শিক্ষা-শিক্ষাঙ্গন

শুক্রবার, ০৩ আগস্ট, ২০১৮ (১৭:১২)

যে কয়টি দাবি পূরণ হলো

যে কয়টি দাবি পূরণ হলো

বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর পর টানা পাঁচ দিন সড়কে বিক্ষোভ করে আসছে শিক্ষার্থীর।

নিজেদের দাবি বাস্তবায়নে সরকারের প্রতিশ্রুতি আদায় করেছে শিক্ষার্থীরা।

গত ২৯ জুলাই জাবালে নূরের দুটি বাসের রেষারেষির মধ্যে একটি বাস বিমানবন্দর সড়কের এমইএস এলাকায় রাস্তার পাশে দাঁড়ানো একদল শিক্ষার্থীর ওপর উঠে যায়।

এ সময় শহীদ রমিজউদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহত হলে ক্ষোভে ফেটে পড়া তাদের সহপাঠিরা সড়ক অবরোধ করে বেশ কয়েকটি বাস ভাংচুর করে।

নৌমন্ত্রী ও পরিবহন শ্রমিক নেতা শাজাহান খানের এক বক্তব্যের পর ঢাকার বিভিন্ন প্রান্তে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরাও পরদিন সড়কে নামে।

নয়টি দাবি উঠে আসে শিক্ষার্থীদের স্লোগানে, ইন্টারনেটে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

বিক্ষোভ শুরুর পরদিন থেকে সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রীরা শিক্ষার্থীদের দাবি পূরণের আশ্বাস দিয়ে আসছিলেন। কিন্তু তাতেও কাজ হয়নি; শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ আরও জোরদার হয়। এক পর্যায়ে সরকার বৃহস্পতিবার সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি ঘোষণা করেও শিক্ষার্থীদের সড়কে নামা আটকাতে পারেনি।

এরপর গতকাল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার কার্যালয়ে ডেকে নেন নিহত দিয়া খানম মিম ও আবদুল করিম রাজীবের পরিবারকে। তাদের ২০ লাখ টাকা করে অনুদান দেওয়ার পাশাপাশি সড়কে নিরাপত্তায় নানা নির্দেশনার কথা তুলে ধরেন। প্রধানমন্ত্রীর আশ্বাসে আশ্বস্ত হয়ে দিয়ার বাবা শিক্ষার্থীদের ঘরে ফেরার আহ্বান জানান।

পরে রাতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সংবাদ সম্মেলন করে শিক্ষার্থীদের ৯টি দাবির যৌক্তিকতা স্বীকার করেন।

তিনি বলেন, এসব দাবি বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন।

এরপর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নেওয়ার পর আন্দোলন অযৌক্তিক হবে।

যে দাবিগুলো মেনে নেয়া হলো:

দাবি নম্বর ১: বেপরোয়া চালককে ফাঁসি দিতে হবে এবং এই শাস্তি সংবিধানে সংযোজন করতে হবে।

পদক্ষেপ: দুই শিক্ষার্থীকে চাপা দেওয়া ওই বাসের চালককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, গ্রেপ্তার করা হয়েছে জাবালে নূর পরিবহনের মালিককেও। মামলায় দুর্ঘটনাজনিত মৃত্যুর সঙ্গে অপরাধজনিত হত্যার ধারা যুক্ত করা হয়েছে। এখন বিচার প্রক্রিয়াটি আদালতের উপর নির্ভর করছে। আইনমন্ত্রী বলেছেন, দ্রুত বিচার করে দোষীদের সাজা দেওয়া হবে।

সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যুর জন্য অবহেলাকারী চালকের শাস্তির মাত্রা বাড়াতে দীর্ঘদিন ধরে ঝুলে থাকা সড়ক পরিবহন আইন প্রণয়নে গতি এসেছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, “সড়ক দুর্ঘটনায় সর্বোচ্চ শাস্তি দিতে নতুন আইন শিগগিরই সংসদে উপস্থাপন করা হবে।”

দাবি নম্বর ২. নৌপরিবহনমন্ত্রীর বক্তব্য প্রত্যাহার করে শিক্ষার্থীদের কাছে তাকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে।

পদক্ষেপ: নিজের ‘অনাকাঙ্ক্ষিত আচরণের জন্য’ দুঃখ প্রকাশ করে ‘অনিচ্ছাকৃত ভুল’ ক্ষমাসুন্দরভাবে দেখতে সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন নৌমন্ত্রী শাজাহান খান। নিহত দিয়া খানম মিমের বাসায় গিয়ে তার পরিবারের কাছেও ক্ষমা চেয়ে এসেছেন তিনি। শিক্ষার্থীদের স্লোগান থেকে তার পদত্যাগের দাবি উঠলেও শাজাহান খান বলেছেন, এটা শুধু বিএনপির পক্ষ থেকেই উঠেছে, ফলে তা তিনি আমলে নিচ্ছেন না।

দাবি নম্বর ৩. শিক্ষার্থীদের চলাচলে এমইএসে ফুটওভার ব্রিজ বা বিকল্প নিরাপদ ব্যবস্থা নিতে হবে।

পদক্ষেপ: যেখানে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই কলেজছাত্রী নিহত হয়েছেন, সেখানে আন্ডারপাস অথবা ফুট ওভারব্রিজ নির্মাণের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এটি নির্মাণের জন্য সেনাবাহিনীকে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন বলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন। রমিজউদ্দিন স্কুল ও কলেজকে ৫টি বাস দেওয়ার নির্দেশও দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

দাবি নম্বর ৪: প্রত্যেক সড়কের দুর্ঘটনাপ্রবণ এলাকায় স্পিড ব্রেকার দিতে হবে।

পদক্ষেপ: দিয়া ও করিমের পরিবারের সদস্যদের সান্ত্বনা দেওয়ার সময় প্রধানমন্ত্রী সব স্কুলের সামনে গতিরোধক স্থাপনের নির্দেশ দেন বলে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম জানিয়েছেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, “কোনো স্কুল-কলেজের পাশে রাস্তা থাকলে সেখানে ট্রাফিক পুলিশ থাকবে এবং শিক্ষার্থীদের রাস্তা পারাপারে সহযোগিতা করবে।”

দাবি নম্বর ৫: সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ছাত্র-ছাত্রীদের দায়ভার সরকারকে নিতে হবে।

পদক্ষেপ: নিহত শিক্ষার্থী দিয়া খানম মিম ও আবদুল করিমের পরিবারকে ২০ লাখ টাকার পারিবারিক সঞ্চয়পত্র দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। আহত শিক্ষার্থীদের ব্যয়ভার গ্রহণের কথা একদিন আগেই জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

দাবি নম্বর ৬: শিক্ষার্থীরা বাস থামানোর সিগন্যাল দিলে থামিয়ে তাদের বাসে তুলতে হবে।

পদক্ষেপ: সরাসরি বলা হয়নি, তবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কথায় এই দাবি বাস্তবায়নের ইঙ্গিত রয়েছে।

দাবি নম্বর ৭: শুধু ঢাকা নয়, সারাদেশে শিক্ষার্থীদের জন্য হাফ ভাড়ার ব্যবস্থা করতে হবে।

পদক্ষেপ: এটার কথাও সরাসরি বলা হয়নি, তবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কথায় এই দাবি বাস্তবায়নের ইঙ্গিত রয়েছে।

সরকার কী কী পদক্ষেপ নিয়েছে, তাও আসছে ইন্টারনেটে

সরকার কী কী পদক্ষেপ নিয়েছে, তাও আসছে ইন্টারনেটে

দাবি নম্বর ৮: রাস্তায় ফিটনেসবিহীন গাড়ি চলাচল এবং লাইসেন্স ছাড়া চালকদের গাড়ি চালনা বন্ধ করতে হবে।

পদক্ষেপ: এটা আইনতই নিষিদ্ধ। তবে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন শুরুর পর ঢাকার সড়কে অপ্রাপ্তবয়স্ক ও লাইসেন্সবিহীন চালকদের ধরতে বিআরটিএকে নির্দেশনা দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়। জাবালে নূর পরিবহনের বাস দুটির নিবন্ধনও বাতিল করে বিআরটিএ।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যান্ত্রিক ত্রুটিপূর্ণ গাড়ি যাতে রাস্তায় উঠতে না পারে, সেজন্য গাড়ির যাত্রার পয়েন্টে অর্থাৎ টার্মিনালে চেকপোস্ট বসিয়ে দেব, যাতে গাড়িটি বের হওয়া সঙ্গে সঙ্গে প্রথমেই যেন ধরা পড়ে যে গাড়ির ফিটনেস আছে কি না, রেজিস্ট্রেশন ও চালকের লাইসেন্স সঠিক আছে কি না। তারপরও চালক গাড়িটি নিয়ে বের হলে আমরা সে ব্যবস্থাও নিচ্ছি।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা গাড়ি থামিয়ে কাগজপত্র যাচাইয়ের কাজ নিজেদের হাতে তুলে নেওয়ার পর সরকারি গাড়ি চালকদের যাবতীয় মূল কাগজপত্র সঙ্গে রাখার নির্দেশ দেয় সরকার। পুলিশ সদস্যদেরও একই নির্দেশ দেওয়া হয়।

দাবি নম্বর ৯: বাসে অতিরিক্ত যাত্রী নেওয়া যাবে না।

পদক্ষেপ: সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, নতুন সড়ক পরিবহন আইন পাস হলে সড়কে শৃঙ্খলা ফেরানো সহজ হবে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দুই-একটি দাবি পূরণে সময় চেয়ে বলেছেন, দুই-একটি দাবি পূরণে সময় লাগবে, যেমন ফুটওভার ব্রিজ কিংবা আন্ডারপাস।

দাবি পূরণ হওয়ায় এখন শিক্ষার্থীদের ঘরে ফেরার আহ্বান জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। শিক্ষার্থীদের ফেরাতে অভিভাবক ও শিক্ষকদের প্রতিও আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, নৌমন্ত্রীর পদত্যাগের বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নে তিনি বলেন, তিনি দুঃখ প্রকাশ করেছেন বারবার এবং ক্ষমাও চেয়েছেন। মন্ত্রী যখন ক্ষমা প্রার্থনা করছেন, তাকে কি মাফ করা যায় না?

বিক্ষোভরত শিক্ষার্থীদের ইন্ধন দেওয়ার বিষয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক কাদের বলেন, বিষয়টা আমরা খতিয়ে দেখছি, এ রকম রাজনীতির অনুপ্রবেশ ঘটছে কি না, কেউ তাদের অতীতে আন্দোলনে ব্যর্থতার কারণে কখনও কোটার উপর কখনও শিক্ষার্থীদের উপর সওয়ার হচ্ছে কি না, তা খতিয়ে দেখছি।

শিক্ষার্থীদের আশ্বস্ত করে তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের কাছে আহ্বান জানাব, তারা তাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ফিরে গিয়ে পড়াশোনায় মনোযোগ দেবে।

 

ইউটিউবে দেশ টেলিভিশনের জনপ্রিয় সব নাটক ও অনুষ্ঠান দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Desh TV YouTube Channel

এছাড়াও রয়েছে

ভিকারুননিসায় প্রথম শ্রেণির ভর্তি কার্যক্রম স্থগিত

জেএসসি-জেডিসি এবং সমাপনী পরীক্ষার ফল ২৪ ডিসেম্বর

শিক্ষক হাসনা হেনার মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ করেছে একদল শিক্ষার্থী

ভিকারুননিসার নতুন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হাসিনা বেগম

ভিকারুননিসায় ৩ দিন পর পরীক্ষা শুরু

ভিকারুননিসার শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা দেবে, আন্দোলন স্থগিত

অরিত্রীর আত্মহত্যা: বিক্ষোভ অব্যাহত রেখেছে শিক্ষার্থীরা

ভিকারুননিসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষসহ তিন শিক্ষক বরখাস্ত, এমপিও বাতিল

সর্বশেষ খবর

মরে গেলেও সংসদ নির্বাচন বর্জন নয়: ড. কামাল

জনগণ কখনো সিদ্ধান্ত নিতে ভুল করে না: শেখ হাসিনা

২০ ডিসেম্বর পর্যন্ত বৃষ্টি- এরপর শৈত্যপ্রবাহ

১৪টি প্রতিশ্রুতিতে ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা