অপরাধ

ksrm

মঙ্গলবার, ২৯ মে, ২০১৮ (১১:২৮)

মাদকবিরোধী অভিযান: রাজধানীসহ সারাদেশে নিহত ১২

বন্দুকযুদ্ধ

সারাদেশে চলমান আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর মাদকবিরোধী অভিযানে সোমবার থেকে মঙ্গলবার ঢাকা, যশোর, কুষ্টিয়া, কুমিল্লা, ময়মনসিংহ, সাতক্ষীরা, ঠাকুরগাঁওয়, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও বরগুনা গুলিতে সন্দেহভাজন ১২ মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন।

ঢাকা :

রাজধানীর দক্ষিণখান থানাধীন আশিয়ান সিটি মাঠ এলাকায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ সুমন মিয়া ওরফে খুকু সুমন নামে মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন।

দক্ষিণখান থানার সিনিয়র সহকারী কমিশনার (এসি) মিজানুর রহমান বলেন, পুলিশের কাছে সংবাদ আসে কিছু মাদক ব্যবসায়ী আশিয়ান সিটির মাঠে অবস্থান করছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি করলে পুলিশও পাল্টা গুলি করে। এ সময় মাদক ব্যবসায়ী সুমন গুলিবিদ্ধ হয়।

তিনি আরো বলেন, ঘটনাস্থল থেকে এক হাজার ইয়াবা, একটি ওয়ান শুটার গান, দুটি গুলি ও চারটি ককটেল উদ্ধার করা হয়।

যশোর :

যশোরের শহরের চাঁচড়া রায়পাড়া প্রাইমারি স্কুল এলাকায় সোমবার দুই দল মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে গোলাগুলিতে দুই জন নিহত হয়েছেন।

নিহতরা হলেন: যশোর সদরের মন্ডলগাতি গ্রামের জাহান আলীর ছেলে আসর আলী ও শহরের রায়পাড়ার সেখেঁন্দার খার ছেলে মানিক।

যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) সালাউদ্দিন শিকদার বলেন, নিহত দুই জনই চিহিৃত মাদক কারবারি। এদের মধ্যে আসর আলীর বিরুদ্ধে ১১টি ও মানিকের নামে ১০টি মাদক আইনে মামলা রয়েছে।

যশোর কোতয়ালী থানার ওসি একেএম আজমল হুদা বলেন, সোমবার চাঁচড়া রায়পাড়া প্রাইমারি স্কুল এলাকায় দুই দল মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে গোলাগুলি খবর পেয়ে দ্রুত পুলিশ সেখানে গেলে পুলিশের উপস্থিতি পেয়ে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। এ সময় সেখানে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় দুই জনকে পরে থাকতে দেখে তাদের যশোর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসক তাদের মৃত বলে ঘোষণা করেন।

তিনি আরো বলেন, ঘটনাস্থল থেকে ৬০০ পিস ইয়াবা, দুইটি দেশি পিস্তল, দুই রাউন্ড তাজা গুলি ও ১২ বোর বন্দুকের ৪টি খোসা উদ্ধার করা হয়েছে।

কুষ্টিয়া :

কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার বোয়ালিয়া ইউনিয়নের শেয়ালা বটতলা মাঠে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে দুই মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন।

নিহতরা হলেন: মোকাদ্দেশ হোসেন (৪২) ও ফজলুর রহমান ওরফে টাইটেল (৪৮)।

দৌলতপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আজগর আলী বলেন, মাদকদ্রব্য কেনাবেচার জন্য একদল মাদক ব্যবসায়ী দৌলতপুর উপজেলার শেয়ালা বটতলা মাঠে অবস্থান করছিল। এ সংবাদ পেয়ে দৌলতপুর থানা পুলিশের একটি টহল দল ঘটনাস্থলে অভিযানে যায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। জবাবে পুলিশও পাল্টা গুলি চালালে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই মাদক ব্যবসায়ী গুলিবিদ্ধ হয়। পুলিশ গুলিবিদ্ধ দুই জনকে উদ্ধার করে দৌলতপুর থানা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি আরো বলেন, মোকাদ্দেশ হোসেন ও ফজলুর রহমান ওরফে টাইটেল পুলিশের তালিকাভুক্ত শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী। এদের বিরুদ্ধে দৌলতপুর থানায় মাদক ব্যবসা ও ছিনতাইয়ের আটটি করে মামলা রয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) ফিরোজ আলম, আবদুর রাজ্জাক ও কনস্টেবল সুজিত কুমার আহত হয়েছেন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি এলজি, পাঁচটি গুলি, একটি পিস্তলের ম্যাগাজিন ও ২৫০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করেছে।

কুমিল্লা :

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার গুঞ্জর এলাকায় গোমতী প্রতিরক্ষা বাঁধের পাশে ভাই ভাই ব্রিক ফিল্ডের সামনে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে দুই মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে।

তারা হলো, লিটন ওরফে কানা লিটন (৪৩) ও বাতেন (৩৪)।

মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মঞ্জুর আলম বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মাদক উদ্ধার করতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মুরাদনগর সার্কেল) জাহাঙ্গীর আলমের নেতৃত্বে তিনিসহ পুলিশের একটি দল গোমতী বাঁধের পাশে অবস্থান নেয়। সেখানে মাদক ব্যবসায়ী কানা লিটন ও বাতেনসহ তাদের সহযোগীরা পৌঁছালে তাদের আটকের চেষ্টা করে পুলিশ। এ সময় পুলিশকে লক্ষ্য করে মাদক ব্যবসায়ীরা গুলি চালালে পুলিশও আত্মরক্ষার্থে গুলি চালায়। এ সময় লিটন ও বাতেন গুলিবিদ্ধ হয়। উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তাদের মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় পুলিশের তিন সদস্য আহত হন এবং ঘটনাস্থল থেকে একটি পাইপগান ও ৪০০ বোতল ফেনসিডিল জব্দ করা হয়।

ময়মনসিংহ :

ময়মনসিংহের ভালুকার পাড়াগাঁও এলাকায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মিজান নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি আশিকুর রহমান বলেন, সোমবার জেলা গোয়েন্দা পুলিশ ও ভালুকা মডেল থানা পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মিজান নিহত হন। এ সময় ভালুকা মডেল থানার ইন্সপেক্টর (অপারেশন) আবুল কালাম ও এএসআই শাহআলম আহত হন। ঘটনাস্থল থেকে ১০০ গ্রাম হেরোইন, তিনটি গুলির খোসা, একটি চাপাতি উদ্ধার করা হয়েছে। মিজানের বিরুদ্ধে মাদক, অস্ত্র ও ডাকাতির ৯টি মামলা রয়েছে।

সাতক্ষীরা :

কলারোয়ায় আনিসুর রহমান নামের এক ব্যক্তির গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

কলারোয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিপ্লব কুমার নাথ বলেন, দেয়াড়া ইউনিয়নের পিপলাপোলের মাঠে মাদক চোরাচালানিদের দুটি পক্ষ মাদক ভাগাভাগি নিয়ে নিজেদের মধ্যে গোলাগুলি করছে। এ খবর পেয়ে খোরদো পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) সিরাজুল ইসলাম একদল পুলিশ সদস্য নিয়ে তাদের বিরত করার চেষ্টা করেন। এ সময় পুলিশ তিনটি ফাঁকা গুলি ছোড়ে।

তিনি আরো বলেন, পরে গোলাগুলি থেমে গেলে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় আনিসুর রহমানের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তিনি কলারোয়ার পাকুড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা। তার বিরুদ্ধে সাতক্ষীরা জেলায় ১০টি মামলা রয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে একটি ওয়ান শুটার গান জব্দ করা হয়েছে।

ঠাকুরগাঁও :

ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলার শীতলপুর এলাকায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে হারুন নামে এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে।

হরিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রুহুল কুদ্দুস বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে উপজেলার শীতলপুর এলাকায় অভিযান চালায় পুলিশ। এসময় কয়েকজন মাদক ব্যবসায়ী পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। পরে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। উভয়পক্ষের গোলাগুলিতে হারুন (৪৫) নামে এক মাদক ব্যবসায়ী ঘটনাস্থলে নিহত হয়। পরে ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

তিনি আরো বলেন, হারুনের বিরুদ্ধে হরিপুর থানায় একাধিক মাদকের মামলা রয়েছে।ঠাকুরগাঁওয়ে মাদকবিরোধী অভিযানে নিয়ে চারজন নিহত হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া :

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া পৌর এলাকার রেলওয়ে কলোনির পূর্ব পাশের খালাজোড়ায় মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে গোলাগুলিতে জনি মিয়া নামে একজন নিহত হয়েছেন।

ওসি মোশারফ হোসেন তরফদার বলেন, খালাজোড়া এলাকায় গোলাগুলির শব্দ শুনতে পায় পুলিশ। এসময় আখাউড়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) কামাল হোসেন ও হাদিস উদ্দিন ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। পরে তারা সেখান থেকে জনি মিয়ার গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করে। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশিয় পাইপগান, একটি কার্তুজ, দুইটি বড় ছোরা, একটি চাপাতি উদ্ধার করে।

তিনি আরো বলেন, জনি মিয়ার বিরুদ্ধে আখাউড়াসহ বিভিন্ন থানায় ডাকাতি, চোরাচালান ও মাদকসহ মোট ৮টি মামলা রয়েছে।

বরগুনা :

বরগুনার বেতাগী উপজেলার কাজিরাবাদ ইউনিয়নের কুমড়াখালী এলাকায় র্যা বের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে ফিরোজ নামে এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে।

বেতাগী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)মামুনুর রশিদ বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র্যা ব-৮ এর একটি দল বেতাগী উপজেলার কাজিরাবাদ ইউনিয়নের কুমড়াখালী এলাকায় মাদকবিরোধী অভিযান চালায়। এ সময় ফিরোজ ও তার সহযোগীরা র্যা বের উপস্থিতি টের পেয়ে গুলি চালালে র্যা বও পাল্টা গুলি চালায়। এক পর্যায়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পিছু হটলে ঘটনাস্থলে ফিরোজের মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে।

ঘটনাস্থল থেকে একটি রিভলবার, দুই রাউন্ড গুলি, একটি শুটারগান, বন্দুকের তিনটি গুলি ২৫০টি ইয়াবা ও ৯০০ গ্রাম গাজা উদ্ধার করেছে র্যা ব।

 

ইউটিউবে দেশ টেলিভিশনের জনপ্রিয় সব নাটক ও অনুষ্ঠান দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Desh TV YouTube Channel

এছাড়াও রয়েছে

ব্যারিস্টার মইনুলকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ

না’গঞ্জে ৪ যুবকের মাথায় গুলি পাওয়া গেছে

মহেশখালীতে অস্ত্র-গোলাবারুদসহ ৪৩ জলদস্যুর আত্মসমর্পন

মাধবদীতে জঙ্গি আস্তানায় অভিযান, দুই নারী জঙ্গির আত্মসমর্পন

সোনার বারসহ চীনা নাগরিক আটক

ময়মনসিংহ-টাঙ্গাইলে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ২

যশোরে দুই দল সন্ত্রাসীদের মধ্যে গোলাগুলি, নিহত ১

কুষ্টিয়ায় সাব-রেজিস্ট্রার খুন

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে মইনুলকে

আশ্রয়প্রার্থীকে নাগরিকত্ব দেয়ার সিদ্বান্ত আসাম মন্ত্রিপরিষদের

বিদ্যমান আইনে জামাতকে নির্বাচনে অযোগ্য ঘোষণা করা সম্ভব না

নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কথাই শেষ কথা