সোমবার, ২৪ জুলাই, ২০১৭ (১৫:০৩)

বাম চোখে সামান্য দেখছেন সিদ্দিকুর

বাম-চোখে-সামান্য-দেখছেন-সিদ্দিকুর

হাসপাতালের বিছানায় সিদ্দিকুর

তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থী মো. সিদ্দিকুর রহমানের দুই চোখ পুলিশের টিয়ার শেলের আঘাতে মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অস্ত্রোপচারের পর সোমবার ক্ষীন আলো দেখতে পেয়েছেন তিনি।

সোমবার দুপুরে জাতীয় চক্ষুবিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের সহযোগী অধ্যাপক ইফতেখার মো. মুনির বলেন, ডান চোখে কোনো আলো দেখছেন না সিদ্দিকুর।

গতকাল ইফতেখার মনির বলেন, অস্ত্রোপচারের পরও সিদ্দিকুর ডান চোখে কোনো আলো দেখছেন না, বাঁ চোখের বিষয়ে কখনো বলছেন আলো দেখছেন, কখনো বলছেন দেখছেন না। এটাকে কিছুটা ইতিবাচক হিসেবে দেখা হচ্ছে। বাঁ চোখের কর্নিয়ায় ইনজুরি আছে। ওই চোখটি ওয়াশ করা হয়েছে। তবে আরও ক্লিয়ার করে তারপর অপারেশন করা হবে।

এদিকে, তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থী মো. সিদ্দিকুর রহমানের উন্নত চিকিৎসার দাবি জানিয়ে ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা রোববার কলেজ ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ করছেন।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশি হামলার প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

বিক্ষোভে অংশ নেওয়া ঢাকা কলেজের দর্শন বিভাগে চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী রাসেল সরদার বলেন, অবিলম্বে সিদ্দিকুরের উন্নত চিকিৎসা নিশ্চিত করতে হবে, এর কোনো বিকল্প নেই প্রয়োজনে তাকে চিকিৎসার জন্য বিদেশে আহ্বানও জানান।

যে পুলিশ তার ওপর এই হামলা করেছে, ভিডিও দেখে সেই পুলিশ সদস্যকে শনাক্ত করে শাস্তি দাবি জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা।

ঢাকা কলেজের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী আল আমিন বলেন, আগামীকাল ও পরশু একই দাবিতে বিক্ষোভ করা হবে। আমাদের দাবি না মানা হলে কলেজগুলোতে ধর্মঘট, অবরোধ এমনকি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ঘেরাওয়ের কর্মসূচি দেয়া হবে।’ শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে করা মামলা তুলে নেয়ারও দাবি জানান তিনি।

শনিবার সকালে জাতীয় চক্ষুবিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে তার দুই চোখে অস্ত্রোপচারের পর চিকিৎসকেরা বলেন, তার চোখের আলো ফিরে পাওয়ার আশা ক্ষীণ।

হাসপাতালের সহযোগী অধ্যাপক ইফতেখার মনির বলেন, সকাল সাড়ে ৯টার শুরু হয়ে দেড় ঘণ্টা ধরে দুই চোখ অস্ত্রোপচার হয়েছে। সিদ্দিকুর রহমানের ডান চোখের ভেতরের অংশ বের হয়ে এসেছিল তা যথাস্থানে বসানো হয়েছে। বাঁ চোখ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে; রক্ত ছিল, তা পরিষ্কার করা হয়েছে।

হাসপাতালের পরিচালক ড. গোলাম মোস্তফা বলেন, তার দুই চোখের অপারেশন করা হয়েছে, দুটো চোখেই মারাত্বক ক্ষতি হয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার রুটিনসহ পরীক্ষার তারিখ ঘোষণার দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হওয়া রাজধানীর সাত সরকারি কলেজের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে শাহবাগে অবস্থান নিয়েছিলেন সিদ্দিকুর রহমান। পুলিশের ‘কাঁদানে গ্যাসের শেলের’ আঘাত লাগে তার দুই চোখে। একটি ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, পুলিশের একজন সদস্য দৌঁড়ে গিয়ে খুব কাছ থেকে শিক্ষার্থীদের লক্ষ্য করে কাঁদানে গ্যাসের শেল ছুড়ছেন। তার পরপরই মাটিতে পড়ে যান সিদ্দিকুর। রাস্তার ওই স্থানটি রক্তে লাল হয়ে যায়। চিকিৎসকেরা বলেন, সিদ্দিকুরের দৃষ্টি ফিরে পাওয়ার সম্ভাবনা কম।

মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে পড়াশোনা করে সিদ্দিকুর তিতুমীর কলেজে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। খিলক্ষেতের একটি মেসে থাকেন।

সিদ্দিকুরের গ্রামে বাড়ি ময়মনসিংহের তারাকান্দার ঢাকেরকান্দায়। দুই ভাই ও এক বোনের মধ্যে তিনি ছোট। বয়স যখন মাত্র তিন বছর, তখন বাবা মারা যান। মা সুলেমা খাতুন কিষানির কাজ করে লেখাপড়া করান সিদ্দিকুর ও আর তার বড় ভাইকে। মাধ্যমিক পাস করার পর পড়ালেখা ছেড়ে দেন বড় ভাই নায়েব আলী হাল ধরেন সংসারের। রডমিস্ত্রির কাজ করে সিদ্দিকুরের পড়ালেখার খরচ জোগার করেন তিনি।

এই ক্যাটাগরীর আরও খবর

ঢাবি অধিভুক্ত সরকারি ৭ কলেজের পরীক্ষার ফল প্রকাশ

রাবিতে সাম্প্রদায়িক প্রশ্ন করায় দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

ভর্তি ফি কমানো হলো নবিপ্রবিতে

শিগগিরই আসছে কোচিং বাণিজ্য বন্ধে ‘শিক্ষা আইন’

আরও খবর

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস: শতাব্দীর বর্বরতম নিধনযজ্ঞ দিন

দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

এসপি হলেন ৯৬ কর্মকর্তা

টেলিভিশন- বেতার মুক্ত হয় ১৭ ডিসেম্বর

জলবায়ুর ক্ষতি মোকাবেলায় আর্থিক সহায়তা পাওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ

গাজীপুরে নিরাপত্তা প্রহরীকে জবাই করে হত্যা

এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী আর নেই

দুবাইয়ে জয় দিয়ে টি-টেন লিগ শুরু তামিম-সাকিবের

রংপুরের নির্বাচন থেকে বিএনপি প্রার্থিকে সরানো চেষ্টা চলছে: রিজভী

উত্তর কোরিয়া পরিস্থিতি নিয়ে পুতিন-ট্রাম্পের ফোনালাপ