দাখিল করা ৪৯৮ জনের মধ্যে ৩৮৪ জন বাতিল হওয়ার পর বৈধ স্বতন্ত্র প্রার্থী রয়েছে ১১৪ জন।

ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের ২৬৪টি আসনে ২৮১ জন প্রার্থীর মধ্যে নৌকার বৈধ প্রার্থী ২৭৮ জন। এর মধ্যে বাতিল হন ৩ জন।

বিএপির ২৯৫টি আসনে ধানের শীষে ৬৯৬ জন প্রার্থীর মধ্যে বৈধ প্রার্থীর সংখ্যা ৫৫৫ জন। এর মধ্যে বাতিল হয়েছেন ১৪১ জন।

আর জাতীয় পার্টি ২১০ আসনে ২৩৩ জন প্রার্থীর মধ্যে লাঙ্গল প্রতীকে বৈধ প্রার্থী ১৯৫ জন। আর বাতিল হয়েছেন ৩৮ জন।

এদিকে, নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী ২৮ নভেম্বর মনোনয়নপত্র দাখিল ও ২ ডিসেম্বর বাছাই। ৯ ডিসেম্বর প্রত্যাহার এবং ৩০ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণের তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে।

 

ইউটিউবে দেশ টেলিভিশনের জনপ্রিয় সব নাটক ও অনুষ্ঠান দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Desh TV YouTube Channel

এছাড়াও রয়েছে

নির্বাচনে ভোটের উত্তাপ যেন উত্তপ্ত না হয়: সিইসি

নির্বাচনে সহিংসতা থেকে দূরে থাকার আহ্বান মিলারের

আতঙ্ক নয় আস্থার পরিবেশ চায় কমিশন: সিইসি

সারাদেশে প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দের তালিকা

শেষ প্রতীক বরাদ্দ, প্রচারণায় যা করা যাবে না

প্রত্যাহার: জাতীয় ঐক্য দিল ২৬ প্রার্থী, আ’লীগ স্পষ্ট করেনি

সারাদেশে ২৪ বিদ্রোহী প্রার্থীকে চিহ্নিত করেছে আ.লীগ

ইসিতে ৩য় দিনের আপিল শুনানি চলছে

সর্বশেষ খবর

নির্বাচনে সহিংসতা থেকে দূরে থাকার আহ্বান মিলারের

সিলেটে মাজার জিয়ারতের মধ্য দিয়ে ঐক্যফ্রন্ট-বিএনপি প্রচারণা শুরু

ভিকারুননিসায় প্রথম শ্রেণির ভর্তি কার্যক্রম স্থগিত

আমি নিরাপত্তায় ভুগছি: মির্জা আব্বাস