নির্বাচন

শুক্রবার, ১৭ নভেম্বর, ২০১৭ (১৮:৪০)

নতুন বছরে ট্রাম্পকার্ড নিয়ে আসছে আ’লীগ-বিএনপি

আ’লীগ-বিএনপি

আগামী জাতীয় নির্বাচন কীভাবে— কী অবস্থায় হবে তা নিয়ে চলছে রাজনৈতিক দরকষাকষি। আওয়ামী লীগ ও বিএনপি দুই প্রধান দলই চাচ্ছে নিজেদের মতো করে অনুকূল পরিবেশ। তবে শেষ পর্যন্ত নির্বাচনকেন্দ্রিক পরিস্থিতি কার অনুকুলে যায়, তা স্পষ্ট হবে আরো কয়েক মাস পর।

বিশ্লেষকরা বলছেন, নতুন বছরের প্রথমার্ধেই আওয়ামী লীগ ও বিএনপি তাদের ট্রাম্পকার্ডগুলো সামনে নিয়ে আসবে। আর বিএনপি তাদের সহায়ক সরকারের রূপরেখা প্রকাশ করলে রাজনৈতিক সমীকরণ আরো পরিস্কার হবে।

তবে সব মিলিয়ে বড় দুই দলকে কিছু না কিছু ছাড় দিতে হবে বলেই মনে করেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

সরকারের মেয়াদ পূর্ণ হওয়ার পরই যে আগামী নির্বাচন হবে, তা নিয়ে আর কোন সংশয় নেই রাজনৈতিক মহলে। তবে সেই নির্বাচন কার অধীনে, কিভাবে হবে তা নিয়ে ক্রমেই উত্তপ্ত হয়ে উঠছে রাজনীতির ময়দান।

নির্বাচনকে সামনে রেখে বিভিন্ন ইস্যুতে বড় দুটি রাজনৈতিক জোটের মধ্যে চলছে নানা দরকষাকষি। আরো কয়েক মাস পরে পরিস্থিতি বোঝা যাবে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

চলতি মাসের শেষেই সহায়ক সরকারের রূপরেখা দেওয়ার কথা বিএনপির। বিশ্লেষকরা বলছেন, রূপরেখা প্রকাশ করার পরই আগামী নির্বাচনে বিএনপির অবস্থান আরো স্পষ্ট হবে।

তবে বড় দুই জোট এখন নিজ নিজ অবস্থানে যতোই অনড় হোক না কেন, পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে নির্বাচন নিয়ে তাদের সমঝোতায় আসতেই হবে বলে অভিমত বিশ্লেষকদের।

সব মিলিয়ে একটি সুষ্ঠু, অবাধ ও অংশগ্রহণমুলক নির্বাচন হবে বলে আশাবাদী তারা।

এছাড়াও রয়েছে

খুলনা সিটি নির্বাচন: বাতিল ৩টি কেন্দ্রে ভোট ৩০ মে

খুলনা সিটি নির্বাচনে ৩ মেয়র প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত

কেসিসি নির্বাচন: খালেক ১৭৬৯০২ -মঞ্জু পেলেন ১০৮৯৫৬ ভোট

কেসিসি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শেষ: বিএনপি শঙ্কায়, আশাবাদী আ'লীগ

কেসিসিতে ৩টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত

নির্বাচন সুষ্ঠু হলে ফল মেনে নেব: মঞ্জু

নির্বাচনের পরিবেশ সন্তোষজনক: খালেক

কেসিসি নির্বাচনের ভোট গ্রহণ শেষ

ইতালিয়ান ওপেন টেনিসের শিরোপা জিতেছে নাদাল

ইউরোপিয়ান গোল্ডেন শু জিতলেন মেসি

সিনিয়র ক্রিকেটারের সঙ্গে বৈঠকে গ্যারি কারস্টেন

মূলধন ঘাটতি পূরণে ২০০ কোটি টাকা চাইছে রূপালী ব্যাংক