অপরাধ

রবিবার, ৩০ ডিসেম্বর, ২০১৮ (১৬:৪৪)

নির্বাচনী সহিংসতায় ঝরে গেল ১১ প্রাণ

নির্বাচনী সহিংসতায় নিহত-কেন্দ্র দখলের অভিযোগ

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সহিংসতায় রোববার কক্সবাজার-রাজশাহী-ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় -চট্টগ্রাম-রাঙামাটিসহ সারাদেশে সংঘর্ষে ১১ জন নিহত হয়েছেন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণের আগের রাতেও বেশ কিছু জায়গায় সহিংসতায় নেতাকর্মী নিহত ও কেন্দ্র দখলের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

কক্সবাজার নিহত ১

কক্সবাজারের পেকুয়ায় আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সমর্থকদের সংঘর্ষের ঘটনায় এক যুবলীগ কর্মী নিহত ও আটজন আহত হয়েছেন।

কক্সবাজারের পুলিশ সুপার এ বি এম মাসুদ হোসেন জানিয়েছেন, সকালে ভোট কেন্দ্রে আসার পথে দুইপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।

পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আরএমও ছাবের আহমদ বলেন, নিহত আব্দুল্লাহর মৃত্যু হয়েছে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নিহত ১

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার রাজঘর কেন্দ্রে নির্বাচনী সহিংসতায় এক তরুণের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন খান।

তিনি বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ৩ আসনে মহাজোটের প্রার্থী মোক্তাদির চৌধুরী ওই কেন্দ্রে ভোট দিতে গেলে ‘একদল দুস্কৃতকারী’ তার ওপর হামলার চেষ্টা করে। তখন সংঘর্ষ বাধলে একজন নিহত হন।

বাবা সাঈদ মিয়া জানান, ইসরাইল স্থানীয় আওয়ামী লীগের কর্মী ছিলেন, ভোট কেন্দ্র দেখতে গিয়ে গোলযোগের মধ্যে গুলিতে মারা যায় সে।

রাজশাহী:২

রাজশাহী: রাজশাহীতে নির্বাচনী সহিংসতায় আজ রোববার দুজন প্রাণ হারিয়েছেন। রাজশাহীতে ভোট গ্রহণ চলাকালে বিভিন্ন আসনে সহিংসতায় এখন পর্যন্ত ২২ জন আহত হয়েছেন। তারা সবাই হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

মোহনপুরের পাকুড়িয়া হাইস্কুল কেন্দ্রের সামনে মেরাজউদ্দিন (২২) নামের আওয়ামী লীগের এক কর্মীকে বিএনপির কর্মীরা পিটিয়ে হত্যা করেছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ। রাজশাহী জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুর রাজ্জাক খান বলেন, মোহনপুরে বিএনপির কর্মীরা আওয়ামী লীগের ওই কর্মীকে পিটিয়ে হত্যা করেছেন।

এদিকে, রাজশাহী-১ আসনে মোহাম্মদপুর উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দিতে গিয়ে বিএনপির কর্মীদের লাঠির আঘাতে মোদাচ্ছের আলী (৪৫) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

দুপুর সোয়া ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। মোদাচ্ছেরের বাড়ি রাজশাহীর তানোর উপজেলার মোহনপুর গ্রামে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, দুপুরে ভোট দেওয়ার জন্য দাঁড়িয়েছিলেন মোদাচ্ছের। এ সময় মোহাম্মদপুর উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোটকেন্দ্রে ঝামেলা শুরু হয়। বিএনপির কর্মীদের লাঠির বাড়িতে মাথায় আঘাত পান মোদাচ্ছের। হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান তিনি। রাজশাহী জেলার সহকারী পুলিশ সুপার আবদুর রাজ্জাক খান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

সকাল সাড়ে নয়টার দিকে দুর্গাপুরের (রাজশাহী-৫) বখতিয়ারপুর গ্রামে ভোট দিতে যাওয়ার সময় দুর্বৃত্তদের হামলায় একই পরিবারের ছয়জন আহত হন।

তারা হলেন বখতিয়ারপুর গ্রামের মনিরুজ্জামান (২৯), তাঁর বাবা আফসার আলী (৫৫), মা মনোয়ারা বেগম (৪৭), ভাই আরিফুজ্জামান (২২), বোন জেসমিন নাহার (৩২) ও মামি রুনুফা বেগম (৩৫)। আহত ব্যক্তিদের মধ্যে আফসার আলী ছাড়া বাকি পাঁচজনকে দুর্গাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। পরে তাঁদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। তাঁরা সবাই বখতিয়ারপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দিতে যাচ্ছিলেন।

সকাল সাড়ে ১০টার দিকে নগরের (রাজশাহী-২) অন্নদাসুন্দরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রের বাইরে বিএনপি কর্মীরা ভোটারদের স্লিপ দিচ্ছিলেন। এ সময় দুর্বৃত্তরা তাঁদের কয়েকজনের মাথায় চেয়ার দিয়ে আঘাত করে। এতে পাঁচ-ছয়জন আহত হন। গুরুতর আহত অবস্থায় বেলাল উদ্দিন ও মাসওয়ার আলীকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

সকাল ১০টার দিকে নওহাটার (রাজশাহী-৩) পূর্বপাড়ার পুঠিয়াপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দিতে এসে দুর্বৃত্তদের ককটেল হামলার শিকার হন হাবিব মিয়া (৪৫)। তিনি পেশায় স্বর্ণকার। তাঁকে রাজশাহী মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

চট্টগ্রামের পটিয়া: ২

চট্টগ্রামের পটিয়ায় পশ্চিম মালিয়ারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র দখল নিয়ে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে সংঘর্ষে আবু সাদেক (১৮) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। তিনি বিএনপি সমর্থক ছিলেন বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।

চট্টগ্রাম-১২ পটিয়া আসনের সহকারী রিটার্নিং অফিসার হাবিবুল হাসান বলেন, সকাল সোয়া ১০টার দিকে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের সময় গুলিও ছোড়া হয়।

ভোটের আগের রাতে পটিয়ার গুরনখাইন এলাকায় বিএনপি প্রার্থীর সমর্থকরা হামলা চালিয়ে এক যুবলীগকর্মীকে হত্যা করে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এছাড়া চট্টগ্রামের পটিয়ায় দ্বীন মোহাম্মদ নামের এক যুবলীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। নিহতের পরিবারের দাবি স্থানীয় বিএনপি কর্মীদের হামলায় নিহত হয়েছেন দ্বীন মোহাম্মদ।

দ্বীন মোহাম্মদের ছেলে ইফতেখার বাবু জানান,শনিবার রাত সোয়া ১০টার দিকে পটিয়ার গুরুনখাইন এলাকায় বিএনপি কর্মীরা ভোটারদের মধ্যে টাকা বিলি করছে এমন খবরে যুবলীগকর্মীরা সেখানে জড়ো হয়। এসময় উভয়পক্ষের মধ্যে ঢিল ছোঁড়াছুড়ির এক পর্যায়ে দ্বীন মোহাম্মদকে কুপিয়ে জখম করা হয়। পরে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ নিয়ে আসা হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করে।

ঘটনার পর এলাকায় নিরাপত্তা জোরদারের পাশাপাশি দোষীদের ধরতে অভিযান চলছে বলে জানিয়েছে পটিয়া সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার জসিম উদ্দিন খান।

রাঙামাটি:১

রাঙামাটির কাউখালী উপজেলার ঘাগড়ায় আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সমর্থকদের সংঘর্ষে ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বাসেরউদ্দিন (৩৬) নিহত হয়েছেন।

রোববার সকাল ৭টার দিকে ঘাগড়া ইউনিয়নের কাসখালী এলাকায় দুই দলের মধ্যে এই সংঘর্ষ হয়।

হামলায় গুরুতর আহত বাসের উদ্দিনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারা যান। এ হামলায় ১৫ জন আহত হন।

রাঙামাটির পুলিশ সুপার আলমগীর কবির বলেন, ঘাগড়ায় সকালে বিএনপি ও আওয়ামী লীগের সংঘর্ষে স্থানীয় আওয়ামী লীগের এক নেতা মারা গেছেন। ঘটনার পর আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের পাঠানো হয়েছে। ওই এলাকার পরিস্থিতি এখন শান্ত।

কুমিল্লা: ২

চান্দিনা ও নাঙ্গলকোটে আজ দুজন নিহত হয়েছেন। চান্দিনায় পুলিশের গুলিতে মজিবুর রহমান (৩৮) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। আর নাঙ্গলকোটে ভোট দিতে যাওয়ার সময় হেলমেট পরিহিত লোকজনের হকিস্টিকের আঘাতে বাচ্চু মিয়া (৫৫) নামের বিএনপির এক স্থানীয় নেতা নিহত হয়েছেন।

চান্দিনা উপজেলার পশ্চিম বেলাস্বর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে পুলিশের গুলিতে মজিবুর রহমান নিহত হয়েছেন। এ সময় মিজানুর রহমান নামের আরেক ব্যক্তি গুলিবিদ্ধ হন। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহত মজিবুর রহমানের বাড়ি মুরাদনগর উপজেলার লাজুর গ্রামে। তিনি চান্দিয়ায় পোলট্রি ফিডের গোডাউনের শ্রমিক ছিলেন।

মজিবুর রহমানের স্ত্রী শাহনাজ আকতার বলেন, আমরা চান্দিয়ায় ভাড়া থাকি। এখানকার ভোটার। সকালে ভোট দিতে গিয়েছিলাম। এ সময় অতর্কিতভাবে একদল সন্ত্রাসী এসে ভোটকেন্দ্র থেকে ব্যালট পেপার নিয়ে যায়। বাইরে ব্যালটবাক্স ভাঙচুর করে। এ সময় ধানের শীষ ও নৌকা প্রার্থীর অনুসারীদের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ শটগানের ১২টি গুলি ছোড়ে। এ সময় মজিবুর রহমান ও মিজানুর রহমান গুলিবিদ্ধ হন। তাদের দ্রুত চান্দিনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মজিবুর রহমানকে মৃত ঘোষণা করেন। মিজানুরকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

কেন্দ্রের সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তা প্রদীপ চন্দ্র দেবনাথ বলেন, অতর্কিতভাবে একদল সন্ত্রাসী লাঠিসোঁটা ও ককটেল এনে কেন্দ্রে হামলা চালায়। বিদ্যালয়ের ভাঙচুর চালায়। দুটি ব্যালট বাক্স মাঠের মধ্যে ভেঙে ফেলে। চারটি নিয়ে যায়। খবর পেয়ে বিজিবি, পুলিশ ও ডিবি পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা হুমায়ূন কবির ভূঁইয়া বলেন, এ কেন্দ্রে ২ হাজার ৯৭২ ভোট রয়েছে। এর মধ্যে সংঘর্ষের আগ পর্যন্ত ৬২৪টি ভোট গ্রহণ করা হয়। এখন কেন্দ্রের মধ্যে একটি অতিরিক্ত ব্যালট বাক্স ছাড়া আর কোনো বাক্স নেই। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এ এস এম জাকারিয়া আপাতত ভোট গ্রহণ স্থগিত করার নির্দেশ দেন।

এদিকে নাঙ্গলকোট উপজেলার মুরগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দিতে যাওয়ার সময় হেলমেটধারী লোকজনের হকিস্টিকের আঘাতে বাচ্চু মিয়া নিহত হন। তিনি নাঙ্গলকোট উপজেলায় দোলখার ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের বিএনপির সহসভাপতি।

বিএনপির কর্মীরা অভিযোগ করেন, আজ সকাল সাড়ে নয়টার দিকে মুরগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে বিএনপির নেতা-কর্মীর ভোট দিতে যাচ্ছিলেন। এ সময় হাতে হকিস্টিক ও মাথায় হেলমেট পরা একদল দুর্বৃত্ত তাদের ওপর হামলা চালায়। তখন বাচ্চু মিয়া ও স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আনোয়ার হোসেন তাদের বাঁচাতে এগিয়ে আসেন। বাচ্চু মিয়ার মাথায় হকিস্টিক দিয়ে আঘাত করে দুর্বৃত্তরা। তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। আনোয়ার হোসেনের পিঠে ও বুকে হকিস্টিক দিয়ে আঘাত করে। দ্রুত তাদের পার্শ্ববর্তী মনোহরগঞ্জ উপজেলার একটি ক্লিনিকে নেওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক বাচ্চু মিয়াকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঘটনার জন্য বিএনপির প্রার্থী মনিরুল হক চৌধুরীর প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট সৈয়দ সায়না ফেরদৌস আওয়ামী লীগকে দায়ী করেন। নাঙ্গলকোট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সাতক্ষীরা:

সাতক্ষীরা-২ (সদর) আসনের ধলবাড়িয়া কেন্দ্রে নৌকা ও ধানের শীষ প্রতীকের

সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে ৪জন আহত হয়েছেন। রোববার সকাল ১০টার দিকে এ ঘটনা

ঘটে। গুরুতর আহত দুজনকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহতরা হলেন, ধলবাড়িয়া ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তকদির হোসেন, তোতা ও আবুল হোসেনসহ চার জন।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুস্তাফিজুর রহমান জানান,

দু’গ্রুপের বাগবিতণ্ডার একপর্যায়ে এ সংঘর্ষ বাধে। এতে ধলবাড়িয়া ওয়ার্ড

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তকদির হোসেন তোতাসহ কমপক্ষে ৪ জন আহত হয়েছেন।

আহতদের মধ্যে তকদির হোসেন তোতা ও আবুল হোসেনকে গুরুতর আহত অবস্থায়

সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রেখেছে।

এদিকে, সাতক্ষীরা-৩ আসনের ধানের শীষ প্রার্থী ডা. শহিদুল আলম অভিযোগ করে

বলেন, তার আসনের সকল কেন্দ্র থেকে সকাল ১০টার মধ্যে ধানের শীষের পোলিং

এজেন্টদের বের করে দেয়া হয়েছে।

তিনি আরো জানান, কালিগঞ্জ উপজেলার চম্পাফুল এলাকা থেকে তার দুই সমর্থককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

লক্ষ্মীপুর: ১

লক্ষ্মীপুরে বড়ালিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে দু’গ্রুপের গোলাগুলিতে এক অজ্ঞাত যুবক নিহত হয়েছেন। জানা গেছে ৩ ছাত্রলীগ কর্মী গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

লক্ষ্মীপুরে ভোটকেন্দ্র দখলকে নিয়ে দু গ্রুপের গোলাগুলিতে এক অজ্ঞাত যুবক নিহত হন।

এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হন ৩ ছাত্রলীগ কর্মী।

শনিবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে সদর উপজেলার বড়লিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। পরে স্থানীয়রা আহতদেরকে উদ্ধার করে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে যান।

আহতরা হলেন, দত্তপাড়া ইউনিয় ছাত্রলীগ প্রচার সম্পাদক রাকিব হোসেন ও ওর্য়াড ছাত্রলীগ সভাপতি জহিরুল ইসলাম। অপর এক ছাত্রলীগ কর্মীকে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়।

স্থানীয় ইউপি সদস্য ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সহসভাপতি বুলবুল ইসলাম খান জানান, ঘটনার সময় ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতাকর্মীরা ওই কেন্দ্রের পাশে অবস্থান করছিলেন। এসময় দুর্বৃত্তরা তাদের ওপর হামলা চালায়। এসময় গুলিতে এক অজ্ঞাত যুবক নিহত হন। গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয় ৩ ছাত্রলীগ কর্মী।

এদিকে, চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম জানান, খবর পেয়ে ভোটকেন্দ্রের পাশের এক ডোবা থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ওই অজ্ঞাত যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়। সংর্ঘষের বিষয়ে কিছুই জানেন না বলে জানান তিনি।

বাঁশখালী:১

চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলার কাথারিয়া ইউনিয়নের বরইতলী এলাকায় ভোটের আগের রাতে কেন্দ্র দখলের চেষ্টায় ত্রিমুখী সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে একজনের মৃত্যু হয়েছে।

চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (দক্ষিণ) আফরুজুল হক টুটুল বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “ওই এলাকাটি জামায়াত অধ্যুষিত। শনিবার রাত আড়াইটার দিকে তারা বরইতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র দখলের জন্য গেলে জাতীয় পার্টির সমর্থকরা তাদের বাধা দেয়। এসময় পুলিশ বাধা দিতে গেলে ত্রিমুখী সংঘর্ষ হয়।”

নিহত আহমদ কবির (৪৫) ওই ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা। রাতে সংঘর্ষের পরও সকাল থেকে ওই কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

আদামের চট্টগ্রাম অফিস জানিয়েছে, বাঁশখালী আসনে এবার ভোটের লড়াই হচ্ছে চর্তুমুখী। লাঙ্গল নিয়ে জাতীয় পার্টির নেতা সাবেক সিটি মেয়র মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী, আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী নৌকা প্রতীক নিয়ে, বিএনপির জাফরুল ইসলাম চৌধুরী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে এবং জামায়াত নেতা জহিরুল ইসলাম স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আপেল প্রতীক নিয়ে লড়ছেন।

নোয়াখালী:

নোয়াখালী-৩ আসনের একটি কেন্দ্রের নির্বাচন সরঞ্জাম লুট হওয়ায় ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে। এছাড়া আরও একটি কেন্দ্রে হামলায় ছয় জন আহত হয়েছেন।

সহকারী রিটার্নি কর্মকর্তা বেগমগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুহুল আমিন জানান, রোববার ভোর ৫টার দিকে পূর্ববাবুনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে হামলা হয়।

একদল সন্ত্রাসী অতর্কিত হামলা চালিয়ে সব নির্বাচন সরঞ্জাম নিয়ে গেছে। ওই কেন্দ্রের ভোট স্থগিত করা হয়েছে।

এছাড়া নোয়াখালী-২ আসনের একটি কেন্দ্রে হামলা চালিয়ে নির্বাচন সরঞ্জাম ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা হয়েছে। হামলায় আহত হয়েছেন সহকারী প্রিজাইডিং কর্মকর্তাসহ ছয়জন।

জেলার পুলিশ সুপার মো. ইলিয়াস শরীফ বলেন, শনিবার রাত ১১টার দিকে সোমাইমুড়ি উপজেলার এবতেদায়ি নুরানি মাদ্রাসা কেন্দ্রে এই হামলা হয়। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে ফাঁকা গুলি ছুড়লে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। এখন সব পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

হামলায় নির্বাচনের প্রিজাইডিং কর্মকর্তা ও উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মাহমুদুল হাসানসহ ছয়জন আহত হয়েছেন।

আহতদের প্রথমে নোয়াখালী জেনারেল হাসাপাতালে পাঠানো হয়। পরে মাহমুদুলকে সেখান থেকে ঢাকায় পাঠানো হয় বলে জানান পুলিশ সুপার।

সিরাজগঞ্জ:

সিরাজগঞ্জে আওয়ামী লীগেরে নির্বাচনী ক্যাম্পে হামলায় ৫ জন আহত হয়েছেন । এ ঘটনায় বিএনপি- জামাতকে দায়ী করেছে আওয়ামী লীগ।

ভৈরব:

ভৈরবে বিএনপির নেতাকর্মীরা কেন্দ্র দখলের চেষ্টা করলে পুলিশের হস্তক্ষেপে তা নিয়ন্ত্রণে আসে।

রাজশাহী:

এছাড়া রাজশাহীর তানোরে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ক্যাস্পে আগুন দেয়ার ঘটনা ঘটে।

ইউটিউবে দেশ টেলিভিশনের জনপ্রিয় সব নাটক ও অনুষ্ঠান দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Desh TV YouTube Channel

এছাড়াও রয়েছে

মানবতাবিরোধী অপরাধ: গাইবান্ধার ৯ জনের রাজাকারের তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ

রাঙামাটিতে আ'লীগ নেতা সুরেশ হত্যায় মামলা, আটক ১

সুনামগঞ্জে ছুরিকাঘাতে আ.লীগ নেতা নিহত

অভিজিৎ হত্যা মামলা: ৬ জনকে আসামি করে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল

দৌলতপুরে কথিত বন্দুকযুদ্ধে একজন নিহত

যশোরে শিশু তৃষা ধর্ষণ-হত্যার আসামি "বন্দুকযুদ্ধে" নিহত

যশোরে উদীচী হত্যাযজ্ঞ: আপলিটি আটকে আছে আইনী বেড়াজালে

ছয় বছরেও ত্বকি হত্যা মামলার অভিযোগপত্র জমা দেয়নি র‌্যাব

সর্বশেষ খবর

খালেদার মুক্তির রাজনীতি থেকে বেরিয়ে আসতে হবে: তথ্যমন্ত্রী

খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা স্বাধীনতা দিবসের অঙ্গীকার: মির্জা ফখরুল

শিশুদের মাদক-জঙ্গিবাদ থেকে দূরে রাখার আহ্বান

স্বাধীনতা দিবসে বঙ্গভবনে আয়োজন করা হয় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের